জেলা সংবাদ

চৌগাছায় আপত্তিকর অবস্থায় যুবক-যুবতিকে আটক করে চালান দিয়েছে চৌগাছা থানা পুলিশ

প্রকাশ: ০৮ অক্টোবর ২০১৯

চৌগাছা প্রতিনিধি ■ বাংলাদেশ প্রেস

যশোরের চৌগাছায় সরকারি হাসপাতালের ওটি রুমের  বাথরুমে আপত্তিকর অবস্থায় শহিদ পিয়াস (আজম) এবং সালমা খাতুন নামের দুই যুবক-যুবতীতে আটকের পর থানা পুলিশে দিয়েছে হাসপাতাল কতৃপক্ষ। শহিদ পিয়াস (আজম) উপজেলার আজমতপুর গ্রামের কুব্বোত আলীর ছেলে। আর সালমা খাতুন স্বামী পরিত্যাক্তা চৌগাছা শহরের ভাড়াটিয়া।

চৌগাছা উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কর্মকর্তা ডা. মাসুদ রানা বলেন, সোমবার(৭ অক্টোবর) হাসপাতালে ফ্যামিলিপ্লানিংয়ের ওটি শেষে দুপুরস্টাফরা চিকিৎসকদের জন্য নির্ধারিত টয়লেটের মধ্যে শহিদ পিয়াস (আজম) এবং সালমা খাতুন নামের ওই দুই যুবক যুবতীকে আপত্তিকর অবস্থায় দেখতে পেয়ে তাদের আটক করে অফিসে নিয়ে আসেন। আমি অবস্থা পাবলিকের দিকে গড়াতে পারে বলে শীঘ্রই চৌগাছা থানায় খবর দিলে থানা পুলিশ তাকে নিয়ে যায়। এই বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসারকেও জানানো হয়েছে।

চৌগাছা থানার ডিউটি অফিসার উপ-পরিদর্শক (এসআই) কাওছার আলম বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স কর্তপক্ষ তাদের আটক করে আমাদের হেফাজতে দিয়েছিলেন। ওসি স্যারের সাথে পরামর্শ করে ২৯০ ধারায় মামলা দিয়ে তাদেরকে বিকাল তিনটার পরে চৌগাছা থানা থেকে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। আদালতে পৌছায় সন্ধ্যায়, তাদের মামলা নং ৫৮ (তারিখ-৭/১০/১৯)।

তাদের নিজ নিজ এলাকার স্থানীয়রা স্বামী পরিত্যাক্তা সালমা ও শহিদ পিয়াসের সম্পর্কে কুরুচিসম্পন্ন মন্তব্য করেন।