জেলা সংবাদ

জয়পুরহাটের আক্কেলপুরে, সাংবাদিক মারধরের ঘটানা ঘটেছে

প্রকাশ: ২০ জুলাই ২০১৯

নিরেন দাস (জয়পুরহাট) আক্কেলপুর প্রতিনিধি

জয়পুরহাটে আক্কেলপুরে দৈনিক তুলশীগঙ্গা পত্রিকার আক্কেলপুর উপজেলা প্রতিনিধির ভোগ দখলীয় সম্পত্তি জোর পূর্বক দখলের চেষ্টা ও মারপিটের অভিযোগ

জয়পুরহাটে আক্কেলপুরে দৈনিক তুলশীগঙ্গা পত্রিকার আক্কেলপুর উপজেলা প্রতিনিধি ইদ্রিস আলীর ভোগ দখলীয় সম্পত্তি জোর পূর্বক দখলের চেষ্টা ও মারপিট করেছে প্রতিপক্ষরা। 

থানায় লিখিত অভিযোগ সুত্রে জানা গেছে,  তফশীল বর্ণিত সম্পত্তি ইদ্রিস আলীর কবলাকৃত সম্পত্তি । এ সম্পত্তি তিনি দীর্ঘ ১২ বছর ধরে ভোগ দখল করে ফসল উৎপাদন করে আসছে। হঠাৎ ২০/০৭/২০১৯ ইং তারিখ আনুমানিক সকাল ১০ ঘটিকার সময় তার জমিতে ফসল চাষবাসের জন্য জমির ধারে ঘাস পরিস্কার করার জন্য গেলে আসামী ১। মোঃ আব্দুল আজিজ (নয়ন), পিতা- মৃত জলিলুর রহমান। ২। মোঃ সোহাগ, পিতা- আফজাল হোসেন ৩। মোঃ মাসুদ, পিতা- আফজাল হোসেন সর্ব সাং- মোহনপুর, থানাঃ আক্কেলপুর, জেলাঃ জয়পুরহাটগন সহ ৭/৮ জন অপরিচিত সন্ত্রাসী লইয়া হাতে লাঠি, রামদা, হাসুয়া ও কোদাল নিয়ে জমিতে অনাধিকার ভাবে প্রবেশ করে জমি দখলের চেষ্টা করে। ইদ্রিস আলী আসামিদের বাধা দিলে আসামীরা একযোগে তাকে এলোপাথারিভাবে মারপিট করে। আসামী সোহাগ তার বাম হাতের আঙ্গুলে থাকা আট আনা ওজনের সোনার আংটি ছিনিয়ে নেয়। যার আনুমানিক মুল্য ২৫ হাজার টাকা। আসামী মাসুদ ইদ্রিসের পকেটে থাকা ১০ হাজার টাকা পকেট থেকে ছিনিয়ে নেয়। এ সময় আসামী আব্দুল আজিজের হাতে থাকা লাঠি দ্বারা তাকে মাথায় হত্যার উদ্যেশ্যে আঘাত করলে সে ডান হাতে ঠেকাইলে লাঠির আঘাতে আমার বাম হাতের প্রচন্ড ফুলা ও জখম হয়। 

আসামীরা বলে শালা এ জমিতে আর আসবিনা, এ জমিতে আসতে হলে আমাদের ৩ লাখ টাকা চাঁদা দিতে হবে। সাংবাদিক ইদ্রিস চাঁদা দিতে অস্বীকার করলে যে কোন সময়ে মেরে ফেলে লাশ গুম করে রাখবে বলেও আসামীরা হুমকি দেয়। 

এ সময় স্বাক্ষীরা ইদ্রিসকে বাঁচাতে গেলে তার স্ত্রী রোকসাকেও মারপিট করে পরনের কাপড় টানা হিচড়া করে শ্লীলতাহানী করে। সে আসামীদের মারপিটে আহত হয়ে মাটিতে লুটিয়া পরিলে স্বাক্ষীগন তাকে আসামীদের হাত থেকে উদ্ধার করে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে জয়পুরহাট জেলা আধুনিক হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য পাঠিয়ে দেয়। এ সম্পত্তির ব্যাপারে এর আগে গ্রাম্য শালিশে আপোষ মিমাংশা করবে বলে বিভিন্ন তালবাহানা দিয়ে তারা কালক্ষেপন করে এ ঘটনা ঘটায়। 

এ ব্যাপারে আক্কেলপুর থানার অফিসার ইনচার্জ কিরণ কুমার রায় জানান, অভিযোগ পেলেই তদন্ত স্বাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।