জেলা সংবাদ

পত্নীতলায় আ’লীগ নেতা হত্যায় বিএনপি সমর্থক পৌর কাউন্সিলর গ্রেফতার

প্রকাশ: ০৫ ডিসেম্বর ২০১৮     আপডেট: ০৫ ডিসেম্বর ২০১৮ |

নিজস্ব প্রতিবেদক, বাংলাদেশ প্রেস

হাসপাতালে মো. ইসাহাক হোসেনের নিথর মরদেহ। ছবিঃ বাংলাদেশ প্রেস

নওগাঁর পত্নীতলায় দুর্বৃত্তদের ছুরিকাঘাতে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. ইসাহাক হোসেন নিহতের ঘটনায় পৌর কাউন্সিলর আবুল কালাম আজাদকে তার ভাইসহ গ্রেফতার করা হয়েছে।

বুধবার ভোরে নজিপুর পৌরসভার ১ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর আবুল কালাম আজাদ ও তার ভাই বেলাল হোসেন ফকিরকে গ্রেফতার করে পুলিশ।তারা দু’জনই বিএনপির কর্মী বলে জানা গেছে। 

মো. ইসাহাক হোসেন নিহতের ঘটনায় কালো ব্যাচ ধারণ করে বুধবার সকাল থেকে শোক কর্মসূচি পালন করছেন স্থানীয় নেতারা। প্রকৃত হত্যাকারীদের দ্রুত গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তিও দাবি করেন তারা।

উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক ও নজিপুর পৌরসভার মেয়র রেজাউল কবির চৌধুরী বাবু বলেন, এটি রাজনৈতিক হত্যাকাণ্ড। এখানকার নেতৃত্ব শূন্য করার জন্যই এই নৃশংস হত্যাকাণ্ড চালানো হয়েছে। প্রকৃত হত্যাকারীদের অবিলম্বে গ্রেফতার করে তাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান তিনি।

মঙ্গলবার রাত পৌঁনে ১০টার দিকে নিজ বাড়িতে দুর্বৃত্তদের ছুরিকাঘাতে মারা যান পত্নীতলায় উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. ইসাহাক হোসেন (৭৫)। 

পত্নীতলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) পরিমল কুমার জানান, মঙ্গলবার রাত ৯টার দিকে নির্বাচনী কাজ শেষ করে মাইক্রোবাসে করে পলিপাড়ায় নিজ বাড়িতে ফেরেন ইসাহাক হোসেন। রাত পৌঁনে ১০টার দিকে দুর্বৃত্তরা হামলা চালিয়ে তাকে উপর্যুপরি ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যায়।

পরে আশপাশের লোকজন তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। তবে কি কারণে এবং কারা তার ওপর হামলা চালিয়েছে তা তাৎক্ষণিক জানাতে পারেননি ওসি। 

এই হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে। আজ বুধবার বিকেলে পত্নীতলায় ইসাহাক হোসেনের জানাজা অনুষ্ঠিত হবে।