জেলা সংবাদ

  • খাগড়াছড়িতে অবরোধ চলছে

    খাগড়াছড়িতে অবরোধ চলছে

  • ট্রাক-মাইক্রো সংঘর্ষে ফেনিতে নিহত ৭

    ট্রাক-মাইক্রো সংঘর্ষে ফেনিতে নিহত ৭

  • বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৩তম শাহাদত বার্ষিকী অনুষ্ঠিত

    বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৩তম শাহাদত বার্ষিকী অনুষ্ঠিত

  • প্রধানমন্ত্রী রোহিঙ্গাদের ঈদের কথা ভুলেনি , কেনা হচ্ছে ১০ হাজার কোরবানির পশু

    প্রধানমন্ত্রী রোহিঙ্গাদের ঈদের কথা ভুলেনি , কেনা হচ্ছে ১০ হাজার কোরবানির পশু

  • নগরি জুড়েই নির্বাচনী ঈদ শুভেচ্ছা : যত্রতত্র বাহারি এসব পোস্টার, ব্যানার অপসারণে নামছে চসিক

    নগরি জুড়েই নির্বাচনী ঈদ শুভেচ্ছা : যত্রতত্র বাহারি এসব পোস্টার, ব্যানার অপসারণে নামছে চসিক

আলোচিত মহিউদ্দিন হত্যাকান্ড : রাজনীতির বলী নাকি লাশ নিয়ে রাজনীতি ?

প্রকাশ: ১১ জুন ২০১৮     আপডেট: ১১ জুন ২০১৮

চট্টগ্রাম ব্যুরো প্রতিনিধি

চট্টগ্রামে আলোচিত যুবলীগ নেতা মহিউদ্দিন হত্যাকান্ড নিয়ে লাশের রাজনীতি চলছে বলে অভিযোগ করছে মামলার প্রধান আসামী হাজী ইকবালের পরিবার। এ বিষয়ে তার পরিবার গত বৃহস্পতিবার (৭ই মে) চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করেে। বাংলাদেশ প্রেস প্রতিনিধি এই বিষয়ে আরো বিস্তারিত ভাবে জানতে মুখোমুখি হয় হাজি ইকবালের মেয়ে হানান ইকবালের । সেই সাক্ষাতকারের গুরুত্ব পূর্ণ প্রশ্ন-উত্তর পর্ব বাংলাদেশ প্রেস'র পাঠকদের কাছে তুলে ধরা হলো।

বাংলাদেশ প্রেস : আপনারা সেদিন সংবাদ সম্মেলনে লাশ নিয়ে রাজনীতি হচ্ছে বলেছেন। তা এটা বলতে ঠিক কি বুঝাতে চাচ্ছেন ? কে বা কারা সেই রাজনীতি করছে ?

হানান ইকবাল : আজ দেখুন আমার মা, ফুফু ও আত্বিয়রা নিজ বাড়ী ভিটা ছেড়ে অন্যত্র বসবাস করতে বাধ্য হচ্ছে। কেন ? আমার মা, ফুফুদের কি অপরাধ ? আমাদের প্রায় ৬০টির মতন বাসার ভাড়াটিয়া পরিবারকে জোর পূর্বক বাসা থেকে তাড়িয়ে দেয়া হয়েছে, বাসার সব ভাড়াটিয়াদের সাথে কারো তো শত্রুতা ছিলো না। মামলার এজহারে নাম নেই তারপরো আমার এক চাচাকে পুলিশ আটক করে মামলায় জুড়ে দিয়ে কারাগারে ফেলে রেখেছে। আমাদের পরিবারকে পুরুষ শূন্য করে আমাদের নাগরিক অধিকারকে খর্ব করে, আমার বাবা ও আত্মিয়দের পরিকল্পিত ভাবেই খুনী বানানো হচ্ছে। আর এসবই হচ্ছে স্থানীয় রাজনীতির কারণে।


বাংলাদেশ প্রেস : তাহলে কি আপনাদের বাড়ি ঘর দখলের জন্যই এসব করা হচ্ছে বলে আপনি মনে করেন ?

হানান ইকবাল : ঘটনা প্রবাহ যদি দেখেন তাহলে তো পরিষ্কার বোঝাই যাচ্ছে মহিউদ্দিনের হত্যার পর থেকে আমাদের এক এক করে ঘর বাড়ী ছাড়া করানো হলো। আমার স্বামীকে পর্যন্ত ঐ হত্যা মামলায় জড়িয়ে আটক করে কারাগারে রাখা হলো। আমার ভাই আলী ২৬শে মার্চে ঢাকার একটি ইভেন্টে অংশ নিয়েছিলো। সে যে সেদিন চট্টগ্রামেই ছিলো না সেটার অনেক তথ্য প্রমান থাকার পরো তাকেও খুনের মামলায় জেলে নেয়া হলো। এসব শুধু মহিউদ্দিনের আসল হত্যাকারীদের আড়াল করে আমার বাবা হাজী ইকবালকে স্থানীয় রাজনীতি থেকে চীরদিনের জন্য সরিয়ে দিতেই করা হচ্ছে।

বাংলাদেশ প্রেস : আপনারা সেদিন বেশ কিছু ছবি দিয়ে জানিয়ে ছিলেন আপনার বাবা হাজী ইকবাল ও চাচা মুরাদ সেদিন আহত হয়েছিলো। এই বিষয়টি আপনারা বিলম্বে গনমাধ্যমকে জানালেন কেন ? আর ঐ ছবি আর তথ্য গুলোই বা কিভাবে পেলেন ?

হানান ইকবাল : আমরা সেদিন সংবাদ সম্মেলনেও এই ব্যাপারে জানিয়েছিলাম। আমার বাবা ও চাচা আহতের পর যারা তাদের সাথে ছিলেন সেই ছেলে গুলো পরবর্তীতে ঢাকা থেকে গ্রেফতার হয়। সেখানে আমার ভাইও আটক হয়। আমরা জেল গেটে আমার ভাই ও আত্মিয়দের সাথে দেখা করতে গেলে তারা এসব তথ্য আমাদের জানান। পরে আটককৃতদের পরিবারের হাত ঘুরে ছবি গুলো আমাদের হাতে আসে। এর পরো আমরা এসব প্রকাশের চেষ্ঠা করেছিলাম কিন্তু আমাদের কারো সাথেই সেই যোগাযোগ করা সম্ভব হচ্ছিলো না। পরে সাহস করে ঝুঁকি নিয়ে সংবাদ সম্মেলন করি।


বাংলাদেশ প্রেস : ঝুঁকি নিয়ে বলছেন। আপনাদের কে কি কেউ বাঁধা দিচ্ছে কিংবা কোন হুমকি ধমকি দিয়েছে ?

হানান ইকবাল : মহিউদ্দিন হত্যার পর থেকেই তো আমরা পুরো পরিবার হুমকির মাঝে আছি। সংবাদ সম্মেলনে আমাদের পাশে কোন পুরুষ সদস্য ছিলো না। একজন কাজিন সেখানে ছিলো তাকেও ফেসবুকে নানান হুমকি ধমকি দেয়া শুরু হয়ে গেছে।


বাংলাদেশ প্রেস : মহিউদ্দিন হত্যাকান্ডের বিষয়ে আপনাদের কি ধারনা বা আপনার বাবা যদি নির্দোষ হন তাহলে হত্যাটা কে কিভাবে ঘটলো।

হানান ইকবাল : আমরা বরাবরই বলছি আসল হত্যাকারী যেই হোক সুষ্ঠ তদন্ত করে দোষিদের চিহ্নিত করে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হোক। কিন্তু পুলিশ আজ অব্দি আমাদের অপরিবারের সদস্যদের আটক করে কারাগারে পাঠানো ছাড়া হত্যার রহস্য উদঘাটনের ক্ষেত্রে কোন অগ্রগতি দেখাতে পারেনি।


বাংলাদেশ প্রেস : আপনার বাবা তো প্রধান অভিযুক্ত। তিনি পলাতক হলে অগ্রগতি কিভাবে হবে ?
হানান ইকবাল : আমার বাবা পলাতক না আটক সেটা আমরা এখনো নিশ্চিত করে জানিনা। আর তদন্তের জন্যে সেখানে যারা উপস্থিত ছিলো তাদের মধ্যে প্রত্যক্ষদর্শী একক দপ্তরীকে মামলার আসামী করে আগেই কারাগারে বন্ধি করে রাখা হয়েছে। সে যদি জনসম্মুখে বক্তব্য রাখতো তাহলে অনেক বিষয় প্রকাশ পেতো। সেদিন আরো তিনজন দপ্তরি সেখানে ছিলো কিন্তু তাদেরকে আটক বা জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়নি। পুরো স্কুলটা সিসি ক্যামরার আওতায় ছিলো। কিন্তু রহস্য যখন ভাবে সেই ক্যামরার ফুটেজের হদিস আজো মেলেনি। আমার বাবাও যদি খুনী হয় সেটাও তো সিসি ক্যামরায় দেখা যেতো। আজ যারা আমার বাবা, চাচাকে খুনী বলছে তাদের অনেকেই তো সেখানে স্বশরীরে উপস্থিত ছিলো। খোঁজ নিয়ে দেখুন তাদের কারো গায়ে একটু আচড় তো দূরের করা রক্তের দাগ লেগেছিলো কিনা ? তাহলে কি ধরে নেয়া হবে উনারা দর্শকের মতন মহিউদ্দিনের হত্যা কান্ড দেখছিলেন ? আজ যাদের খুনী বলা হচ্ছে তারা দুজনেরি কিন্তু গুরুতর ভাবে আহত। বিষয়টা কি তদন্ত করে দেখা উচিত নয় ?


বাংলাদেশ প্রেস : তাহলে কি আপনারা বলতে চাচ্ছেন, মহিউদ্দিন হত্যায় ৩য় কোন পক্ষ জড়িত।

হানান ইকবাল :  অবশ্যই আমরা সেটা মনে করি। কারণ মহিউদ্দিনের সাথে আমার বাবার ব্যাক্তিগত কোন শত্রুতা ছিলো না। একটি মহল মহিউদ্দিনকে ব্যবহার করে ইতিপূর্বেও অনেক বিবাদের চেষ্ঠা করেছিলো।


বাংলাদেশ প্রেস : একটি মহল কে বা কারা? কেন তারা আপনার বাবা চাচা বা আপনাদের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করছে ?  

হানান ইকবাল : আমরা সেদিনের সংবাদ সম্মেলনে এক এক করে বেশ কয়েকটি কারণ তুলে ধরেছিলাম। সেগুলোর স্বপক্ষে প্রমানো তুলে দেয়া হয়েছিলো। প্রথমত মেহের আফজাল স্কুলের প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের আয়োজনের ৫০ লক্ষটাকার হিসাব চেয়েছিলো আমার বাবা। এর জন্যে উকিল নোটিশও দেয়া হয়েছিলো। এরপর এলাকার সরকারি খাস জমিতে একজনের অবৈধ ভবন নির্মানের বিরুদ্ধে অবস্থান নেয়ায়া সেই ভবনের নির্মান কাজ বন্ধ করতে বাধ্য হয়েছিলো। স্থানীয় এমপি লতিফ সহ আপরজনের নামে আমার বাবা প্রান নাশের আশংকায় জিডি করেছিলেন। নিহত মহিউদ্দিনের বিরুদ্ধে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে অপপ্রচারের বিরুদ্ধে আমার বাবা আইসিটি ধারায় মামলা করেছিলেন। সর্বপরি আসন্ন নির্বাচনে আমার বাবা বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী ছিলেন। আর এসব কিছু যার যার বিপক্ষে গেছে তাদের কাছে আমার বাবা ছিলেন পথের কাঁটা। তাই মহিউদ্দিনের হত্যাকান্ডকে সুপরিকল্পিত ভাবে সাজানো হয়েছে। সেই মামলায় আমার বাবা, চাচাকে আসামী করেই তারা ক্ষান্ত হয়নি। পরিকল্পনার অংশ হিসেবে আমার স্বামী, ভাই সহ অন্য আরেক চাচাকেও আটক করে রাখা হয়েছে।


বাংলাদেশ প্রেস : আপনি বলছেন ষড়যন্ত্র করে আপনার স্বামী ও ভাইকে জড়িত করা হয়েছে। আপনাদের পরিবারকে পুরুষ শূন্য করে ফেলার চক্রান্ত কেন করা হচ্ছে ?

হানান ইকবাল : পুরুষ শূন্য করা হচ্ছে কারণ যাদে আমাদের বাবা, চাচার পক্ষে কেউ দৌড় ঝাপ করতে না পারে। যেমন এখন আমরা পরিবারের নারী সদস্যরা চাইলেও সারাদিন কোর্ট কাচারি দৌড়াতে পারছিনা। এছাড়া ইতিমধ্যে আমাদের ভাড়া ঘর গুলো থেকে ভাড়াটিয়াদের উচ্ছেদ করে আমাদের অর্থনৈতিক অবস্থা ধ্বংস করে দেয়া হয়েছে। আমাদের বাড়িতে লুটতরাজ চানালো হয়েছে। এই বিষয়ে থানায় মামলা করতে গেলেও আমাদেত থানার দরজা থেকে ফেরত দেয়া হয়েছে। আমাদের নিজ বাড়িতে যাওয়াটা অনেকটা নিষিদ্ধ করে রাখা হয়েছে । এসব একটু বিশ্লেষন করলে আপনারা বুঝতে পারবেন মহিউদ্দিনের হত্যাকান্ডের ঘটনার মূলে নোংরা রাজনীতির খেলা চলছে।


বাংলাদেশ প্রেস : এখন আপনারা আসলে কি চাচ্ছেন ?

হানান ইকবাল : আমরা দেশের নাগরিক হিসেবে আমাদের নাগরিক ও মৌলিক অধিকার চাই। আমারা আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হয়েই বলছি, একটি মহল আইনশৃংখলা বাহিনীকে বিভ্রান্ত করে সার্থ হাসিলের পায়তারা করছে যা সুষ্ঠ তদন্তকে ব্যহত করছে। তাই সুষ্ঠ তদন্তের স্বার্থে আরো সংস্থাকে দায়িত্ব দিয়ে যথাযথ তদন্ত নিশ্চিত করা হোক। এবং মহিউদ্দিনের খুনি যেই হোক তাকে দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তি দেয়া হোক।

ঘোষনা : বাংলাদেশ প্রেসের পক্ষ থেকে নিহত মহিউদ্দিনের পরিবারের সাক্ষাতিকার গ্রহণ করে তা শীঘ্রই সম্মানিত পাঠকদের সামনে প্রকাশের চেষ্টা করা হচ্ছে।

(পাঠকদের জন্যে গত ৭ই জুন হাজী ইকবালের পরিবারের পক্ষে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনের ভিডিও চিত্র যুক্ত করা হলো।) 

আরও পড়ুন

খাগড়াছড়িতে অবরোধ চলছে

খাগড়াছড়িতে অবরোধ চলছে

খাগড়াছড়িতে ব্রাশফায়ারে তিন ইউপিডিএফ নেতা ও সমর্থকসহ ছয়জন হত্যাকাণ্ডের প্রতিবাদে ...

প্রধানমন্ত্রী রোহিঙ্গাদের ঈদের কথা ভুলেনি , কেনা হচ্ছে ১০ হাজার কোরবানির পশু

প্রধানমন্ত্রী রোহিঙ্গাদের ঈদের কথা ভুলেনি , কেনা হচ্ছে ১০ হাজার কোরবানির পশু

কক্সবাজারের উখিয়া ও টেকনাফের ৩০টি আশ্রয়শিবিরের রোহিঙ্গাদের জন্য ১০ হাজার ...

কোরবানির পশুবাহী ট্রাকে বাধা দিলে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়ার হুঁশিয়ারি :পুলিশের মহাপরিদর্শক

কোরবানির পশুবাহী ট্রাকে বাধা দিলে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়ার হুঁশিয়ারি :পুলিশের মহাপরিদর্শক

ঈদুল আযহার বাকী আর মাত্র কদিন। এরই মধ্যে রাজধানীর হাটগুলোতে ...

শিক্ষার্থীদের ঈদের আগেই মুক্তির ব্যাপারে পদক্ষেপ গ্রহন করতে বলেছিলেন প্রধানমন্ত্রী

শিক্ষার্থীদের ঈদের আগেই মুক্তির ব্যাপারে পদক্ষেপ গ্রহন করতে বলেছিলেন প্রধানমন্ত্রী

সাম্প্রতি নিরাপদ সড়কের আন্দোলনে যেসব শিক্ষার্থী গ্রেফতার হয়েছিলো তাদেরকে ঈদের ...

স্বাধীনতা পদকপ্রাপ্ত নৃত্যগুরু বাদল না ফেরার দেশে

স্বাধীনতা পদকপ্রাপ্ত নৃত্যগুরু বাদল না ফেরার দেশে

দেশের প্রখ্যাত নৃত্যগুরু বজলুর রহমান বাদল। ‘স্বাধীনতা পদকপ্রাপ্ত’ বরেণ্য এই ...

নগরি জুড়েই নির্বাচনী ঈদ শুভেচ্ছা : যত্রতত্র বাহারি এসব পোস্টার, ব্যানার অপসারণে নামছে চসিক

নগরি জুড়েই নির্বাচনী ঈদ শুভেচ্ছা : যত্রতত্র বাহারি এসব পোস্টার, ব্যানার অপসারণে নামছে চসিক

আসন্ন ঈদকে সামনে রেখে বাণিজ্যিক রাজধানী চট্টগ্রাম জুড়ে নগরবাসিকে ঈদের ...

এক-এগারো নিয়ে আ’লীগের কুমতলব আছে: মির্জা ফখরুল

এক-এগারো নিয়ে আ’লীগের কুমতলব আছে: মির্জা ফখরুল

এক-এগারো নিয়ে আওয়ামী লীগের কোনো কুমতলব আছে বলে মন্তব্য করেছেন ...

২২ শিক্ষার্থীর মধ্যে ১৬ জনের জামিন

২২ শিক্ষার্থীর মধ্যে ১৬ জনের জামিন

পুলিশের ওপর হামলা ও ভাঙচুরের অভিযোগে দুই মামলায় বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ...