জেলা সংবাদ

  • নোয়াখালীর সোনাইমুড়ীতে আওয়ামীলীগ বিএনপি সংঘর্ষ

    নোয়াখালীর সোনাইমুড়ীতে আওয়ামীলীগ বিএনপি সংঘর্ষ

  • গণসংযোগে শিবলী সাদিক মাঠে নেই ধানের শীষ

    গণসংযোগে শিবলী সাদিক মাঠে নেই ধানের শীষ

  • ভোলা৪ দক্ষিন আইচায় তিনশো নেতাকর্মী আওয়ামীলীগে যোগদান

    ভোলা৪ দক্ষিন আইচায় তিনশো নেতাকর্মী আওয়ামীলীগে যোগদান

  • আক্কেলপুরে নাশকতার অভিযোগে যুবদল নেতা গ্রেপ্তার

    আক্কেলপুরে নাশকতার অভিযোগে যুবদল নেতা গ্রেপ্তার

  • দিনাজপুরে দুই মোটরসাইকেলের সংঘর্ষে আরোহী নিহত

    দিনাজপুরে দুই মোটরসাইকেলের সংঘর্ষে আরোহী নিহত

বাড়বকুন্ডের জায়গাটি নিজেদের, দাবী কেএসআরএম : রেলওয়ের গ্রীণ সিগন্যাল

প্রকাশ: ১০ এপ্রিল ২০১৮     আপডেট: ১০ এপ্রিল ২০১৮

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট ,চট্টগ্রাম

সাম্প্রতি চট্টগ্রামের সীতাকুন্ড উপজেলার বাড়বকুন্ড এলাকায় বাংলাদেশে রেলওয়ের ১.৬৫ একর জায়গার মালিকানা নিয়ে বিরোধে জড়িয়েছে দেশের শীর্ষ দুই শিল্প গ্রুপ কেএসআরএম এবং পিএইচপি পরিবার। ইতিমধ্যে জায়গার বিরোধ নিয়ে উভয় পক্ষ একে অন্যের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দায়েরের ঘটনাও ঘটেছে। এই ১.৬৫ একর জায়গা নিয়ে বাড়বকুন্ড এলাকায় অনেকটা উত্তেজক পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়। জায়গাটির মালিকানা নিয়ে পাল্টাপাল্টি দাবীর প্রেক্ষিতে গত রবিবার সংবাদ সম্মেলন করে জায়গাটি নিজেদের বলে আবারো দাবী জানিয়েছে কেএসআরএম কতৃপক্ষ। তাদের এই দাবীর পক্ষে জমির মূল ইজারা গ্রহিতা নুরুল আলম তার নিজের বক্তব্য পরিষ্কার ভাবে তুলে ধরেছেন। সেই সাথে জমির মূল মালিক রেলওয়ের ভাষ্য, জমিটি কেএসআরএম কতৃপক্ষের। বলা চলে রেলওয়ের গ্রীণ সিগন্যাল এখনো কেএসআরএম'র পক্ষে। 


গত রবিবার এক সংবাদ সম্মেলনে কেএসআরএম কতৃপক্ষ তাদের মালিকানা দাবীর স্বপক্ষে জমির মূল ইজারা গ্রহিতা নুরুল আলমকে সংবাদ কর্মীদের সামনে হাজির করান। এসময় নুরুল আলম জানিয়েছেন, তিনি ১৯৮০ সালে বাংলাদেশ রেলওয়ের কাছ থেকে জমিটি ইজারা গ্রহন করেন। ইজারা গ্রহণের পর থেকে গত ২০১৬ সাল পর্যন্ত জমিটির লাইসেন্স ফি ও ভ্যাট পরিশোধ করে নিজেই জমিটি ভোগ দখল করে আসছিলেন। পরবর্তীতে ২০১৭ সালে তিনি জমিটির ইজারা কেএসআরএম কতৃপক্ষকে হস্তান্তর করেন। এসময় সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে নুরুল আলম জানান, তিনি ২০১৭ সালে জমিটি ইজারা হস্তান্তর মূল্যের বিনিময়ে কেএসআরএম কতৃপক্ষের নিকট বিক্রি করেন। রেলওয়ের মধ্যস্ততায় ত্রিপক্ষীয় শুনানীর মাধ্যমে জায়গাটি কেএসআরএম কতৃপক্ষকে হস্তান্তর করা হয়েছিলো বলেও জানান তিনি। 


সরেজমিনে বাড়বকুন্ড এলাকায় গেলে দেখা যায় বাড়বকুন্ডের আনোয়ার জুটমিল গেইট এলাকায় ঐ জায়গার পেছনের পিএইচপি'র ১৬০ একরের বনায়ন প্রকল্প রয়েছে। বিরোধ পূর্ণ জমিটি মূলত সামনের দিকের জমি এবং সেই জমির ওপর দিয়েই পিএইচপি'র প্রকল্পে যাতায়াত করতে হয়। স্থানীয়রা জানিয়েছে, এই জমির মালিকানা নিয়ে কেএসআরএম ও পিএইচপি গ্রুপের মধ্যে একাধিক সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। অবিলম্বে বিষয়টির সুরাহা না হলে রক্তক্ষয়ি সংঘর্ষের আশংকা করছেন তারা। তবে বর্তমানে জমিটি কেএসআরএম কতৃপক্ষের দখলে থাকলেও পিএইচপি'র বনায়ন প্রকল্পে যাতায়াতের জন্য কেএসআরএম কতৃপক্ষ আনুমানিক ৩০ ফুট সড়কের জায়গা ছাড় দিয়েছে। কিন্তু পিএইচপি'র দাবী পুরো ১.৬৪ একর জায়গাটি তাদের ক্রয়কৃত। তবে এই বিষয়ে তাদের বক্তব্য পাওয়া যায়নি। 


কেএসআরএম'র প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মেহেরুল করিম জানিয়েছেন, যেখানে ২০১৭ সালে মূল লিজ গ্রহীতার কাছ থেকে ইজারা হস্তান্তর মূল্য পরিশোধ করে রেলওয়ে কতৃপক্ষের সাথে ত্রিপক্ষিয় শুনানীর মাধ্যমে জমিটি রেলওয়ে কতৃপক্ষ কেএসআরএম কতৃপক্ষকে হস্তান্তর করেছিলো। সেখানে এই সময়ে এসে পিএইচপি কতৃপক্ষ জায়গাটিকে তাদের দাবী করা সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন এবং অসত্য। সাম্প্রতিক কেএসআরএম কতৃপক্ষের বিরুদ্ধে সন্ত্রাসী কর্মকান্ড ও জবর দখলের যে অপপ্রচার চালানো হচ্ছে তা সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন এবং অসত্য। তিনি এসব প্রোপাগান্ডার তীব্র প্রতিবাদ জানিয়ে অভিযোগ করে বলেন, "গত বছর ১৩রা মার্চ পিএইচপি গ্রুপের পক্ষে বেশ কিছু ভাড়াটে সন্ত্রাসীরাই বরং আমাদের (কেএসআরএম) সীমানা ভেঙ্গে ভেতরে প্রবেশ করে প্রতিষ্ঠানের নিয়োজিত প্রহরী ও শ্রমিকদের মারধর করেছিলো।" 


এদিকে পিএইচপি কতৃপক্ষ ঐ জায়গার আশপাশের ১৬০ একর জায়গা নিজেদের উল্লেখ করে জানিয়েছেন মূলত তাদের জায়গায় বনায়ন করা হয়েছে। আর সেই জায়গার প্রবেশ পথের ১.৬৪ একর জায়গাটি নুরুল আলমের কাছ থেকে ২০০৫ সালে ক্রয় করে বলে পিএইচপি'র পক্ষ থেকে দাবী করা হচ্ছে । অথচ জমিটি রেলওয়ের কাছ থেকে ইজারা নেয়া নুরুল আলমের দাবী তিনি ২০১৬ সাল পর্যন্ত উক্ত ১.৬৪ একর জমির লাইসেন্স ফি ও ভ্যাট পরিশোধ করছেন। এছাড়া রেলওয়ার ইজারা দেয়া জমি সরাসরি ২য় পক্ষকে হস্তান্তর করা যায় না বলে রেলওয়ে ভূসম্পত্তি শাখা সূত্রে জানা গেছে। এক্ষেত্রে ২০০৫ সালে পিএইচপি কতৃপক্ষ নিজেদের স্বপক্ষে দলিল উপস্থাপন করলেও সেটাতে রেলওয়ে ভূসম্পত্তি বিভাগের কোন সম্মতি ছিলো না বলে রেলওয়ে ভূসম্পত্তি শাখা সূত্রে জানা গেছে। জায়গাটির মালিকানার বিষয়ে রেলওয়ার পূর্বাঞ্চল বিভাগের প্রধান ভূ কর্মকর্তা জসিম উদ্দিন গনমাধ্যমকে জানিয়েছেন, "জমিটি নিয়ে কোন প্রকার বিরোধের কোন কারণ ছিলো না। যেহেতু জমিটির ১ম ইজারা গ্রহিতা রেলওয়ের মধ্যস্থতায় ত্রিপক্ষিয় শুনানীর মাধ্যমে কেএসআরএম কতৃপক্ষকে ২য় ইজারা গ্রহিতা হিসেবে জায়গাটি প্রদান করেছে সেক্ষেত্রে জায়গাটির প্রকৃত মালিক কেএসআরএম কতৃপক্ষ "। গত ৩রা মার্চ রেলওয়ে ভূসম্পত্তি বিভাগ জায়গাটি সরেজমিন পরিদর্শন করে এবং সম্ভাব্য সকল তথ্যাদি সংগ্রহ করে বলেও জানান তিনি। তিনি বলেন, যেহেতু রেলওয়ের আইনের মিউটেশনের মাধ্যমে লাইসেন্স হস্তান্তরের বিধান রয়েছে এবং জায়গাটির ১ম ইজারা গ্রহিতা নুরুল আলম নোটারি পাবলিকের মাধ্যমে কেএসআরএম কতৃপক্ষকে লাইসেন্স ও জায়গাটি ব্যবহারের অধিকার হস্তান্তর করেছেন জমিটি এখন কেএসআরএম কতৃপক্ষের।


কেএসআরএম'র মহাব্যবস্থাপক সাখাওয়াত হোসেন বাংলাদেশ প্রেসকে জানান, ২০০৫ সালের ৩০ জুন দেড়শ টাকার নন জুডিসিয়াল স্ট্যাম্পে পিএইচপি যে চুক্তিনামার তথ্য দিয়েছে তা অনিয়মতান্ত্রিক । কারণ হিসেবে তিনি উল্লেখ করেন ১৯৯৮ সালের ৩১শে জুলাই থেকে এখন পর্যন্ত ৩০০ টাকার নন জুড়িসিয়াল স্ট্যাম্পে সম্পাদিত চুক্তিনামা আদালত আমলে নিচ্ছে। কেএসআরএম কতৃপক্ষ রেলওয়ার কাছ থেকে ১ম লিজ গ্রহিতা নুরুল আলম নিজে ৩০০ টাকার স্ট্যাম্পে স্বাক্ষর করে রোটারী পাবলিকের মাধ্যেমে ভূমিহস্তাতর করেন। তিনি জানান, "নুরুল আলম একজন অক্ষরজ্ঞান সম্পন্ন মানুষ তাই আমাদের সাথে সম্পাদিত দলিলে তিনি স্বাক্ষর করেছেন।" অন্যদিকে পিএইচপি পরিবারের বিভাগীয় ভূ-সম্পত্তি বিভাগ দখলিকৃত আবেদন ও জমাকৃত স্ট্যাম্পে জমির ১ম ইজারা গ্রহিতা নুরুল আলমের টিপ সই দেখানো হয়েছে যা রেলওয়ের সঙ্গে প্রতারণা বলেও তিনি জানান। 


কেএসআরএম কতৃপক্ষ মনে করছেন জমির ১ম ইজারা গ্রহিতার বক্তব্যের পর জমির মালিকার বিষয়টি নিয়ে আর কোন বিরোধের অবকাশ থাকার কথা নয়। কেএসআরএম কতৃপক্ষ জানিয়েছে তারা বরাবরই আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল থেকেই আজ অব্দি ব্যবসা পরিচালনা করে আসছেন। আগামীতেও তাদের এই ধারা অব্যহত থাকবে বলেও আশা প্রকাশ করা হয়।

আরও পড়ুন

প্রধানমন্ত্রীর এক নির্বাচনী সফরেই কুপকাত ড.কামাল

প্রধানমন্ত্রীর এক নির্বাচনী সফরেই কুপকাত ড.কামাল

উজ্জীবিত ড.কামালের কি এমন হলো যে, আচমকা তিনি হতাশ হয়ে ...

‘ঐক্যফ্রন্ট নির্বাচনে আসায় আওয়ামী লীগের মাথা খারাপ হয়ে গেছে’

‘ঐক্যফ্রন্ট নির্বাচনে আসায় আওয়ামী লীগের মাথা খারাপ হয়ে গেছে’

জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট নির্বাচনে অংশ নেওয়ায় আওয়ামী লীগের মাথা খারাপ হয়ে ...

‘বিএনপির লোকজন শীতের অতিথি পাখির মতো’

‘বিএনপির লোকজন শীতের অতিথি পাখির মতো’

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল ...

রাত ৪টার আগেই ভোটকেন্দ্রে পাহারা দিতে হবে: আ স ম রব

রাত ৪টার আগেই ভোটকেন্দ্রে পাহারা দিতে হবে: আ স ম রব

জাসদ সভাপতি ও ঐক্যফ্রন্টের নেতা আ স ম আবদুর রব ...

বিএনপি প্রার্থীর সঙ্গে তোফায়েল আহমেদের কোলাকুলি

বিএনপি প্রার্থীর সঙ্গে তোফায়েল আহমেদের কোলাকুলি

ভোলা-১ আসনের আওয়ামী লীগের প্রার্থী বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ এক ব্যতিক্রমী ...

নির্বাচন কমিশন,পুলিশ,সিভিল প্রশাসন সরকারি দলের পক্ষে কাজ করছে - মওদুদ আহমেদ

নির্বাচন কমিশন,পুলিশ,সিভিল প্রশাসন সরকারি দলের পক্ষে কাজ করছে - মওদুদ আহমেদ

শনিবার দুপুরে নোয়াখালী বার লাইব্রেরী মিলনায়তনে জেলা বিএনপি আয়োজিত সংবাদ ...

টাকা পাগল ড. কামালের বিরুদ্ধে মামলা!

টাকা পাগল ড. কামালের বিরুদ্ধে মামলা!

ড. কামালের ‘খামোশ’ শব্দ প্রয়োগ করা ভিডিও ফুটেজটি এখন ভাইরাল। ...

ব্যারিস্টার মাহাবুব উদ্দিন খোকন গুলিবিদ্ধ

ব্যারিস্টার মাহাবুব উদ্দিন খোকন গুলিবিদ্ধ

বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব ব্যারিস্টার মাহাবুব উদ্দিন খোকন গুলিবিদ্ধ হয়েছেন।শনিবার (১৫ ...