রাজনীতি

তারেককে অর্থ দিতে দিতেই আমি ফতুরঃ মোর্শেদ খান

প্রকাশ: ০৭ নভেম্বর ২০১৯     আপডেট: ০৭ নভেম্বর ২০১৯

নিজস্ব প্রতিনিধি ■ বাংলাদেশ প্রেস

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য (অব.) লে. জে. মাহবুবুর রহমান বিএনপি ত্যাগ করেছেন। তিনি স্থায়ী কমি’টির সদস্যপদসহ প্রাথমিক সদ’স্যপদ থেকেও পদত্যাগ করেছেন। গতকাল দলের আরেক ভাইস চেয়ারম্যান মোর্শেদ খান পদত্যাগ করেন।

দলের সিনিয়র নেতাদের এই পদত্যাগে বিএনপি নতুন সংকটের মুখে পড়েছে। লে. জে. মাহবুবুর রহমানের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন যে, দলের মধ্যে গণতন্ত্র নেই। সিদ্ধান্ত গ্রহণের স্বচ্ছতা নেই। অদৃশ্য ইশারায় দল চলে। এজন্যই তিনি দল ছেড়েছেন।

মোর্শেদ খানও গতকাল পদত্যাগ পত্রে বলেছেন, দলের ভিতর গণতন্ত্র নেই। দলের ভিতর কোন জবাবদিহীতা নেই। দলের নেতৃত্বের মধ্যে কোন সমন্বয় নেই। দল স্কাইপিতে চলে। স্কাইপিতে কোন রাজনৈতিক দল চলতে পারে না। এ কারণেই তিনি দল ছেড়েছেন। এর ফলে বিএনপিতে এখন হেভিওয়েটদের দল ছাড়ার হি’ড়িক শুরু হলো।

উল্লেখ্য যে, লে. জে (অব.) মাহবুবুর রহমান সাবেক সেনাপ্রধান ছিলেন। বিএনপির একজন প্রভাবশালী নে’তা হিসাবে তার পরিচিতি ছিল।

অন্যদিকে মোর্শেদ খান বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ও দলটিকে ফান্ড দেওয়া অন্যতম নেতা ছিলেন। ২০০১-০৬ সালে বিএনপি সরকারের পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিসাবে দায়িত্ব পালন করেছিলেন। মোর্শেদ খান কিছুদিন আগে অভিযোগ করেছিলেন, তারেককে অর্থ দিতে দিতেই তিনি ফতুর হয়ে গেছেন। তিনি আর দল করতে চান না। ঠিক তার একমাস পর তিনি দল থেকে স’রে দাঁড়ালেন।

মাহবুবুর রহমান দীর্ঘদিন ধরেই তারেক জিয়ার স্বেচ্ছাচারিতার বিরুদ্ধে নীরব প্রতিবাদ করে দলের সমস্ত কর্মকাণ্ড থেকে নিজেকে গুটিয়ে নিয়েছিলেন।

বিগত কয়েক বছরে বিএনপির সিনিয়র নেতাদের মধ্যে ভাইস চেয়ারম্যান শমসের মবিন চৌধুরী, ইনাম আহমেদ চৌধুরীও পদত্যাগ করেছেন।