• অর্থনীতিবিদ ড. আকবর আলী খান বলেছিলেন, শুয়োরের বাচ্চাদের অর্থনীতি, এই শুয়োরের বাচ্চারা কারা?

    অর্থনীতিবিদ ড. আকবর আলী খান বলেছিলেন, শুয়োরের বাচ্চাদের অর্থনীতি, এই শুয়োরের বাচ্চারা কারা?

  • প্রিয়া সাহার বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহের মামলা করবেন: ব্যারিস্টার সুমন

    প্রিয়া সাহার বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহের মামলা করবেন: ব্যারিস্টার সুমন

  • প্রসাদ খাওয়া‌নোর বি‌নিম‌য়ে কৃষ্ণ নাম উচ্চার‌ণ; এ নিয়ে তৈলপাড় চট্টগ্রামাসহ সারাদেশ

    প্রসাদ খাওয়া‌নোর বি‌নিম‌য়ে কৃষ্ণ নাম উচ্চার‌ণ; এ নিয়ে তৈলপাড় চট্টগ্রামাসহ সারাদেশ

  • কে এই প্রিয়া সাহা?

    কে এই প্রিয়া সাহা?

  • কিভাবে একটি নারীকে চরিত্রহীন বানিয়ে দেয়া হয়!

    কিভাবে একটি নারীকে চরিত্রহীন বানিয়ে দেয়া হয়!

কামরূপ কামাখ্যার যোনী পূজা

প্রকাশ: ০২ জুলাই ২০১৯

সায়েদুল আরেফিন

আসামের গুয়াহাটি শহর থেকে ৮ কিলোমিটার দূরে নীলাচল পাহাড়ে অবস্থিত তন্ত্র মন্ত্রের তীর্থস্থান কামরূপ কামাখ্যা। পৃথিবীর খুব কম দেশে আছে যারা কামরূপ কামাখ্যার নাম শোনেনি। এখানে রয়েছে সারি সারি পর্বতমালা। এর ঠিক পাশেই ভক্তদের আগ্রহের কেন্দ্রে মা কামাখ্যার মন্দির। মন্দিরের অন্যতম আকর্ষণ ভক্তদের নৃত্যগীত। তবে সবকিছু ছাপিয়ে কামাখ্যার জাদুবিদ্যা আর সাধকদের অতিপ্রাকৃত ক্ষমতার গল্পই সবার মুখে মুখে। আসলেই কি কোনও ক্ষমতা আছে তাদের? নাকি কেবলই গল্প! নাকি অন্য কোন আকর্ষণ আছে এই মন্দিরের! নাকি কামুক পুরুষ ও নারীরা কাম কলার একান্নটি কৌশল শিখতে যান সেখানে! সেই রহস্য এখনো কেউ ভেদ করতে পারেনি। 

কথিত আছে ভারতের যে, এক সময়ের বিখ্যাত অভিনেত্রী পারভিন ববী কামরূপ কামাখ্যায় তন্ত্র মন্ত্রে দীক্ষিত হয়ে তান্ত্রিক বিদ্যা অর্জন করেছিলেন। হিন্দু পুরাণে রয়েছে যে, তাণ্ডব রত মহাদেবের কাঁধে আত্ম ঘাতী সতীর দেহ ৫১ টুকরোতে ছিন্নভিন্ন হয়ে যায় পৃথিবীর বিভিন্ন জায়গায় ছড়িয়ে যায় সতীর দেহলতা। কিন্তু কোথায় পড়ে সতীর গর্ভ আর যোনি? জানা যায় না। অবশেষে কামদেব খুঁজতে শুরু করেন। ব্রহ্মার অভিশাপ থেকে মুক্ত হতে তাঁকে সেটা খুঁজে বের করতে হয়। আজকের আসামের নীলাচল পাহাড়ের উপরে কামদেব খুঁজে পায় সতীর গর্ভ ও যোনি। যোনীরুপী প্রস্তরখণ্ডে সতী অবস্থান করেন বলে বিশ্বাস করা হয়ে থাকে। কামদেব খুঁজে পান বলে এই জায়গার নাম হয় ‘কামরূপ’ এবং কামদেবের আরাধ্য বলে দেবী সতীকে বলা হয় ‘কামাখ্যা’ |  

কাম দেবতা তাঁর অভিশাপ মোচন করতে স্ত্রী রতীর সাথে নীলাচল পর্বতে আসেন এবং সতীর যোনী মণ্ডল প্রস্তর খণ্ড আকারে খুঁজে পান।স্বামী স্ত্রী উভয়েই প্রবল ভক্তি ও শ্রদ্ধায় সতীর যোনী মণ্ডলের পূজা করতে থাকেন এবং অবশেষে কামদেব অভিশাপ মুক্ত হয়ে তাঁর রূপ ফিরে পান। পরবর্তীতে কামদেবের নাম অনুসারেই অঞ্চলটির নাম হয় কামরূপ আর শিব পত্নী সতীর আরেক নাম কামাখ্যা। দুজনের নাম মিলে তখন হয়ে যায় কামরূপ কামাখ্যা। কাম দেবতা এখানে কামাখ্যা মাতার মন্দির স্থাপন করেন। কথিত আছে যে সকল সাধক এই মন্দিরে স্থাপিত কামাখ্যা দেবীর সাধন ও ভোজন করেন তাঁরা জগতের তিনটি ঋণ পিত্রঋণ,ঋষিঋণ এবং দেবীঋণ থেকে মুক্তি লাভ করেন। কামাখ্যা মন্দিরে প্রতি বছর বর্ষাকালে আম্বুবাচী মেলার আয়োজন করা হয়। প্রতি বছর ২২ থেকে ২৬ শে জুন হয় এই অম্বুবাচী মেলা।    

বর্ষাকালে কামাখ্যা মন্দিরের মুল বেদী হতে নিরন্তর জলের প্রবাহ বইতে থাকে। তিন দিনের জন্য এই জল ধারা লাল বর্ণ ধারণ করেন। কথিত আছে এই লাল বর্ণ কামাখ্যা মায়ের ঋতুস্রাব। বলা হয়, আষাঢ় মাসে এই তিনদিন ঋতুমতী হন দেবী কামাখ্যা। এই তিন দিনের জন্য মন্দিরের মূল ফটক বন্ধ থাকে। তখন সকলের জন্যই মন্দিরে ঢোকা সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ। বছরের ওই কটা দিন রং পাল্টায় কামাখ্যা মন্দির লাগোয়া ব্রহ্ম পুত্র নদও। হয়ে যায় লাল। কিন্তু এর পিছনে কোনও প্রাকৃতিক কারণ আছে কি তা জানা যায়নি। অনেকে বলেন, কামাখ্যা মন্দিরের পুরোহিতরাই নদের জলে প্রচুর সিঁদুর ঢেলে দেন। তাতেই লাল হয়ে যায় রং। কিন্তু সনাতন হিন্দুত্ববাদীরা মানতে চায় না সিঁদুর তত্ত্ব। তাদের কাছে সবই বিশ্বাসে মিলায় বস্তু, তর্কে বহুদূর…। আহার পূজা দিতে হয় একজন তন্ত্র মন্ত্রে দীক্ষিত তান্ত্রিক দিব্য জনকে। যিনি আবার কাম দেবের বিশেষ আশির্বাদপুষ্ট। 

কাম দেব ছিলেন কামের দেবতা। যিনি কাম কলার একান্নটি কৌশল নির্ধারণ করেন। যার উল্লেখ আছে প্রাচীন কামসূত্র গ্রন্থে। মন্দিরের দেয়ালে পাথরে খোদাই বিভিন্ন ভঙ্গিমায় কামের বিভিন্ন সূত্রের মূর্তিই এর দৃষ্টান্ত। তান্ত্রিকরা কামদেবের সাধন ভোজনে কাম কলার তন্ত্রে মন্ত্রে দীক্ষিত হন ও আশীর্বাদ প্রাপ্ত হন। এই সময় এরা সম্পূর্ণ নগ্ন হয়ে মন্দিরে অবস্থান করেন। ভক্ত নারী ও পুরুষ তাঁদের নিজ হাতে আহার করিয়ে থাকেন। তখন তাঁদের জীবন্ত লিঙ্গেরও পূজা হয়ে থাকে। তাঁদের ঘিরে কীর্তন হয় ও মন্ত্র পাঠ হয়। তান্ত্রিকরা দিগম্বর অবস্থাতেই সমস্ত উৎসব কাল মন্দিরের বাইরের সমস্ত জায়গায় ঘুরে ফিরেন। বিভিন্ন বাসনা নিয়ে আসা কিছু নারী তাঁদের কৃপা ও আশীর্বাদ লাভের আশায় এই সকল তান্ত্রিকদের সাথে সহবাসে লিপ্ত হন। পুরুষ তান্ত্রিকদের পাশাপাশি অনেক নারী তান্ত্রিকদেরও দেখা যায়। পুরুষদের ন্যায় তাদেরও অবাধ নগ্ন বিচরণ। পুরুষ ভক্তরা ঐ সকল দিব্যতা অর্জনকারী নারীদের যৌন সুখে তৃপ্ত করতে পারলে তাঁরা সেই সকল পুরুষ ভক্তদের তন্ত্রে মন্ত্রে দীক্ষিত করে তুলতেন। তবে এখন আর আগের মত তাঁদের প্রকাশ্য জনসম্মুখে দেখা যায় না। 

উৎসবের প্রধান আকর্ষণ যোনী পূজা। পূজাটি সম্পূর্ণ করেন একজন পুরোহিত। এই সময়ে একজন নারীকে সম্পূর্ণ নগ্ন অবস্থায় দেবীর শক্তি পিঠের উপর দুই পাশে দুই পা দিয়ে শক্তি পিঠের যোনী মূল নারীটির যোনী বরাবর স্থির রেখে দুই হাত হাঁটুর উপর রেখে বসানো হয়। এই সময় পুরোহিত পবিত্র জলে নারীর বিভিন্ন অঙ্গ মন্ত্র পাঠে ধৌত করে দেন। পুরোহিত তাঁর ডান হাতে বৃদ্ধা ও কনিষ্ঠা আঙ্গুলী ভাজ করে পরবর্তী তিন আঙ্গুল দণ্ডায়মান রেখে নারীর যৌনাঙ্গ মন্ত্র পাঠে মৈথুন করেন যতক্ষণ না নারীর কাম রস বের হয়ে আসে। কাম রস শক্তি পিঠে পতিত হলে নারী দেহ নিস্তেজ হয় ও দেহ পবিত্রতা লাভ করে। নারী মা কামাখ্যাকে মনে মনে আবাহন করেন। নারীর পবিত্র দেহে তখন মা কামাখ্যা আবর্তিত হন। পুরোহিত তখন পরম ভক্তিতে মন্ত্র পাঠে নারীর যোনী পবিত্র পানিতে ধৌত করে দেন। নারীর যোনী বরাবর একটি প্রদীপ জালানো হয়। এই সময় মন্দিরে উপস্থিত বিভিন্ন বয়সের প্রাপ্ত বয়স্ক সাধারণ নারী ও পুরুষ ভক্তরা তাকে পূজা অর্চনা দিয়ে থাকেন। পূজা ও মন্ত্র পাঠ চলে দীর্ঘক্ষণ ধরে।একজন একজন করে ভক্তরা ফুল চন্দনে প্রণাম করে যায়। উক্ত নারীটি তখন স্বয়ং কামাখ্যা মা। তাঁর উপর তখন বিশেষ শক্তির আবির্ভাব ঘটে। তিনি ভক্তদের আশীর্বাদ করেন। এর পর কামাখ্যা মার মুল বেদীতে একটি কন্যা শিশুকে বলি দেয়া হতো। এতে নাকি কামাখ্যা মা সন্তুষ্টি লাভ করেন বলে সনাতন হিন্দুত্ববাদীরা। পূজা রত নারীটির উপর তান্ত্রিক শক্তি তথা কাম ও কলা শক্তি, বশীকরণ শক্তি, বান শক্তি, সৌন্দর্য ও মায়া শক্তি, জাদু শক্তি, মোহিত করণ শক্তি, ধ্বংস শক্তি প্রাপ্ত হয়। 

২০১৪ এর মে মাসে এমনি এক পূজায় এক কন্যা শিশুকে বলি দেয়ার উদ্দেশ্যে মাত্র পাঁচশত রূপিতে বিক্রি করে দেয়া হয়েছিল। আসাম রাজ্যের পুলিশ খবর পেয়ে তরিত সংশ্লিষ্ট সকলকে গ্রেপ্তার করে। ঘটনাটি সে সময়ে বেশ আলোচিত হয়েছিল। যাই হোক, বলি দেয়া কন্যা শিশুটির রক্ত সোনা, রুপা ও তামার মিশ্রণে এক ধরণের বাটিতে করে পূজারী নারীটির মাথায় ঢালা হয় এবং সেই রক্ত দিয়ে তাঁর কপালে তিলক ফোঁটা দেয়া হয়। পূজা শেষে নারীটি যে কোন একজন নারী অথবা পুরুষ সৌভাগ্যবান ভক্তকে বেছে নেন এবং মন্দিরের অন্য একটি কক্ষে তাঁর সাথে কাম লিলায় মত্ত হন। এই কাম লীলা দুই ধরণের হয়ে থাকে। এক সমকাম ও দুই বিপরীত লিঙ্গ কাম। নারীটি যখন অন্য সৌভাগ্যবান নারীকে কাম লিলায় আমন্ত্রণ জানান তখন সেটা হয় সমকাম। আর যখন ভিন্ন লিঙ্গের সৌভাগ্যবান পুরুষকে আমন্ত্রণ জানান তখন সেটা হয় বিপরীত লিঙ্গ কাম। এই ঘটনা থেকেই প্রমাণিত হয় সমকামী প্রথার ধারনা নতুন কিছু নয়। মন্দিরের পাথরে খোদাই করা সমকামের কিছু মূর্তিও সেই সাক্ষ্যই দিয়ে থাকে। তখনকার সময়ে সমকাম ছিল একটি স্বাভাবিক ঘটনা। এছাড়াও কামসূত্র গ্রন্থে সমকামিতার বেশ কিছু কাহিনীর বর্ণনা পাওয়া যায়। কথিত আছে কামদেব ও তার স্ত্রী রতী উভয়েই সমকামিতায়ও বিশেষ পারদর্শী ছিলেন। তাই কেউ কেউ বলেন যে, প্রাচীন সভ্যতার পাদপীঠ ভারতবর্ষই হচ্ছে সমকামিতার উৎসস্থল। (সংকলিত) 

© সায়েদুল আরেফিন

পরবর্তী খবর পড়ুন : মোদি চাইলে ২৪ ঘণ্টার মধ্যে গেরুয়া তাণ্ডব বন্ধ করতে পারেন: কামরুজ্জামান


আরও পড়ুন

আশ্রয় ও ত্রাণের খোঁজে বন্যার্তরা

আশ্রয় ও ত্রাণের খোঁজে বন্যার্তরা

বাড়ি-ঘর, সহায়-সম্পদ ছেড়ে নিরাপদ আশ্রয়ের খোঁজে ছুটছেন বন্যার্তরা। অনেকেই পরিবারসহ ...

প্রিয়া সাহার বাসা-অফিসে পাওয়া গেলো না কাউকে

প্রিয়া সাহার বাসা-অফিসে পাওয়া গেলো না কাউকে

নিরাপত্তা বিশ্লেষকরাও বলছেন, এই ধরনের বক্তব্যের পেছনে ব্যক্তিস্বার্থ ও ষড়যন্ত্র ...

গাজীপুরে ছেলেধরা সন্দেহে নারীসহ দুইজনকে গণপিটুনি

গাজীপুরে ছেলেধরা সন্দেহে নারীসহ দুইজনকে গণপিটুনি

গাজীপুরের চান্দিনা চৌরাস্তা ও কালিয়াকৈরের লতিফপুর এলাকা থেকে ছেলেধরা সন্দেহে ...

মিন্নির জামিনঃ বরগুনা যাচ্ছেন শতাধিক আইনজীবী

মিন্নির জামিনঃ বরগুনা যাচ্ছেন শতাধিক আইনজীবী

আজ শনিবার ঢাকা, বরিশাল, পটুয়াখালী, ঝালকাঠি থেকে শতাধিক আইনজীবীর একটি ...

‘পল্লীবন্ধুর আদর্শ ধারণ করে বন্যা দুর্গত মানুষের পাশে থাকব’

‘পল্লীবন্ধুর আদর্শ ধারণ করে বন্যা দুর্গত মানুষের পাশে থাকব’

জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান গোলাম মোহাম্মদ কাদের বলেছেন, দেশের প্রতিটি দুর্যোগে ...

আওয়ামী লীগ জনআতঙ্কে ভুগছে: ফখরুল

আওয়ামী লীগ জনআতঙ্কে ভুগছে: ফখরুল

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, বর্তমান ফ্যাসিবাদী আওয়ামী ...

'প্রিয়া সাহাকে আইনের আওতায় আনা হবে'

'প্রিয়া সাহাকে আইনের আওতায় আনা হবে'

ডোনাল্ড ট্রাম্পের কাছে প্রিয়া সাহার অভিযোগ আন্তর্জাতিক ষড়যন্ত্রের অংশ বলে ...

শ্রীলঙ্কা সিরিজটি চ্যালেঞ্জিং হবে : তামিম

শ্রীলঙ্কা সিরিজটি চ্যালেঞ্জিং হবে : তামিম

আসন্ন শ্রীলঙ্কা সফরে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজটি বেশ চ্যালেঞ্জিং হবে ...