• ভালোবাসা দিবস হোক অন্যায়-অসত্যের বিরুদ্ধে সেতুবন্ধন

    ভালোবাসা দিবস হোক অন্যায়-অসত্যের বিরুদ্ধে সেতুবন্ধন

  • বনবিভাগের মালি  শত কোটি টাকার মালিক!

    বনবিভাগের মালি শত কোটি টাকার মালিক!

  • মন্ত্রিসভায় নতুন মুখ যোগ হওয়ার আলোচনা চলছে

    মন্ত্রিসভায় নতুন মুখ যোগ হওয়ার আলোচনা চলছে

  • যেভাবে পাকিস্তানের অর্থনীতিকে পেছনে ফেলে এগিয়ে চলেছে বাংলাদেশ

    যেভাবে পাকিস্তানের অর্থনীতিকে পেছনে ফেলে এগিয়ে চলেছে বাংলাদেশ

  • 'তবুও আপনি খাবেন না'

    'তবুও আপনি খাবেন না'

তার কাছে প্রশ্ন ছিলো কোন ‘ভায়োলেন্স’ হবে কিনা!

প্রকাশ: ০৬ ডিসেম্বর ২০১৮     আপডেট: ০৬ ডিসেম্বর ২০১৮

মোঃ তৈমুর মল্লিক ভূঁইয়া, উপ-সম্পাদক, বাংলাদেশ প্রেস

বরাবর ভাবে হাটে-মাঠে-ঘাটে উচ্চস্বরে সরকারের প্রতি তর্জনী ওঠাতে অভ্যস্ত নাগরিক ঐক্যের মাহমুদুর রহমান মান্নার নিকট প্রশ্ন ছুটে এলো, "দেশে কোন Violence হবে কি না "। 

তিনি উত্তর দিলেন, "আমাদের পক্ষ থেকে তেমন সম্ভাবনা নেই, তবে সরকার যে  Silent Violation করছে সেটাকে Resist (বাধা) করতে জনগণ যদি ঘুরে দাঁড়ায় তাহলে ...।’ 

চিরকাল মরেছে জনগণ, নেতা পেয়েছে ক্ষমতা। বর্তমান সময়ে রাজনীতি একটি ব্যবসা হিসাবে প্রতিষ্ঠিত হবার সুবাদে নেতাগণ হিংস্রতাকেও হার মানিয়েছে বলা চলে।  

বিদেশিদের নিকট হিংস্রতা নিয়ে যে বক্তব্য মাহমুদুর রহমান মান্না তুলে ধরেছেন, তিনি সেখানে অতিমাত্রায় নিজের ডিফেন্স বজায় রেখেছেন। 

আমার পূর্বের বেশ কয়েকটি লেখায় বারবার উল্লেখ করেছি, এবারের নির্বাচন বানচালের শেষ অস্ত্র হিংস্রতা। নিজেদের পরাজয় ভোটের আগে পরাজয় নিশ্চিত বুঝলেই এর কোন বিকল্প রাস্তা ব্যবহার হবে বলে মনে হয় না।  

যদি এই বিষয়ে সন্দেহ থাকে, তাহলে মুড়ির মতো বিক্রি হওয়া নমিনেশনের অর্থ এবং নমিনেশন পাবার জন্য প্রদেয় অর্থের মজুত এখন কোথায় সেটার খোঁজ করলেই জানা যাবে।

মাহমুদুর রহমান মান্না বিদেশিদের জানিয়ে রাখলেন, যে কোন হিংস্রতার দায় তাদের নয়। জনগণ তার নিজের তাগিদে হিংস্র হয়েছে। 

অথচ তিনি নাকি আন্দোলন জোরদার করতে লাশ চেয়েছিলেন। যদিও তিনি লাশের কথা বলেননি বলেই জানিয়েছিলেন।  

এবারের নির্বাচনে সেই প্রথম দিন থেকে আজ অবধি তার সকল ভাষণ, মতামত, আলাপচারিতা যদি একত্রিত করা হয়, তাহলে তার সারমর্ম যা দাঁড়াবে সেটাকে যে কোন আন্ডারগ্রাউন্ড লিডারের সাথে তুলনীয় বলে অনেকের মতামত। অথচ তিনি একজন দলহীন নেতা, যার দলের তিনি নেতা, তিনি কর্মী। নিববন্ধনহীন একটি দলের সদস্য মাত্র। 

নির্বাচনে কে হারবে আর কে জিতবে সেটা বড় কথা নয়, তবে যদি লাশের উপর দিয়ে ক্ষমতায় যাবার স্বপ্ন কেউ দেখে সেটা কিছুতেই গৃহীত নয়।  

মাহমুদুর রহমান মান্না যে ইঙ্গিত দিয়েছেন, সেই ইঙ্গিত প্রমাণ করে দেয় যে, নমিনেশন বিক্রি এবং নমিনেশন পেতে যে অর্থপ্রাপ্তি ঘটেছে সেই অর্থের প্রায় ৬০ শতাংশ একটি জঙ্গী সংগঠনের পিছনে ব্যয় বা তাদের সাথে চুক্তিবদ্ধ বা তাদের পারিশ্রমিক হিসাবে ব্যবহার করার যে সংবাদ বেরিয়েছে সেই ঘটনা সত্য।  

তবে বাংলাদেশের মাটিতে কোন জঙ্গী তৎপরতা ঘাঁটি গেড়ে বসার নজির নেই। সেটা সম্ভব নয়। আর সেই পরিবেশ যে তৈরি করেছে তার বিরুদ্ধে দ্বিতীয়বার যে কোন চেষ্টা ব্যাহত হবে এটা নিশ্চিতভাবেই বলতে পারি।

সাধারণ মানুষের রক্তের উপর দাঁড়িয়ে ক্ষমতায় যাবার দিন শেষ, এটা তথাকথিত নেতাদের জানা উচিত। কোন মা-বাবা আর তার সন্তানের বিনিময়ে কাউকে ক্ষমতায় বসাতে চায় না।  

বাংলাদেশ থাকবে তার স্বমহিমায়,  এগিয়ে যাবে উন্নয়নের হাত ধরে। এটা অন্তত আমার বিশ্বাস।  

লেখক: কলামিস্ট, সাধারণ সম্পাদক, দুর্জয় বাংলা সাহিত্য ও সামাজিক ফাউন্ডেশন


আরও পড়ুন

দেশে ফিরে আসার শর্তে শিক্ষাবৃত্তি দিচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী

দেশে ফিরে আসার শর্তে শিক্ষাবৃত্তি দিচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী

গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার “প্রধানমন্ত্রী ফেলোশিপ ২০১৯” ঘোষণা করেছে যার আওতায় ...

শিক্ষা ও মেধাকে প্রাধান্য দিয়ে আমাদের এগোতে হবে : মোস্তাফা জব্বার

শিক্ষা ও মেধাকে প্রাধান্য দিয়ে আমাদের এগোতে হবে : মোস্তাফা জব্বার

ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেছেন, অস্ত্র আর ...

নির্বাচনে কারচুপি হলে কেন প্রতিহত করলেন না : বিএনপিকে নাসিম

নির্বাচনে কারচুপি হলে কেন প্রতিহত করলেন না : বিএনপিকে নাসিম

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে চ্যালেঞ্জ করে বিএনপির প্রার্থীদের মামলা প্রসঙ্গে ...

অভিন্ন পদ্ধতিতে হবে শিক্ষক-কর্মচারী নিয়োগ

অভিন্ন পদ্ধতিতে হবে শিক্ষক-কর্মচারী নিয়োগ

বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে সরকারি শিক্ষকের আদলে অভিন্ন পদ্ধতিতে উপাধ্যক্ষ, অধ্যক্ষ ...

‘ভালোবাসা দিবসের ঠিক ৯ মাস পর কেন শিশু দিবস?’

‘ভালোবাসা দিবসের ঠিক ৯ মাস পর কেন শিশু দিবস?’

বিশ্ব ভালোবাসা দিবসের ঠিক ৯ মাস তিন দিন পর কেন ...

সবচেয়ে দ্রুত গতিসম্পন্ন ট্রেন এসে পৌঁছেছে দেশে

সবচেয়ে দ্রুত গতিসম্পন্ন ট্রেন এসে পৌঁছেছে দেশে

দেশের বৃহত্তম রেলওয়ে কারখানা সৈয়দপুরে পৌঁছেছে ইন্দোনেশিয়া থেকে আমদানি করা ...

তিন দিনে ৪ মুসল্লির মৃত্যু বিশ্ব ইজতেমার মাঠে

তিন দিনে ৪ মুসল্লির মৃত্যু বিশ্ব ইজতেমার মাঠে

গেল তিন দিনে চার মুসল্লির মৃত্যু হয়েছে টঙ্গীর তুরাগতীরে বিশ্ব ...

জামায়াত বিলুপ্তির পরামর্শ দিয়ে ব্যারিস্টার রাজ্জাকের পদত্যাগ

জামায়াত বিলুপ্তির পরামর্শ দিয়ে ব্যারিস্টার রাজ্জাকের পদত্যাগ

জামায়াত ইসলামিকে বিলুপ্ত ঘোষণা ও ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধের বিপক্ষে অবস্থান ...