শিল্প ও সাহিত্য

  • কুড়িগ্রামে ‘অপ্রতিরোধ্য অগ্রযাত্রায় বাংলাদেশ’ শীর্ষক উন্নয়ন কনসার্ট অনুষ্ঠিত

    কুড়িগ্রামে ‘অপ্রতিরোধ্য অগ্রযাত্রায় বাংলাদেশ’ শীর্ষক উন্নয়ন কনসার্ট অনুষ্ঠিত

  • ফৌজদারী মামলা তদন্ত বিষয়ক বই-এর মোড়ক উন্মোচন

    ফৌজদারী মামলা তদন্ত বিষয়ক বই-এর মোড়ক উন্মোচন

  • আবুল হাসান সাহিত্য পুরস্কার পেলেন কবি অনুপম মন্ডল

    আবুল হাসান সাহিত্য পুরস্কার পেলেন কবি অনুপম মন্ডল

  • মানিক বৈরাগী'র - সমকালিন চাঁটগাইয়া প্রবচন

    মানিক বৈরাগী'র - সমকালিন চাঁটগাইয়া প্রবচন

  • সারাদেশে কিশোর-কিশোরী ক্লাবের যাত্রা শুরু

    সারাদেশে কিশোর-কিশোরী ক্লাবের যাত্রা শুরু

চিরনিদ্রায় শায়িত হলেন হালিমা খাতুন

প্রকাশ: ০৫ জুলাই ২০১৮

বাংলাদেশ প্রেস

রাষ্ট্রভাষা আন্দোলনে যে কয়জন অসমসাহসী নারী অংশ নিয়েছেন, পুরোভাগে থেকে নেতৃত্ব দিয়েছেন তাদের মধ্যে হালিমা খাতুন ছিলেন অন্যতম। ভাষা আন্দোলনের স্মারক কেন্দ্রীয় শহিদ মিনারে প্রিয়জনের ভালোবাসা আর শ্রদ্ধায় সিক্ত হয়ে মিরপুর শহিদ বুদ্ধিজীবী কবরস্থানে চির নিদ্রায় শায়িত হলেন ভাষা সংগ্রামী ও সাহিত্যিক হালিমা খাতুন। এর আগে বাদ যোহর ঢাকা বিশ^বিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় জামে মসজিদে তার জানাজা অনুষ্ঠিত হয়।


মঙ্গলবার দুপুরে তিনি রাজধানীর একটি হাসপাতালে শেষ নিঃশ^াস ত্যাগ করেন। পরে সেদিন রাতে ধানমন্ডিতে নাতনীর বাসভবনে ফ্রিজিং ভ্যানে রাখা হয় মরদেহ। আর বুধবার সকালে কেন্দ্রীয় শহিদ মিনারে সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের ব্যানারে নাগরিক শ্রদ্ধাঞ্জলী অনুষ্ঠিত হয়। এতে সামাজিক, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্বরা ফুলেল শ্রদ্ধা জানান হালিমা খাতুনকে। শ্রদ্ধা জানায় আওয়ামী লীগ, জেএসডি (নাজমুল হক প্রধান), সংস্কৃতিবিষয়ক মন্ত্রণালয়, বাংলা একাডেমি, জাতীয় জাদুঘর, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, ভাষা আন্দোলন গবেষণা কেন্দ্র ও জাদুঘর, ভাষা আন্দোলন স্মৃতিরক্ষা পরিষদ, উদীচী, খেলাঘর, ছায়ানট, পেশাজীবী নারী সমাজ, লেখিকা সংঘ, মহিলা পরিষদসহ বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও রাজনৈতিক সংগঠন।


শ্রদ্ধাজ্ঞাপন অনুষ্ঠানে পরিবারের পক্ষে হালিমা খাতুনের একমাত্র সন্তান প্রজ্ঞা লাবনী বলেন, ভাষা আন্দোলনের স্মৃতির পথ ধরে থেকে যাবেন হালিমা খাতুন। তার নাম উচ্চারিত হবে পরবর্তী প্রজন্মের কণ্ঠে। তিনি সরকারের কাছে দাবি জানান, তার মায়ের লেখা যেন শিশুদের পাঠ্য তালিকায় যুক্ত করা হয়।


বায়ান্নর একুশে ফেব্রুয়ারি নারীদের মিছিলের নেতৃত্বদানকারী হালিমা খাতুনকে শ্রদ্ধা জানাতে এসে তার সহযোদ্ধা ভাষা সংগ্রামী রওশন আরা বাচ্চু বলেন, ‘হালিমা চলে গেল।  কিন্তু ওর স্মৃতিগুলো তো রক্ষা করা যায় নানাভাবে। আমরা থাকব না একদিন। আমাদের কথা জানাতে হবে পরের প্রজন্মকে।’


হালিমা খাতুনকে নিজের বড় বোন হিসেবে মান্য করেন জানিয়ে জাতীয় অধ্যাপক আনিসুজ্জামান বলেন, তিনি আমাকে অনুজের মতো স্নেহ করতেন। বিশ্ববিদ্যালয়ে তিনি আমার কয়েক ক্লাস উপরে পড়তেন। কিন্তু আমরা একইসঙ্গে সাংস্কৃতিক আন্দোলন করেছি। দীর্ঘ ৬৫ বছরের এই সম্পর্ক আজ শেষ হল।


জীবিত হালিমা খাতুনের খোঁজ না নেওয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করে ভাষা সংগ্রামী কামাল লোহানী বলেন, দীর্ঘকাল অসুস্থ থাকার পরও সরকার বা সামাজিক কোনো সংগঠন হালিমা খাতুনের শারীরিক অবস্থার কোনো খোঁজ করেনি। দুঃসাহসী এই মহিলা একাধারে একজন সাহিত্যিক, রাজনীতি ও সমাজ সচেতন মানুষ ছিলেন। প্রগতিশীল ধারায় বিশ্বাস করতেন। তার মতো মানুষের খোঁজ না নেওয়া রাষ্ট্রের ব্যর্থতা। তার মৃত্যুতে ইতিহাস ও ঐতিহ্যের একটি ধারা নির্বাসিত হয়ে গেল।


ভাষা আন্দোলন ও সাহিত্যে অবদান রাখার জন্য হালিমা খাতুন রাষ্ট্রীয় কোন পদক না পাওয়ায় হতাশা ব্যক্ত করে সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব নাসিরউদ্দীন ইউসুফ বলেন, তার মতো নিভৃতচারী মানুষরা কখনো পাদপ্রদীপের আলোয় আসতে চান না। তার নিভৃতে মানুষের জন্য কাজ করতে ভালোবাসেন। তিনি দেশের উদ্দেশ্যে যা বলতে চেয়েছিলেন, তা তার লেখনীর মাধ্যমে জাতিকে বলে গেছেন।


প্রাবন্ধিক মফিদুল হক বলেন, হালিমা খাতুন আজীবন মুক্তির সাধনা করে গেছেন। তিনি মননের উত্তরণে যে আদর্শ রেখে গেছেন, তার বিনাশ হবে না কখনও।  চির উজ্জ্বল এই আদর্শ আমাদের পথ দেখাবে আগামীতে।




আরও পড়ুন

সিনহা’র বইয়ের লেখক কে কে?

সিনহা’র বইয়ের লেখক কে কে?

সাবেক প্রধান বিচারপতি এস এক সিনহা’র নামে সরকারের বিরুদ্ধে বই ...

ফ্ল্যাট কিনতে ৭৫ লাখ টাকা পর্যন্ত ঋণ পাচ্ছেন সরকারি কর্মচারীরা

ফ্ল্যাট কিনতে ৭৫ লাখ টাকা পর্যন্ত ঋণ পাচ্ছেন সরকারি কর্মচারীরা

বাড়ি তৈরি বা ফ্ল্যাট কিনতে ৭৫ লাখ টাকা পর্যন্ত ঋণ ...

এবার সৌদির সরকারি টিভিতে খবর পড়লেন এক নারী

এবার সৌদির সরকারি টিভিতে খবর পড়লেন এক নারী

সৌদি আরবের সরকারি টেলিভিশন চ্যানেলে সন্ধ্যার নিউজ বুলেটিন পড়ে ইতিহাসে ...

পরমাণু সমঝোতা বাস্তবায়নের দৃঢ় প্রত্যয় জানাল পাঁচ জাতিগোষ্ঠী

পরমাণু সমঝোতা বাস্তবায়নের দৃঢ় প্রত্যয় জানাল পাঁচ জাতিগোষ্ঠী

ইরানের পরমাণু সমঝোতা বাস্তবায়ন এবং দেশটির বিরুদ্ধে আরোপিত নিষেধাজ্ঞার প্রভাব ...

'অবাধ ও সুষ্ঠু’ করতে ক্ষমতাসীন সরকার কাজ করে যাচ্ছে'

'অবাধ ও সুষ্ঠু’ করতে ক্ষমতাসীন সরকার কাজ করে যাচ্ছে'

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন যাতে ‘অংশগ্রহণমূলক, অবাধ ও সুষ্ঠু’ করতে ...

মিরসরাইতে ট্রাক চাপায় চার সিএনজি অটোরিক্সা চালক সহ নিহত ৫

মিরসরাইতে ট্রাক চাপায় চার সিএনজি অটোরিক্সা চালক সহ নিহত ৫

ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে চট্টগ্রামের মিরসরাই উপজেলার ঠাকুরদীঘি বাজার এলাকায় চাকা পাংচার ...

'নেলসন ম্যান্ডেলার স্বপ্ন বাঁচিয়ে রাখার জন্য সবাইকে কাজ করার বিকল্প নেই'

'নেলসন ম্যান্ডেলার স্বপ্ন বাঁচিয়ে রাখার জন্য সবাইকে কাজ করার বিকল্প নেই'

বিশ্ব সম্প্রদায়ের প্রতি শান্তিপূর্ণ উপায়ে আন্তর্জাতিক সংকট নিরসনের আহ্বান জানালেন ...

বড়পুকুরিয়া তাপবিদ্যুৎকেন্দ্রে ৩য় ইউনিটে স্থানীয় শ্রমিক নিয়োগের দাবিতে কর্মসূচি

বড়পুকুরিয়া তাপবিদ্যুৎকেন্দ্রে ৩য় ইউনিটে স্থানীয় শ্রমিক নিয়োগের দাবিতে কর্মসূচি

দিনাজপুরের পার্বতীপুরে বড়পুকুরিয়া তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রের ৩য় ইউনিটে স্থানীয়দের নিয়োগের দাবীতে ...