আন্তর্জাতিক

  • সিরিয়ায় মাটির নিচের বাংকারে নেয়া হচ্ছে পরীক্ষা

    সিরিয়ায় মাটির নিচের বাংকারে নেয়া হচ্ছে পরীক্ষা

  • থাইল্যান্ডে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৬

    থাইল্যান্ডে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৬

  • নেপালে এবার রানওয়ে থেকে ছিটকে পড়ল মালয়েশীয় বিমান

    নেপালে এবার রানওয়ে থেকে ছিটকে পড়ল মালয়েশীয় বিমান

  • কিউবার নতুন প্রেসিডেন্ট দিয়াস-কানেলের শপথ গ্রহণ

    কিউবার নতুন প্রেসিডেন্ট দিয়াস-কানেলের শপথ গ্রহণ

  • শান্তিরক্ষা মিশনে নিহত পাঁচ বাংলাদেশিসহ কর্মীদের স্মরণ করল জাতিসংঘ

    শান্তিরক্ষা মিশনে নিহত পাঁচ বাংলাদেশিসহ কর্মীদের স্মরণ করল জাতিসংঘ

মার্ক জাকারবার্গ স্বীকার করেছেন ,রোহিঙ্গা নিধনে ফেসবুকের অপব্যবহার

প্রকাশ: ১৬ এপ্রিল ২০১৮

বাংলাদেশ প্রেস

মিয়ানমারে জাতিগত নিধনে ফেসবুকের ব্যবহৃত হওয়ার অভিযোগ স্বীকার করেছেন প্রতিষ্ঠানের উদ্যোক্তা ও প্রধান নির্বাহী মার্ক জাকারবার্গ। মার্কিন সংবাদমাধ্যম ভক্সকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি স্বীকার করেছেন, খবরের নামে গুজব ছড়ানোর মধ্য দিয়ে মুসলিম ও রোহিঙ্গাবিদ্বেষী মনোভাবে উসকানি ও প্রণোদনা জোগানোর কাজে ফেসবুককে ব্যবহার করা হয়েছে। জাকারবার্গ স্বীকার করেছেন, ‘ভুয়া খবরগুলো’কে রাজনৈতিক ফায়দা হাসিলের উপায় হিসেবে ব্যবহার করা হয়েছে।


মিয়ানমারে রোহিঙ্গা নিধন অভিযান জোরালো করতে সমরাস্ত্রের পাশাপাশি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকের ভয়ানক ব্যবহার হয়েছে বলে জানিয়েছে জাতিসংঘও। রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে বিদ্বেষ ছড়াতে সেনাবাহিনীর পাশাপাশি উগ্র বৌদ্বধর্মাবলম্বীরা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুককে বেছে নিয়েছিলেন বলে জাতিসংঘের তদন্তকারী দল জানিয়েছে। জাতিসংঘের ‘ফ্যাক্ট-ফাইন্ডিং মিশন অন মিয়ানমার’ সোমবার তাদের তদন্তের অন্তর্বর্তীকালীন প্রতিবেদন প্রকাশ করে। এক সংবাদ সম্মেলনে মিশনের চেয়ারম্যান মারজুকি দারুসম্যান বলেন, বিস্তৃত পরিসরে মানুষের মাঝে রোহিঙ্গা মুসলমানদের বিরুদ্ধে তিক্ত মনোভাব তৈরিতে ফেসবুক ভয়াবহ প্রভাব রেখেছে। শুধু উস্কানিমূলক বক্তব্যই নয়,বরং রোহিঙ্গাদের অত্যাচার-নির্যাতনের দিক নির্দেশনাও ছিল ফেসবুক পোস্টগুলোতে।


মারজুকি দারুসম্যান আরও বলেন ‘মিয়ানমার পরিস্থিতি যতটা উদ্বেগজনক, তার পেছনে অন্যতম কারণ হিসেবে কাজ করেছে ফেসবুক। সেখানে সামাজিক মাধ্যম মানেই ফেসবুক আর ফেসবুকই সামাজিক মাধ্যম।’


মিয়ানমারে মানবাধিকার পরিস্থিতি নিয়ে জাতিসংঘের বিশেষ দূত ইয়াংহি লি বলেন, “আমরা জানি ফ্যাসিস্ট বৌদ্ধদের নিজস্ব ফেইসবুক পেজ রয়েছে,তারা এটা ব্যবহার করে সত্যিই রোহিঙ্গা বা অন্যান্য সংখ্যালঘু জাতিগুলোর বিরুদ্ধে প্রচুর সহিংসতা ও ঘৃণা ছড়াচ্ছে’।


উল্লেখ্য,গত বছরের ২৫ আগস্ট রাখাইনের কয়েকটি নিরাপত্তা চৌকিতে হামলার পর পূর্ব-পরিকল্পিত ও কাঠামোবদ্ধ সহিংসতা জোরালো করে মিয়ানমারের সেনাবাহিনী। তবে সেনাবাহিনীর তাণ্ডব শুরু হয়েছিল ২৫ আগস্ট নিরাপত্তা চেকপোস্টে হামলার অন্তত ৩ সপ্তাহ আগে থেকে। আর তারও আগে শুরু হয়েছিল গ্রামে গ্রামে সেনা প্রচারণা। অ্যামনেস্টির সাম্প্রতিক এক প্রতিবেদনেও ‘রোহিঙ্গা নিধনযজ্ঞের সামরিক প্রচারণা’কে সেখানকার সংকটের জন্য দায়ী করা হয়েছে। রাখাইনে রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর ওপর সম্ভাব্য গণহত্যা তদন্তে নিয়োজিত সংস্থাটির মানবাধিকার বিশেষজ্ঞরা বলেছেন, বিদ্বেষী প্রচারণায় ফেসবুক ভয়াবহ ভূমিকা রেখেছে।


দেশটিতে যেভাবে ফেসবুককে ব্যবহার করা হয়েছে, তাতে ফেসবুক নিজেই একটা জ্যান্ত দানব হয়ে উঠেছে। যেহেতু দেশটিতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম বলতে কেবল ফেসবুক, তাই সহিংসতা উসকে দিতে ফেসবুকেরই ভয়াবহ ব্যবহার হয়েছে বলে মনে করেন জাতিসংঘের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।


ফলশ্রুতিতে,মায়ানমারের বৌদ্ধ জনগোষ্ঠীর মধ্যে তৈরি হয়েছে রোহিঙ্গা বিদ্বেষ এবং অনেকেই আরাকান রাজ্যের এই সংখ্যালঘু মুসলিম মানুষদের দেখতে শুরু করেছে ঘৃণার চোখে। অবশ্যম্ভাবী ফলাফল হিসেবে,মায়ানমারের অনলাইন জগতে রোহিঙ্গাবিদ্বেষী মনোভাব প্রকাশ, উসকানি, সহিংসতা এবং ঘৃণা প্রচারণা অনেকটা উৎসবে পরিণত হয়। চূড়ান্ত পরিণতিতে, অত্যন্ত সুপরিকল্পিত জাতিগত নিধনের শিকার হওয়া রোহিঙ্গাদের মধ্যে, ১২ এপ্রিল ২০১৮ পর্যন্ত শুধুমাত্র বাংলাদেশেই আশ্রয়প্রার্থী নিবন্ধিত রোহিঙ্গার সংখ্যা ১১,০২,৬৩২ জন; জাতিগত নিধন, হত্যা, ধর্ষণ, নারী ও শিশুদের প্রতি সহিংসতা শিকার হওয়া দুর্ভাগাদের প্রকৃত সংখ্যা হয়ত কোনদিনও জানা যাবে না।


সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম যেখানে সম্প্রীতির সেতু হওয়ার কথা সেখানে উগ্রবাদী কিছু মানুষের কারণে তা অশান্তির বিষবাষ্প ছড়িয়ে দিয়েছিল। আমাদের সবার সচেতন এবং আন্তরিক প্রচেষ্টাই পারে সুশৃঙ্খল এবং সুন্দর সমাজ বিনির্মাণে।

আরও পড়ুন

ইউপিডিএফ এর হুমকিতে উদ্বাস্তু ৩৮ পরিবার, প্রশাসনের ত্রাণ বিতরণ

ইউপিডিএফ এর হুমকিতে উদ্বাস্তু ৩৮ পরিবার, প্রশাসনের ত্রাণ বিতরণ

ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট (ইউপিডিএফ প্রসীত গ্রুপ) এর নির্যাতন ও ...

মোংলা বন্দরে অবস্থানরত বিদেশী জাহাজে বিশুদ্ধ খাবার পানি সরবরাহে চরম সংকট

মোংলা বন্দরে অবস্থানরত বিদেশী জাহাজে বিশুদ্ধ খাবার পানি সরবরাহে চরম সংকট

মোংলা বন্দরে অবস্থানরত বিদেশী বাণিজ্যিক জাহাজে বিশুদ্ধ খাবার পানি সরবরাহে ...

থাইল্যান্ডে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৬

থাইল্যান্ডে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৬

থাইল্যান্ডের পূর্বাঞ্চলীয় সা কায়ো প্রদেশে একটি পিক-আপ ট্রাক রাস্তার পাশে ...

খালেদা জিয়ার হাঁটু ও পায়ের ব্যথা বেড়েছে : রিজভী

খালেদা জিয়ার হাঁটু ও পায়ের ব্যথা বেড়েছে : রিজভী

'কারাগারে খালেদা জিয়ার হাঁটু ও পায়ের ব্যথা আরও বেড়ে গেছে। ...

'ফেসবুকে অপতথ্য প্রচার করায় ৩ ছাত্রীকে অভিভাবকদের হাতে দেয়া হয়'

'ফেসবুকে অপতথ্য প্রচার করায় ৩ ছাত্রীকে অভিভাবকদের হাতে দেয়া হয়'

ফেসবুকে অপতথ্য প্রচার করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়কে (ঢাবি) অস্থিতিশীল করার চেষ্টা ...

নেপালে এবার রানওয়ে থেকে ছিটকে পড়ল মালয়েশীয় বিমান

নেপালে এবার রানওয়ে থেকে ছিটকে পড়ল মালয়েশীয় বিমান

নেপালের রাজধানী কাঠমান্ডুর ত্রিভুবন আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে এবার ছিটকে পড়লো মালয়েশিয়ার ...

'গভীর রাতে ছাত্রীদের হল থেকে বের করে দেওয়া ন্যাক্কারজনক'

'গভীর রাতে ছাত্রীদের হল থেকে বের করে দেওয়া ন্যাক্কারজনক'

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) ছাত্রীদেরকে গভীর রাতে হল থেকে বের করে ...

কিউবার নতুন প্রেসিডেন্ট দিয়াস-কানেলের শপথ গ্রহণ

কিউবার নতুন প্রেসিডেন্ট দিয়াস-কানেলের শপথ গ্রহণ

কিউবার নতুন প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ নিয়েছেন মিগেল দিয়াস-কানেল। রাউল ক্যাস্ত্রোর ...