আন্তর্জাতিক

  • সোমালিয়ার শ্রম মন্ত্রণালয়ে হামলা, উপ-শ্রমমন্ত্রীসহ নিহত ১৫

    সোমালিয়ার শ্রম মন্ত্রণালয়ে হামলা, উপ-শ্রমমন্ত্রীসহ নিহত ১৫

  • বাংলায় এসে মমতাকেই কড়া আক্রমণ রাহুলের, তৃণমূলকে ক্ষমতাচ্যুত করার ডাক

    বাংলায় এসে মমতাকেই কড়া আক্রমণ রাহুলের, তৃণমূলকে ক্ষমতাচ্যুত করার ডাক

  • বাঘুসের পতন দিয়ে আইএসের 'খিলাফতের' অবসান

    বাঘুসের পতন দিয়ে আইএসের 'খিলাফতের' অবসান

  • টাইগ্ৰিস নদীতে নৌকা ডুবে মৃত প্রায় শতাধিক, শোক ইরানে

    টাইগ্ৰিস নদীতে নৌকা ডুবে মৃত প্রায় শতাধিক, শোক ইরানে

  • চীনের বিরুদ্ধে ‘সম্ভাব্য’ যুদ্ধ মহড়া চালালো মার্কিন কমান্ডোরা

    চীনের বিরুদ্ধে ‘সম্ভাব্য’ যুদ্ধ মহড়া চালালো মার্কিন কমান্ডোরা

মিয়ানমারে রোহিঙ্গা নিধন এখনো চলছে: জাতিসংঘ কর্মকর্তা

প্রকাশ: ০৭ মার্চ ২০১৮     আপডেট: ০৭ মার্চ ২০১৮

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে রোহিঙ্গা মুসলিমদের ওপর জাতিগত নিধনযজ্ঞ এখনও চলছে বলে অভিযোগ করেছেন জাতিসংঘের এক ঊর্ধ্বতন মানবাধিকার কর্মকর্তা।

মঙ্গলবার জাতিসংঘের মানবাধিকার বিষয়ক সহকারী মহাসচিব অ্যান্ড্রু গিলমুর বলেন, ছয় মাস আগে রাখাইনে সেনাবাহিনীর দমনাভিযানের মুখে দলে দলে রোহিঙ্গারা গ্রামছাড়া হওয়ার পর আজও সেই ভয়াবহতায় ছেদ পড়েনি। রোহিঙ্গাদের অনাহারে রেখে মারা হচ্ছে।


কক্সবাজারের বিভিন্ন রোহিঙ্গা শরণার্থী শিবিরে টানা চার দিনের পরিদর্শন শেষে তিনি একথা বলেন।


এক বিবৃতিতে গিলমুর বলেন, ''রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে মিয়ানমার এখনও জাতিগত নিধন ও সহিংসতা চালিয়ে যাচ্ছে। আমি নিজের চোখে যা দেখেছি এবং শরণার্থী শিবিরে আশ্রিতদের মুখ থেকে যা শুনেছি, তারপর আমার মনে হয় না যে একথা বলা ছাড়া আর কিছু বলার আছে।”


শরণার্থী শিবিরগুলোতে মিয়ানমার থেকে সদ্য পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের সঙ্গে কথা বলার পর গিলমুর বলেন, “শুধু নির্যাতনের ধরন পাল্টেছে। গত বছর রাখাইনে উন্মত্ত রক্তপাত, হত্যা ও ধর্ষণযজ্ঞ চলেছিল। আর এখন সেখানে রয়ে যাওয়া রোহিঙ্গাদের জোর করে অনাহারে রেখে, ভয়ভীতি দেখিয়ে ও ত্রাস সৃষ্টি করে মিয়ানমার তাদেরকে বাংলাদেশে পালাতে বাধ্য করার ফন্দি এঁটেছে বলেই মনে হচ্ছে।”


বাংলাদেশের সঙ্গে গত বছর নভেম্বরের একটি চুক্তি অনুযায়ী মিয়ানমার রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নিতে প্রস্তুত বলে আসলেও রাখাইনের বর্তমান পরিস্থিতিতে তাদের খুব শিগগিরই নিরাপদে, সম্মানের সঙ্গে এবং স্থায়ীভাবে সেখানে প্রত্যাবাসন ‘অসম্ভব’ বলেই মনে করেন জাতিসংঘের এ মানবাধিকার কর্মকর্তা।


তিনি বলেন, “মিয়ানমার সরকার খুব করিৎকর্মা হয়ে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে পালিয়ে যাওয়া রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নিতে প্রস্তুত বলে জানাচ্ছে। অথচ,  তাদের সেনারা এখনো ঠিকই রোহিঙ্গাদের বাংলাদেশে পালাতে বাধ্য করে যাচ্ছে।”


মিয়ানমারে গত বছর ২৫ অগাস্ট সীমান্তের ৩০টি পুলিশ পোস্ট ও একটি সেনা ঘাঁটিতে সন্ত্রাসী হামলার পর রাখাইনের রোহিঙ্গা গ্রামগুলোতে সেনা অভিযান শুরু হয়।


মিয়ানমার সরকার একে ‘সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে অভিযান’ বললেও জাতিসংঘ এবং পশ্চিমা দেশগুলো একে ‘জাতিগত নির্মূল’ অভিযান বলে আসছে।


এ অভিযান শুরুর পর গত ছয় মাসে প্রায় সাত লাখ রোহিঙ্গা পালিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে। তাদের কেউ কেউ গুলিবিদ্ধ অবস্থায় বা পোড়া ক্ষত শরীরে বয়ে নিয়ে এসেছে।  কক্সবাজারে আশ্রয় নেওয়া এসব রোহিঙ্গার ভাষ্যে মিয়ানমার সেনাবাহিনীর ব্যাপক নির্যাতন-নিপীড়নের চিত্র উঠে আসে।


মিয়ানমারের সেনা এবং স্থানীয় বৌদ্ধরা সেখানে গণহত্যা, ধর্ষণ, লুটপাট চালানোসহ বাড়িঘরে আগুন ধরিয়ে দিয়েছে। যা নিয়ে অং সান সু চি নেতৃত্বাধীন মিনায়মার সরকারকে তীব্র সমালোচনার মুখে পড়তে হয়েছে।

পরবর্তী খবর পড়ুন : ৭ মার্চের ভাষণ নিষিদ্ধকারীরা ইতিহাসের আস্তাকুড়ে নিক্ষিপ্ত হয়েছে: কাদের


আরও পড়ুন

প্রকল্প বাস্তবায়ন শেষে সরকারি গাড়ি ও সরঞ্জাম যায় কোথায়?

প্রকল্প বাস্তবায়ন শেষে সরকারি গাড়ি ও সরঞ্জাম যায় কোথায়?

সরকারি যে কোনও প্রকল্প শেষে ওই প্রকল্পের কাজে ব্যবহৃত কম্পিউটার, ...

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, সড়কে মৃত্যু এবং অন্যান্য ঝুঁকির দিক পরিবর্তন করছে!

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, সড়কে মৃত্যু এবং অন্যান্য ঝুঁকির দিক পরিবর্তন করছে!

সড়ক দুর্ঘটনা বাংলাদেশের জন্য একটি বিষফোঁড়া হিসাবে চিহ্নিত ছিলো এতোদিন। ...

লালবাগে কাগজের গুদামে ভয়াবহ আগুন

লালবাগে কাগজের গুদামে ভয়াবহ আগুন

রাজধানীর পুরান ঢাকার শহীদ নগর এলাকার ৬ নাম্বার গলিতে আগুন ...

'৭১-এর ২৩ মার্চ : ফিরে দেখা

'৭১-এর ২৩ মার্চ : ফিরে দেখা

এটা ছিল আমাদের জীবনের এক স্মরণীয় দিন, রাজনীতির বিবেচনায় ঐতিহাসিক। ...

বাংলাদেশে সড়ক নিরাপদ করতে কমিটির শতাধিক সুপারিশ

বাংলাদেশে সড়ক নিরাপদ করতে কমিটির শতাধিক সুপারিশ

বাংলাদেশে সড়কপথে বিশৃঙ্খলা বা নৈরাজ্য বন্ধের জন্য সুপারিশ আর প্রতিশ্রুতির ...

জয়পুরহাটে জামাতার লাঠির আঘাতে শাশুড়ির মৃত্যু!

জয়পুরহাটে জামাতার লাঠির আঘাতে শাশুড়ির মৃত্যু!

জয়পুরহাট সদর উপজেলার পশ্চিম পারুলিয়া গ্রামে মেয়ে জামাইয়ের লাঠির আঘাতে ...

সড়কে শৃঙ্খলা ফেরাতে ১৪ দফা দাবি দিলো গণফোরাম

সড়কে শৃঙ্খলা ফেরাতে ১৪ দফা দাবি দিলো গণফোরাম

বাংলাদেশের সড়কে নিরাপত্তা ও শৃঙ্খলা ফেরাতে ১৪ দফা দাবি জানিয়েছে ...

যে কারণে জি এম কাদেরকে সরালেন এরশাদ

যে কারণে জি এম কাদেরকে সরালেন এরশাদ

গত ২০ মার্চ ছিল জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান ও সাবেক রাষ্ট্রপতি ...