শিরোনাম:

Thu 07 December 2017 - 11:20pm

কেউ বাংলার উন্নয়নের ধারা ব্যাহত করতে পারবেনা

Published by: নিউজ রুম এডিটর, বাংলাদেশ প্রেস

8446ac24d3bc88ef13a50e2d7af56e3f.jpg

বাংলাদেশ প্রেস: সিরাজগঞ্জে  স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশারফ হোসেন বলেছেন- বিএনপি জনগণের কাছে ভোট চাওয়ার নৈতিক অধিকার হারিয়ে ফেলেছে। বন্দুকের নল দিয়ে ক্ষমতা দখল করে  যারা গণতন্ত্র হরণ করেছিল তারাই এখন গণতন্ত্রের জন্য মায়া কান্না করছে। বিএনপি আমলে দেশ ৫বার দুর্নীতিতে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে। আন্দোলনের নামে জামায়াতকে সাথে নিয়ে আগুন সন্ত্রাস করে নিরীহ মানুষকে নির্মমভাবে হত্যা করেছে। জনগণ আর কখনও তাদের ক্ষমতায় দেখতে চায় না। 

এ সময় তিনি দলের নেতাকর্মীদের উদ্দেশে বলেন, দলের মধ্য ভেদাভেদ ভুলে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে। দলকে ক্ষমতায় নিয়ে আসতে হবে। তা না হলে লক্ষ লক্ষ নেতাকর্মীর প্রাণ চলে যাবে। বৃহস্পতিবার বিকেলে বাজার স্টেশন চত্বর মুক্তির সোপানে জেলা আওয়ামীলীগ আয়োজিত বিশাল জনসভায় প্রধান অতিথি  এসব কথা বলেন।  তিনি আরও বলেন, দেশের বর্তমান মাথা পিছু আয় ১৬শ’ ১০ ডলার। এমন অর্জন শেখ হাসিনা ছাড়া কারও দ্বারা সম্ভব নয়। ২০২১ সালের উন্নয়নের যে লক্ষমাত্রা ছিল তা আমরা ২০২০সালের মধ্যেই অর্জন করতে সক্ষম হবে। কেউ বাংলার উন্নয়নের ধারা ব্যাহত করতে পারবেনা। 

অনুষ্ঠানের প্রধান বক্তা আওয়ামীলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য এবং স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যান মন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন, আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন, বাঙ্গালী জাতির অস্তিত্ব রক্ষার নির্বাচন।

 বিএনপি তাদের দোসর জামাতকে নিয়ে আবারও মাঠে নামছে নির্বাচন ভন্ডুল করার জন্য। মুক্তিযোদ্ধা ও জনতাকে সতর্ক থাকতে হবে, ওরা ক্ষমতায় গেলে জাতীয় অস্তিত্ব বিপন্ন হবে। আবারও ২১ আগষ্টের ভয়াবহ হত্যাযজ্ঞের পুনরাবৃত্তি ঘটবে। তিনি আরও বলেন, শেখ হাসিনার অধিনেই আগামীতে জাতীয় সংসদ নির্বাচন হবে। শেখ হাসিনা যে আসনে  যাকেই মনোনয়ন দেবেন তাকেই নির্বাচিত করতে হবে। আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন হবে নৌকা ও শেখ হাসিনার বিজয়ের নির্বাচন।

তত্বাবধায়ক সরকার মারা গেছে উল্লেখ করে তিনি আরও বলেন, নিশ্চিত পরাজয় জেনে বিএনপি তত্বাবধায়ক সরকারের কথা বলছে। যে কোন মূল্যে এ চক্রান্ত প্রতিহত করতে হবে। বিএনপি ক্ষমতায় আসলে আবারও লাল সবুজের পতাকা সেই স্বাধীনতা বিরোধীদের গাড়িতে উড়বে। মন্ত্রী বিএনপির উদ্দেশে বলেন, ন্যায় বিচারের কথা বলেন? কিসের ন্যায় বিচার? আপনারা ক্ষমতায় এসে জাতির জনকের হত্যার বিচার করেননি, যুদ্ধাপরাধীদের বিচার করেননি। শেখ হাসিনাই বিচার করেছেন। আন্দোলনের ভয় দেখাবেন না, খেলা হবে মাঠে। নির্বাচনের প্রস্তুতি নেন নইলে আমও যাবে, ছালাও যাবে।

জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও সাবেক মন্ত্রী আব্দুল লতিফ বিশ্বাসের সভাপতিত্বে জেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ডা. হাবিবে মিল্লাত মুন্না এমপি’র পরিচালনায় আরও বক্তব্য রাখেন- গাজী ম.ম. আমজাদ হোসেন মিলন এমপি, তানভীর ইমাম এমপি, হাসিবুর রহমান স্বপন এমপি, সেলিনা বেগম স্বপ্না এমপি, জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি, আবু ইউসুফ সূর্য্য, কেএম হোসেন আলী হাসান, বিমল কুমার দাস, মোস্তফা কামাল খান, হাজী ইসহাক আলী ও সদর উপজেলা চেয়ারম্যান রিয়াজ উদ্দিন।  এর আগে সকালে সিরাজগঞ্জের কামারখন্দ উপজেলা পরিষদ চত্ত্বরে আওয়ামীলীগ আয়োজিত এক জনসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেন।

Facebook

মন্ত্যব্য করুন