শিরোনাম:

Thu 30 November 2017 - 08:15pm

সৌদি আরবে ফেঁসে গেলেন বেগম খালেদা জিয়া ,৫০০ কোটি টাকা জব্দ

Published by: নিউজ রুম এডিটর, বাংলাদেশ প্রেস

c4fa93e26331c9a5823e6d55eb958a29.jpg

সৌদি আরবে ফেঁসে গেলেন বেগম খালেদা জিয়া। বৃহস্পতিবার সৌদি দুর্নীতি দমন কমিশন বেগম জিয়ার পাঁচটি ব্যাংক অ্যাকাউন্ট জব্দ করেছে। একইসঙ্গে তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদ করার জন্য নোটিশ দেওয়া হয়েছে। শুধু বেগম জিয়া নয় তারেক জিয়ারও দুটি ব্যাংক অ্যাকাউন্ট জব্দ করেছে সৌদি দুর্নীতি দমন কমিশন।

সৌদি আরব সরকার বলেছে, চলমান দুর্নীতি বিরোধী অভিযানের অংশ হিসেবেই এই উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। সৌদি ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমান এই দুর্নীতি বিরোধী অভিযানে নেতৃত্ব দিচ্ছেন। ৪ নভেম্বর থেকে শুরু হওয়া দুর্নীতি বিরোধী অভিযানে এ পর্যন্ত ১১জন যুবরাজ সহ ২০১ জনকে আটক করেছে সৌদি সরকার। এক হাজার ৭০০ ব্যাংক অ্যাকাউন্ট জব্দ করা হয়েছে। আটকদের জিজ্ঞাসাবাদে তাঁরা বলেছেন যে, টাকা তাঁদের নয়। বিদেশ থেকে আসা অবৈধ সম্পদ তাঁদের কাছে আমানত হিসেবে রাখা হয়েছে। এদের মধ্যে অন্তত ৩ জন বেগম জিয়া ও তাঁর পরিবারের অবৈধ টাকা বিনিয়োগ করেছেন বলে জানিয়েছিলেন। তাঁদের এই বক্তব্যের ভিত্তিতে সৌদি সরকার জব্দকৃত ব্যাংকগুলোর নথিপত্র তদন্ত করে অনেকের সঙ্গে বেগম জিয়া ও তার পুত্রের নাম পান। আটক সৌদি যুবরাজ প্রিন্স আল-ওয়াহিদ বিন তালালের মোট ৮১টি ব্যাংক অ্যাকাউন্টের মধ্যে ৫টিতে বেগম জিয়ার সংশ্লিষ্টতা পাওয়া গেছে। প্রাপ্ত তথ্যে দেখা যায়, দ্য সৌদি ব্রিটিশ ব্যাংকে তালালের একটি অ্যাকাউন্টের বেনিফিশিয়ারি হলেন বেগম খালেদা জিয়া। ওই ব্যাংকের হিসাব পর্যালোচনায় দেখা যায়, ওই অ্যাকাউন্ট থেকে ২০০৯ থেকে এ পর্যন্ত মোট দুই কোটি রিয়াল বেগম খালেদা জিয়াকে দেওয়া হয়েছে।

সৌদি ইনভেস্টমেন্ট ব্যাংকে তালালের অ্যাকাউন্টে এ লিখিত নির্দেশনা আছে যে, প্রতিবছর তিন কোটি রিয়াল বেগম খালেদা জিয়ার কাঙ্ক্ষিত ব্যাংক অ্যাকাউন্টে যাবে। রিয়াদ ব্যাংকেও পেট্রো কেমিকেল ব্যবসায়ী ইয়াহিয়া লতিফের অ্যাকাউন্ট থেকে এ পর্যন্ত মোট নয় কোটি রিয়াল বেগম জিয়ার নামে হস্তান্তর করা হয়েছে। আরব ন্যাশনাল ব্যাংকে বেগম খালেদা রহমান নামে একটি ব্যাংক অ্যাকাউন্ট রয়েছে। এই ব্যাংক অ্যাকাউন্টটিও বেগম জিয়ার বলে সন্দেহ করা হচ্ছে। এ কারণে ব্যাংকটির হিসাবও বৃহস্পতিবার জব্দ করা হয়েছে। যুবরাজ তালালের তিনটি, ইয়াহিয়া লতিফের একটি এবং খালেদা রহমানের একটি এই পাঁচটি অ্যাকাউন্টের যাবতীয় টাকাই বেগম জিয়ার টাকা বলে ধারণা করা হচ্ছে। এই পাঁচটি অ্যাকাউন্টে মোট জমাকৃত টাকার পরিমাণ ১৭ কোটি রিয়াল। বাংলাদেশি টাকায় ৩৭৫ কোটি টাকা। অন্যদিকে তারেক জিয়ার নামে সৌদি ব্রিটিশ ব্যাংকে জমা রয়েছে সাত কোটি রিয়াল অর্থাৎ ১৫৪ কোটি টাকা। তারেক জিয়া এই টাকা লন্ডন থেকে উত্তোলন করতে পারেন। 

বৃহস্পতিবার আয়ের উৎস না জানানো পর্যন্ত এই দুটি অ্যাকাউন্ট ফ্রিজ করা হয়েছে। অর্থাৎ একদিনে সৌদিতে জিয়া পরিবারের ৫০০ কোটি টাকা জব্দ হয়েছে।


খালেদার বিরুদ্ধে সৌদি আরবে দুর্নীতির তদন্ত নিউজ ভিডিও



Facebook

মন্ত্যব্য করুন


পাঠকের মন্তব্য


আব্দুল হাকিম
a.hakim_jnu@yahoo.com


বাংলাদেশের অন্যান্য মিডিয়া ভালভাবে প্রচার করে না কেন??? আর এ বিষয়ে হাইকোর্ট কোন পদক্ষেপ নিতে পারে না?? এসব মানুষ নির্বাচন থেকে সরে দাড়াক।।।এটাই চায় বাংলার মানুষ।।।

Oliur
oliurrahman70@gmail.com


Eta Banga suitcase r Sera ganji thaki pawa, aladiner cherag. Tareque Zia Sudhumatro Telecommunications thaki obidho babay taka pachar koriasey.