বিনোদন

প্রথম বিয়ের সময় অনেক ছোট ছিলাম : অপু বিশ্বাস

প্রকাশ: ১০ ডিসেম্বর ২০১৯

বিনোদন ডেস্ক ■ বাংলাদেশ প্রেস

‘দেশের প্রেক্ষাপট অনুযায়ী বিয়ে না করে জীবন ধারণ করলে অনেকেই অনেক মন্তব্য করেন। তাছাড়া মানুষ না বুঝেও সিনেমার ডায়লগ কিংবা ছবি ব্যবহার করে নামের আগে জুড়িয়ে দিয়ে, রিউমার ছড়ায়। তাই সেই জায়গাগুলো বিবেচনা করেই বিয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছি। বাবা-মা বিয়ের জন্য পাত্র খুঁজছেন। যেকোনও সময় বিয়ে করতে পারি।’ এভাবেই সময় সংবাদকে কথাগুলো বলছিলেন ঢাকাই সিনেমার কুইন খ্যাত চিত্রনায়িকা অপু বিশ্বাস।

অপু বিশ্বাস বলেন, আমি যথেষ্ট পরিপক্ক হয়েছি। প্রথম বিয়ে যখন আমি করেছিলাম তখন অনেক ছোট ছিলাম। কিছুই বুঝতাম না। আবেগে আমাদের বিয়ে হয়ে যায়। সেই জায়গা থেকে এখন আমি অনেক পরিপক্ক হয়েছি। প্রথমবারের মতো এখন ভাবছি না, এখন আমি নিজের মতো করে ভাবছি ও সিদ্ধান্ত নিচ্ছি। সঙ্গে আমার বাবা-মা আমাকে নিয়ে ভাবছেন। তারা বিয়ের জন্য ইতোমধ্যে বেশ কয়েকজন পাত্র দেখেছেন। 

বাপ্পীর সঙ্গে বিয়ের গুঞ্জন নিয়ে কী বলবেন? জানতে চাইলে অপু বলেন, বাপ্পী খুব কাছের ছোট ভাই। মূলত আমরা একসঙ্গে দেবাশীষ বিশ্বাসেরর ‘শ্বশুরবাড়ি জিন্দাবাদ ২’ সিনেমায় কাজ করেছি। সেখানে আমাদের বিয়ের দৃশ্য আছে। আর এ দৃশ্য নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিয়ের গুজব ছড়ানো হয়েছে। যা একদম ভিত্তিহীন।

আমজাদ হোসেন পরিচালিত ‘কাল সকালে’ চলচ্চিত্রের মাধ্যমে ২০০৪ সালে অভিষেক হয় অপু বিশ্বাসের। ২০০৫ সালে এফআই মানিক পরিচালিত কোটি টাকার কাবিন চলচ্চিত্রে প্রধান নায়িকা হিসেবে অভিনয় করেন শাকিব খানের বিপরীতে। কর্মজীবনে তিনি একটি বাচসাস পুরস্কার অর্জন করেছেন এবং ছয়বার মেরিল-প্রথম আলো পুরস্কারে মনোনয়ন লাভ করেন।

শাকিব-অপু জুটি হয়ে একসঙ্গে ৭২টি সিনেমা উপহার দেন। একসঙ্গে সিনেমা করতে গিয়ে ২০০৮ সালে গোপনে বিয়ে করেন শাকিব-অপু। ২০১৭ সালে একটি টেলিভিশনে সরাসরি সাক্ষাৎকারে অপু বিশ্বাস শাকিব খানের সঙ্গে তার বিয়ের কথা প্রকাশ করেন। বিয়ের পর ২৭ সেপ্টেম্বর ২০১৬ সালে কলকাতায় তাদের পুত্র সন্তান আব্রাম খান জয় জন্মগ্রহণ করেন। ২২ নভেম্বর ২০১৭ তারিখে শাকিব খান তালাকের জন্য আবেদন করেন। ২২ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ তারিখে এ দম্পতির ছাড়াছাড়ি হয়ে যায়।