সম্পাদকীয়

  • মাননীয় প্রধানমন্ত্রী সমীপে - রোহিঙ্গা প্রত্যাবর্তনে বাঁধায় কঠোর ব্যবস্থা, কিন্তু কার বিরুদ্ধে?

    মাননীয় প্রধানমন্ত্রী সমীপে - রোহিঙ্গা প্রত্যাবর্তনে বাঁধায় কঠোর ব্যবস্থা, কিন্তু কার বিরুদ্ধে?

  • রোহিঙ্গা প্রত্যাবর্তন খেলা, নাকি নীল নক্সা??

    রোহিঙ্গা প্রত্যাবর্তন খেলা, নাকি নীল নক্সা??

  • অফিশিয়াল চক্রান্তের জাল এখন দক্ষিন এশিয়ায়, নিজের অবস্থান কেন সহিংস ?

    অফিশিয়াল চক্রান্তের জাল এখন দক্ষিন এশিয়ায়, নিজের অবস্থান কেন সহিংস ?

  • বঙ্গবন্ধু হত্যার পূর্ণ বিচারে কমিশন!!

    বঙ্গবন্ধু হত্যার পূর্ণ বিচারে কমিশন!!

  • কুকর্মটা তো করেছে জিয়াউর রহমানের স্ত্রী আর পুত্র

    কুকর্মটা তো করেছে জিয়াউর রহমানের স্ত্রী আর পুত্র

ফরহাদ মাজাহাররা মাঝে মাঝেই ভালো স্থান চুলকিয়ে "ঘা" তৈরি করেন

প্রকাশ: ১২ জুলাই ২০১৯

মোঃ তৈমুর মল্লিক ভূঁইয়া, উপ-সম্পাদক ■ বাংলাদেশ প্রেস

প্রথমেই বলে রাখি এই মুহুর্তে বাংলাদেশ একটি ভাইটাল সময় অতিক্রম করছে। এই সময় কোন প্রকার উস্কানিতে বাংলাদেশকে যে কোন যুদ্ধ বা  আভ্যন্তরীণ ভাবে অস্থিতিশীল করা যাবে না। বাংলাদেশের অর্থনীতি এই মুহুর্তে মেরুদন্ড শক্ত করতে শুরু করেছে। মেরুদন্ড অনেকটাই নরম। যে কোন মুহুর্তে এদিক ওদিক হেলে পড়তে পারে। আর তাই যে কোন প্রকার উস্কানি, আবেগ, হাম বড়মিয়া ভাব পরিহার করে বুদ্ধিমত্তার পরিচয় দিয়ে দাঁড়িয়ে থাকতে হবেই।  

এই বিষয়টা ফরহাদ মাজাহাররা বেশ ভালো ভাবেই বুঝতে পেরেছেন। আর পেরেছেন বলেই বিশ্বকাপ ক্রিকেটের সাময়িক আবেগকে পুঁজি করে সমগ্র বাংলাদেশের মানুষকে পরিমাপ করেছে। এবং ফরহাদ মাজাহার তার নিজের ফেসবুক পেজে একটি স্টাটাস প্রদান করেছেন।  ৯৫ শতাংশ মুসলমানের দেশে সরকারের বিরুদ্ধে, দেশের বিরুদ্ধে মুসলমানদের তাতিয়ে তোলার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন।  তিনি তার ফেসবুক পেজে লিখেছেন - 

"ইণ্ডিয়া খেলায় হেরেছে, এতে বাংলাদেশীদের উল্লাস হয়েছে। ভারতীয় আগ্রাসন, সীমান্ত হত্যা এবং বাংলাদেশে ফ্যাসিস্ট রাষ্ট্রকে মদদ দিয়ে টিকিয়ে রাখার বি্রুদ্ধে বাংলাদেশের জনগণের ঘৃণা প্রকাশ হয়েছে বটে, কিন্তু এই গণ উপলব্ধিকে দিল্লীর অধীনতা থেকে বাংলাদেশকে মুক্ত করবার শক্তিতে পরিণত করাই আসল কাজ"।

অন্যান্য খেলার মতো ক্রিকেটও একটি খেলা।  বাংলাদেশ ক্রিকেট ভারতীয় ক্রিকেটের নিকট হতে বিভিন্ন ভাবে নগ্ন আচরনের শিকার হয়েছে এটা সত্য,  আই সি সি কে ভারতীয় ক্রিকেট অনেকটাই বশিকরণ করে রেখেছে বা করে সেটা শুধু বাংলাদেশ নয় বিশ্বক্রিকেট মিডিয়াও বলে। বিশ্বকাপ ১৫ এবং বিশ্বকাপ ১৯ এর কিছু ঘটনা বাংলাদেশ ক্রিকেটের সাথে সরাসরি বেঈমানী বলে আলোচনার কেন্দ্রবিন্দু। বাংলাদেশ ক্রিকেট একমাত্র বিষয় যা সমগ্র দেশের মানুষকে এক রেখায় নিয়ে আসে। খেলা শেষে তারা আবার ফিরে যায় যার যার বলয়ে।  

যার কারণে বাংলাদেশের মানুষ ভারতীয় ক্রিকেট বিরোধী একটি মনোভাব ব্যক্ত করে, সাময়ীক একটি ক্ষোভ প্রকাশ করে।  কোন ভাবেই সেই ক্রিকেটিয় ক্ষোভ ভারত বিরোধী ক্ষোভের বহিঃপ্রকাশ নয়।  

মুক্তবাজার অর্থনীতিতে বাংলাদেশের বাজারে ভারতীয় পণ্য যতনা আছে তারচেয়ে হাজার হাজার গুন বেশি আছে চীনা পণ্য। বাংলাদেশ মার্কেট থেকে চীনা পণ্য উঠিয়ে দিলে শুধু বাজার পড়ে থাকবে আর কিছুই থাকবে না।  তাহলে ৩ দিকে সীমান্ত নিয়ে ভারত বাংলাদেশকে বাজার বানিয়েছে সেটা প্রমাণ করে না।  আর যদি করেও তাতে খুব কি সমস্যা আছে? 

বাংলাদেশ যে সকল পণ্য তৈরি করে না সেই পণ্য কোন না কোন দেশ থেকেতো আনতে হবে, নইলে চলবে কি ভাবে?  

স্বাধীনতার কথা না হয় বাদ দিলাম, সমরাস্ত্রের দিক দিয়ে ভারত কোন ভাবেই বাংলাদেশে প্রাধান্য বিস্তার করতে পারেনি।  ইলেকট্রনিকস দিক দিয়ে ভারত কোন ভাবেই বাংলাদেশে রাজত্ব করতে পারেনি।  কৃষি পণ্যে ভারতের পাশাপাশি এখন সমান ভাবেই চীন এগিয়ে চলেছে। 

পোষাক বা প্রসাধনীতে ভারতের চেয়ে চীন অনেক এগিয়ে রয়েছে বাংলাদেশে। ইত্যাদি ইত্যাদি ইত্যাদি।  

তাহলে একমাত্র রাজনৈতিক মেরুকরনের দিক দিয়ে ভারতকেই বেশি দায়ি করা হয়। ভারতের সাম্প্রতিক নির্বাচনে বাংলাদেশের ভূমিকার কথা শোনা গিয়েছে।  

যদি তাই হয়ে থাকে তাহলে বলতেই হয় বাংলাদেশের সেই সক্ষমতা এসেছে যা দিয়ে সে ভারতের মতো একটি বৃহৎ রাষ্ট্রের নির্বাচন প্রভাবিত করতে পারে। 

ভারতের ৩ দিকে বাংলাদেশ, স্বভাবতই ভারত বাংলাদেশের মধ্যে একটি দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক থাকবে।  তাছাড়া আঅন্তর্জাতিক ভাবে ক্ষমতার ভারসাম্যে বাংলাদেশকে কাউকে না কাউকে আঞ্চলিক ভাবে সমর্থন দিতে হবে।  সেই দিক থেকে পলিসি হিসাবে বর্তমান সরকারের সমর্থনে রয়েছে ভারত। 

বিএনপি বা অন্যকেউ ক্ষমতায় আসলে দেবে হয়তো পাকিস্তানকে।  সেটাও বা বলি কিভাবে?  বিএনপির অনেকেই দৌড়ে দৌড়ে সেই ভারতেই যেতে দেখেছি।  

তাহলে সমস্যাটা কোথায়?  ফরহাদ মাজাহাররা মাঝে মাঝেই উস্কানি বার্তা নিয়ে কেন মাঠে আসেন?  

হ্যা এখানে একটা উত্তর তাদের কথায় বেশ ভালো ভাবেই বোঝা যায় সেটা হলো তারা মুসলমান শব্দ ব্যবহার করেন।  অর্থাৎ ৯৫ শতাংশ মুসলমানের আবেগ নিয়ে ব্যবসায় নামে। যদিও নিজে মুসলমান কি না সেটাই প্রশ্ন।  

বৃদ্ধ বয়সে পর নারীতে আসক্ত হয়ে, নিজের পরিবারের তোপ থেকে বাঁচতে ফরহাদ মাজাহারদের অনেক স্থানেই দেখা যায়।  মুসলমান ধর্ম নিশ্চই এমন মুসলমানকে নিকৃষ্ট শুকর হতেও ঘৃণিত বলে প্রতিয়মান করে।  

ও আমিতো ভুলেই গিয়েছিলাম ফরহাদ মাজাহার মার্কসবাদী। তিনি মার্কসবাদী হলেও বাংলাদেশে জামায়াত রাজনীতির জন্য তার বক্তব্য ছিলো বড্ড সহায়ক। জামায়াত যে সব কথা বলতে পারেনি ফরহাদ মাজাহার সেসব কথা বলেছেন। তিনি আসলে যে কি চান আর কি বিশ্বাস করে সেটাই বড় সমস্যা।

একদিকে মজহারের কাছে সূর্য সেনসহ মুক্তিযোদ্ধারা সবাই ‘সন্ত্রাসী’ এবং মুক্তিযুদ্ধ ছিল ‘সন্ত্রাসবাদী কার্যক্রম। আবার উসামা বিন লাদেনকে তিনি মনে করেন সাম্রাজ্যবাদ বিরোধী লড়াইয়ের একজন অগ্র সৈনিক এবং আফগানিস্তানের তালেবানরা তাঁর কাছে ‘জাতীয় বীর’। পাশাপাশি জেএমবিসহ সকল জঙ্গিবাদী কার্যক্রমের সঙ্গে মুক্তিযুদ্ধের সামঞ্জস্য আছে বলেই মনে করে। আর সেই কারণে বাংলাদেশ বা ভারত সবাইকেই তার নিকট ফ্যাসিস্ট বলে মনে হতেই পারে। 

বুঝতেই পারছি ফরহাদ মাজাহাররা ফাঁক পেলেই জেগে ওঠেন। সময় বুঝে কথা বলেন।  তাদের দমিয়ে রাখা সত্যি কষ্ট। নিজের চরিত্রের বল বিয়ারিং ঠিক না থাকলেও বাংলাদেশের চরিত্র ঠিক করতে উঠে পড়ে লাগেন। 

ধর্ষণের মহামারী, এরপরেই মানুষের মাথা ও রক্তের পর্ব, বিশ্বকাপ ক্রিকেট নিয়ে মানুষের খেলোয়াড়ি আবেগ কে পুঁজি করা, এখন শুনছি মাইকিং হচ্ছে কোথাও কোথাও বোরকা পরিধান না করে নারীরা ঘর থেকে বের না হওয়ার পরামর্শ চলছে। অর্থাৎ আভ্যন্তরীণ ভাবে বাংলাদেশকে অস্থিতিশীল করে তুলতে মরিয়া হয়ে উঠেছে এক শ্রেনীর বুদ্ধিজীবী।  এখন দেখছি চরিত্র স্খলনের দায়ে অনেকটাই গৃহবন্ধি ফরহাদ মাজাহার জেগে উঠেছে। একটা ফাঁক খুঁজে পেয়েছে ক্রিকেট বিশ্বকাপের খেলোয়াড়ি আবেগ কোন ক্রমে ডাইভার্ট করে মুসলমানদের ভারতের বিপক্ষে কাজে লাগানো যায় কি না। ভারতেও এখন চলছে বর্তমান মুসলমানদের প্রতি নির্যাতন। এই দুইটি বিষয়কে কোন ভাবে যদি চুলকিয়ে কষ ঝরানো যায় তাহলেই বর্তমান সরকার বিপদে পড়বে। থমকে যাবে বাংলাদেশের অগ্রগতি।  

ফরহাদ মাজাহারকে বলছি - জনাব ফরহাদ মাজাহার শেখ হাসিনা খুব ভালো করেই জানে আপনাদের মতো বুদ্ধিজীবীর কথায় কান দেয়া আর ছাগলের ৩ নং বাচ্চার সাথে লাফালাফি করা সমান কথা। বাংলাদেশের মেরুদন্ড শক্ত করতে শেখ হাসিনাকে অনেক পথ পাড়ি দিতে হবে। আর তাই জবাবটা তার পক্ষ থেকে আমরাই আপনাকে দেব।  কারন কোন ভাবেই আমরা দেশের অস্থিতিশীল অবস্থা দেখতে চাইনা। আমার সন্তানের জন্য একটি সমৃদ্ধশালী বাংলাদেশ দেখে যেতে চাই।  

আপনি কতটাকা পশ্চিমাদের নিকট হতে পেয়েছেন জানিনা।  অবশ্য আপনার অনেক টাকার দরকার এখন। যা কিছু ছিলো সেটাতো খরচ করে ফেলেছেন খুলনায়।  

তাই এরকম দুই একটা বক্তব্য দিয়ে বাংলাদেশের মুসলমানদের ক্ষেপিয়ে তুলতে পারলেই হয়তো সেন্টমার্টিনে আপনাকে অবাধে অভিসারের সুযোগ দেয়া হবে। নিশ্চই আপনি বুঝেছেন আমি কোন প্যাচটা দিলাম। দয়াকরে ভালো স্থান চুলকিয়ে ঘা তৈরি করবেন না। সময়তো তেমন বেশি নেই হাতে স্বাভাবিক নিয়মে)। এখন একটু নিজের ধর্মে মনোনিবেশ করুন। 

লেখাটাই হয়তো খামাখা লিখলাম। কারণ বাংলাদেশ এখন ফরহাদ মাজাহারদের চেয়ে অনেক বেশি শক্তিশালী। যা কিছু অনিয়ম, যা কিছু চিন্তার নিশ্চই সেসব কেটে যাবে। 

আবারও বলছি- কোন ভাবেই কোন যুদ্ধ এবং আভ্যন্তরীন অস্থিতিশীল পরিবেশ হবে দেশের জন্য ভয়ংকর ক্ষতি। 

আর তাই ফরহাদ মাজাহারের বক্তব্য বাতিল বলেই গণ্য হলো।।

পরবর্তী খবর পড়ুন : কিশোরগঞ্জের বাজিতপুরে মেয়াদউত্তীর্ণ ঔষধ ও খাদ্য পণ্য, ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের অভিযান


আরও পড়ুন

‘কাশ্মীর এখন কবরখানার মতো নীরব’

‘কাশ্মীর এখন কবরখানার মতো নীরব’

ভারতীয় মানবাধিকার আইনজীবী ভ্রিন্ডা গ্রোভার বলেছেন, কাশ্মীর এখন কবরখানার মতো ...

মুম্বাইয়ে ভেঙে পড়ল বহুতল ভবন; নিহত ২, নিখোঁজ অন্তত ১৫

মুম্বাইয়ে ভেঙে পড়ল বহুতল ভবন; নিহত ২, নিখোঁজ অন্তত ১৫

ভারতের মুম্বাই শহরতলির ভিওয়ান্ডিতে ভেঙে পড়েছে একটি বহুতল ভবন। শনিবার ...

জয়া এবার ভূত

জয়া এবার ভূত

ওপার বাংলার ছবিতে নানা ধরনের চরিত্র করেছেন জয়া আহসান। প্রসেনজিতের ...

টেকনাফে ওমর ফারুককে হত্যার পর রোহিঙ্গাবিরোধী বিক্ষোভ, ভাঙচুর

টেকনাফে ওমর ফারুককে হত্যার পর রোহিঙ্গাবিরোধী বিক্ষোভ, ভাঙচুর

রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীরা গত বৃহস্পতিবার রাতে টেকনাফে যুবলীগের এক নেতাকে নির্মমভাবে ...

ফিফায় বাংলাদেশের প্রথম দুই নারী রেফারি

ফিফায় বাংলাদেশের প্রথম দুই নারী রেফারি

বাংলাদেশের প্রথম নারী হিসেবে ফিফার রেফারি হলেন দুই সাবেক নারী ...

অধ্যাপক মোজাফফরের দাফন রবিবার কুমিল্লায়

অধ্যাপক মোজাফফরের দাফন রবিবার কুমিল্লায়

মুক্তিযুদ্ধকালীন সরকারের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য ও ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টির (ন্যাপ) ...

টেকনাফে যুবলীগ নেতা হত্যায় সন্দেহভাজন ২ রোহিঙ্গা ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত

টেকনাফে যুবলীগ নেতা হত্যায় সন্দেহভাজন ২ রোহিঙ্গা ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত

কক্সবাজারের টেকনাফে  যুবলীগ সভাপতি ওমর ফারুক হত্যায় অভিযুক্ত দুই রোহিঙ্গা ...

গ্রেনেড হামলার মূলপরিকল্পনাকারীরা সর্বোচ্চ শাস্তি পাবে: কাদের

গ্রেনেড হামলার মূলপরিকল্পনাকারীরা সর্বোচ্চ শাস্তি পাবে: কাদের

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল ...