সম্পাদকীয়

  • অনমনীয় প্রধানমন্ত্রী-   অসম্ভবকে সম্ভব করতে পারে পুলিশ

    অনমনীয় প্রধানমন্ত্রী- অসম্ভবকে সম্ভব করতে পারে পুলিশ

  • বাবা দিবস ও দেবযানী

    বাবা দিবস ও দেবযানী

  • ব্যবসা-বানিজ্যে স্বার্থের ইচ্ছায় এড়িয়ে যাই ইসিআর/নীল চালান

    ব্যবসা-বানিজ্যে স্বার্থের ইচ্ছায় এড়িয়ে যাই ইসিআর/নীল চালান

  • ইইউ প্রেসক্রিপশন ও আমাদের সুশীল

    ইইউ প্রেসক্রিপশন ও আমাদের সুশীল

  • বঙ্গবন্ধুর উদ্যোগ শেখ হাসিনার উন্নয়ন অভিযান,প্রশ্নবিদ্ধ করে কারা-১

    বঙ্গবন্ধুর উদ্যোগ শেখ হাসিনার উন্নয়ন অভিযান,প্রশ্নবিদ্ধ করে কারা-১

জাতীয় বাজেট পাঠেও সেই মাননীয় প্রধানমন্ত্রী!

প্রকাশ: ১৩ জুন ২০১৯     আপডেট: ১৩ জুন ২০১৯

মোঃ তৈমুর মল্লিক ভূঁইয়া, উপ-সম্পাদক ■ বাংলাদেশ প্রেস

তিনি (মাননীয় প্রধানমন্ত্রী) আর কি কি করলে শান্ত হবে ধরনি! এবারের জাতীয় বাজেট(২০১৯- ২০২০) অধিবেশন শুরু হয়েছে। 

রিতী মোতাবেক অর্থমন্ত্রী জাতিয় সংসদে বাজেট ঘোষণা করবেন সেটাই নিয়ম।  

কিন্তু বিধির কি বিধান নির্দিষ্ট সময়ের আগেই অর্থমন্ত্রী চোখের সমস্যায় হাসপাতাল এবং পরবর্তীতে বাজেট পাঠ থেকে বিরত থাকতে হয়েছে।  

তাহলে বাজেট পাঠ করবে কে? এক ঝটকায় দায়িত্ব এসে ভর করলো মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাঁধে। 

বিষয়টি তর্কের নয় তবে বিশেষত্ব কি কিছু রয়েছে এর মধ্যে? 

বাংলাদেশের বর্তমান দুর্নীতি জোয়ার যেভাবে আগুনের উপরে  ভাতের হাড়িতে বুদবুদে রুপান্তরিত হয়েছে তার প্রত্যেক স্থানেই রয়েছে প্রশাসনের কেউ না কেউ জড়িত। যার প্রায় প্রতিটি স্থানেই প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ ছাড়া সেই দুর্নীতি রোধ হয়না। 

এমন কোন স্থান নেই যেখানে আমরা সবাই তাকে খুঁজি না, কিছু হলেই খুজেমরি কোথায় আমাদের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী! জীবন যখন নাকের ডগায় চলে আসে তখনই খুঁজি আমাদের মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে। 

আজ সংসদে ঘন্টার পর ঘন্টা সেই প্রধানমন্ত্রী দাঁড়িয়ে বাজেট পড়ছেন। বাংলাদেশের ইতিহাসে এই হয়তো প্রথম যেখানে প্রধানমন্ত্রী নিজেই পাঠ করছেন।  

এবারের জাতীয় নির্বাচন এবং আওয়ামিলীগের পক্ষ থেকে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রধানমন্ত্রীত্ব একটি বিশেষ স্থানে দাঁড়িয়ে রয়েছে। তিনি বড় ধরনের একটি চ্যালেঞ্জের সামনে দাঁড়িয়ে রয়েছেন।  অথচ তার চারপাশ রয়েছে বিগত যে কোন সময়ের চেয়ে বিপদজনক। তার সহায়ক কে, আর কে সহায়ক নয় এমন বিচারে তিনি যে কোন সময়ের চেয়ে বেশি চিন্তিত। এমন মানুষিক চিন্তার মধ্যে আল্লাহ নিজেই চেয়েছেন, তিনি বাজেট নিজে পাঠ করুন।  

দেশের আগামী অর্থবছর তিনি নিজেই ঘোষণা দিক।  কারণ বছর শেষে জনগণের এই টাকার হিসাব তাকেই বুঝিয়ে দিতে হবে মানুষকে।  

হা,  আমি এই স্থানেই বিশেষত্ব খুঁজে পাই। নিশ্চই এরমধ্যে আল্লাহর কোন ইশারা রয়েছে। হতে পারে বাংলাদেশের জন্য, বাংলাদেশের মানুষের জন্য মঙ্গল জনক। 

চলুক আগামী বছরের বাজেট অধিবেশন, যে অধিবেশনে বাজেট পাঠ করছেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিজেই।  তৈরি হলো আর একটি ইতিহাস।

সংবাদ

সংসদে প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানালেন শেখ হাসিনা!

জাতীয় সংসদে ২০১৯-২০ অর্থবছরের বাজেট পেশ সম্পন্ন করতে পারেননি অর্থমন্ত্রী মুস্তফা কামাল। বাজেট পড়ার সময় অর্থমন্ত্রী অসুস্থ বোধ করায় স্পিকারের অনুমতি সাপেক্ষে বাকি অংশ উপস্থাপন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বাজেট বইয়ে অর্থনীতিতে বাংলাদেশের সফলতা ও অর্জন নিয়ে দক্ষ নেতৃত্বের কারণে ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ’ উল্লেখ করা হয় বেশ কয়েক বার। শেখ হাসিনা বাজেট পেশের সময় তা পড়তে থাকেন। এক সময় পাঠ করতে গিয়ে প্রধানমন্ত্রীকে নিজেই ধন্যবাদ জানান শেখ হাসিনা। 

এ সময় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মজা করে বলেন, ‘এখানে যেসব জায়গায় আমাকে ধন্যবাদ দেয়া হয়েছে তা কিন্তু আমি ভুলে পড়ে ফেলছি। এটা অর্থমন্ত্রীর হয়ে আমি পড়ছি।’

পরে জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বাজেট বইয়ে প্রধানমন্ত্রীকে যেসব জায়গায় ধন্যবাদ জানানো হয়েছে তা পাঠ করতে বলেন সংসদ নেতা শেখ হাসিনাকে।

আগামী ২০১৯-২০ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেট উত্থাপন করা হয়েছে জাতীয় সংসদে। মূল বাজেটের আকার ধরা হয়েছে ৫ লাখ ২৩ হাজার ১৯০ কোটি টাকা। এটি জিডিপির ১৮ দশমিক ১ শতাংশ।

এবারের বাজেটে সর্বোচ্চ অর্থ ধরা হয়েছে যোগাযোগ ও পরিবহন খাতে। ৬৪ হাজার ৮ শত ২০ কোটি টাকা যোগাযোগ ও সড়ক পরিবহন খাতে ধার্য করা হয়েছে। বাজেটে দ্বিতীয় ব্যয় ধরা হয়েছে অভ্যন্তরীন সুদ পরিশোধে, ৫৭ হাজার ৬৮ কোটি টাকা। বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতে বরাদ্দ করা হয়েছে ২৮ হাজার ৫০ কোটি টাকা। প্রতিরক্ষা খাতে ৩২ হাজার ৫৫৮ কোটি টাকা। স্বাস্থ্যখাতে ২৫ হাজার ৭৩২ কোটি টাকা। কৃষিখাতে ২৮ হাজার ৩৫৩ কোটি টাকা বরাদ্দ ধরা হয়েছে।

রাজস্ব আয়ের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ৩ লাখ ৭৭ হাজার ৮১০ কোটি টাকা। এর মধ্যে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের মাধ্যমে আয়ের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে ৩ লাখ ২৫ হাজার ৬০০ কোটি টাকা, যা জিডিপির ১১ শতাংশ। এনবিআর বর্হিভূত রাজস্ব আয় ১৪ হাজার ৫০০ কোটি টাকা, যা জিডিপির ৫ শতাংশ। আর কর বর্হিভূত রাজস্ব আয় ৩৭ হাজার ৭১০ কোটি টাকা । এটি জিডিপির ১ দশমিক ৩ শতাংশ।



পরবর্তী খবর পড়ুন : সোনারগাঁয়ে বাংলাদেশ লোক ও কারুশিল্প জাদুঘরের সাবেক পরিচালক কবি রবীন্দ্র গোপ নারীসহ আটক


আরও পড়ুন

ওয়ানডেতে ৬ হাজার রানের মাইলফলক গড়লেন সাকিব

ওয়ানডেতে ৬ হাজার রানের মাইলফলক গড়লেন সাকিব

দ্বিতীয় বাংলাদেশি হিসেবে ওয়ানডেতে ৬ হাজার রানের মাইলফলক গড়লেন সাকিব ...

ধর্ষণের শিকার শিশু আছিয়াঃ ধুঁকে ধুঁকে মারা গে‌ল

ধর্ষণের শিকার শিশু আছিয়াঃ ধুঁকে ধুঁকে মারা গে‌ল

টাঙ্গাই‌লের কা‌লিহাতী‌তে ধর্ষ‌ণের এক বছর পর চি‌কিৎসাধীন অবস্থায় ধুঁকে ধুঁকে ...

টাইগারদের রেকর্ড ভেঙে জিততে হবে টাইগারদের

টাইগারদের রেকর্ড ভেঙে জিততে হবে টাইগারদের

বাংলাদেশকে পেয়ে আরেকটি দুর্দান্ত ইনিংস খেললেন শাই হোপ। চার রানের ...

‘ওয়ার্ড ,মহল্লায় বিএনপি নেতাকর্মীদের সাথে যোগাযোগ করে তাদের উজ্জীবিত রাখতে হবে’

‘ওয়ার্ড ,মহল্লায় বিএনপি নেতাকর্মীদের সাথে যোগাযোগ করে তাদের উজ্জীবিত রাখতে হবে’

উপজেলা ও পৌর বিএনপি আয়োজনে রাণীশংকৈল ডিগ্রী কলেজ হল রুমে ...

নাইজেরিয়ায় তিনটি আত্মঘাতী বোমা হামলায় নিহত ৩০

নাইজেরিয়ায় তিনটি আত্মঘাতী বোমা হামলায় নিহত ৩০

নাইজেরিয়ার বোরনো রাজ্যের একটি গ্রামে তিনটি আত্মঘাতী বোমা হামলায় কমপক্ষে ...

রোজাকে আইসক্রিমে ওষুধ মিশিয়ে হত্যা, মায়ের আত্মহত্যার চেষ্টা

রোজাকে আইসক্রিমে ওষুধ মিশিয়ে হত্যা, মায়ের আত্মহত্যার চেষ্টা

রাজধানীর মুগদায় সাড়ে তিন বছরের মেয়েকে আইসক্রিমের সঙ্গে ঘুমের ওষুধ ...

কালিহাতীতে প্রতিবন্ধী ধর্ষণের ভিডিও ধারনঃ আটক ১

কালিহাতীতে প্রতিবন্ধী ধর্ষণের ভিডিও ধারনঃ আটক ১

কালিহাতীতে এক প্রতিবন্ধী যুবতীকে রাজিব ও আনিছ নামে দুই লম্পট ...

'রাস্তার নামে খাল, আর কত কাল?'

'রাস্তার নামে খাল, আর কত কাল?'

দীর্ঘদিন ধরে অবহেলা-অচলাবস্থায় পড়ে থাকা কুমিল্লা সদর দক্ষিণ উপজেলার কোটবাড়ি-কুমিল্লা ...