সম্পাদকীয়

  • রোহিঙ্গা এখন "বিষাক্ত বৃক্ষ "

    রোহিঙ্গা এখন "বিষাক্ত বৃক্ষ "

  • কচুকাটা হবে কিছু আওয়ামী লীগ নেতা!

    কচুকাটা হবে কিছু আওয়ামী লীগ নেতা!

  • কতৃত্ববাদ ও একজন ছাত্রলীগ সম্পাদকের অসহায়ত্ব

    কতৃত্ববাদ ও একজন ছাত্রলীগ সম্পাদকের অসহায়ত্ব

  • দাবায়ে রাখতে পারবা না

    দাবায়ে রাখতে পারবা না

  • আওয়ামী লীগের ৭০ বছরের পথচলা

    আওয়ামী লীগের ৭০ বছরের পথচলা

ইতিহাস শেখ হাসিনাকে অনন্য মর্যাদা দিবে

প্রকাশ: ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৮

আবদুল মালেক, উপ-সম্পাদক, বাংলাদেশ প্রেস

রাজনৈতিক আলাপ ওর দু'কানে যেন বিষ ঢালে, একেবারেই পছন্দ নয়। তবে বঙ্গবন্ধু সম্পর্কে নন্দিনীর মূল্যায়ন অনেক উচ্চ। সেদিন একান্তে বঙ্গবন্ধু সম্পর্কে কথা হচ্ছিল যা সচরাচর হয় না। এমনকি সেদিন শেখ হাসিনা সম্পর্কেও কথা বললো, যা ওর স্বভাব বিরুদ্ধ। সেই আলাপে একটি কথা আমি স্পষ্ট বুঝেছি, রাজনীতি নিয়ে আপাতদৃষ্টে যারা চুপচাপ থাকে তাদের মধ্যেও দেশ, মানুষ ও রাজনীতি নিয়ে গভীর বোধ রয়েছে। সমাজের এই silent part-কে প্রায়শই আমরা অবজ্ঞা, অবহেলা করি যেহেতু ওরা সংঘবদ্ধ নয়। সমাজের নানা অসংগতি ওরা অন্য অনেকের চেয়ে ভালো বুঝে। অথচ রাজনৈতিক দলগুলো অনেক সয়য় এই silent part-এর চিন্তা-ভাবনা অনুধাবনে ব্যর্থ হয়। ফলে দেখা যায় জাতীয় নির্বাচনে অনেক দলের প্রত্যাশিত ফলাফল উল্টে যায়, নেতারা মাতম করে।


বঙ্গবন্ধু হত্যাকান্ডের সময় সৌভাগ্যক্রমে তাঁর দুই আত্মজা প্রবাসে ছিলেন, তাই হয়তো বেঁচে গেছেন। নন্দিনীর ভাষায়, "এমন নারকীয় হত্যা কান্ডের পর পরিবারের জীবিত সদস্যরা এক কথায় পাগল হয়ে যাবার কথা। কিসের সংসার, রাজনীতি, রাষ্ট্র পরিচালনা? এমনকি হঠাৎ শোনা এমন সংবাদে মৃত্যুবরণও অসম্ভব নয়। এমন হৃদয়বিদারক পরিস্থিতি বুকের মাঝে সামাল দিয়ে একটি দেশের দায়িত্ব নিজ কাঁধে তুলে নেয়া খামখেয়ালি ব্যাপার নয় মোটেও। এখনো নিশ্চয়ই অহর্নিশ  সেই স্মৃতি তাড়িত করে, অন্যদিকে একটি ছোট্ট ভূখন্ডের ১৬০ মিলিয়ন মানুষের ভালো-মন্দের গুরুদায়িত্ব তাঁর উপর, এমন কঠিন বাস্তবতা নিয়েই চলছে শেখ হাসিনার জীবন। সবকিছু পাথর চাপা দিয়ে পথচলার মূল মন্ত্র কি, হয়তো তিনি ভাবেন, look forward, not behind." নন্দিনীর এই চমৎকার মূল্যায়ন আমি মুগ্ধ হয়ে শুনেছি।


আমি একটু নস্টালজিক, আনমনা। নন্দিনী ধমকে উঠলো, "আরে ভাবছো কি, একটুখানি পক্ষে বলতেই কোথায় হারালে? আমি কিন্তু বাস্তবটা বলেছি, তোমার মতো চামচামি করিনা, সেটি আমার দ্বারা হবে না, পোষাবেও না"। আমি ধাতুস্থ হলাম। ভাবলাম সত্যিই, এই গিরগিটির নানা বর্ন ধারণ করা রাজনীতি নন্দিনীদের জন্য নয়। কিছু exception তো থাকে। বাংলাদেশের রাজনীতিতে শেখ হাসিনা কেবল  exception নন super exception. রাষ্ট্র পরিচালনায় তিনি ক্রমাগত মেধা, দুরদর্শিতা এবং নিত্যনতুন উদ্ভাবনী চিন্তার স্বাক্ষর রেখে চলেছেন। গত দশ বছরে দৃশ্যতই তিনি দেশের খোলনলচে বদলে দিবার পরিকল্পনা এঁকেছেন যার বহুলাংশ দৃশ্যমান।


শেখ হাসিনার অর্জন ক্ষুদ্র পরিসরে বিবৃত করা যাবেনা। দীর্ঘ একুশ বছর বাদে ১৯৯৬ সালে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ক্ষমতায় আসে আওয়ামী লীগ। অশান্ত পাহাড়ে শান্তির বারতা দেন তিনি, স্বাক্ষরিত হয় পার্বত্য শান্তি চুক্তি, প্রতিবেশি ভারতের সাথে গঙ্গা চুক্তি, নিখুঁত ভাবে মোকাবেলা করেন ১৯৯৮ সালের দীর্ঘকালীন বন্যা। এবং সবচেয়ে বড় কথা  মেয়াদ শেষে শান্তিপূর্ণ পদ্ধতিতে ক্ষমতা হস্তান্তর করেন যা এযাবতকালে বাংলাদেশের প্রেক্ষাপট বিবেচনায় ঐতিহাসিক সত্যি।


২০০৮ সালে নিরঙ্কুশ বিজয় নিয়ে সরকার গঠন এবং পরবর্তীতে যুদ্ধাপরাধীর বিচার শেখ হাসিনার অনন্য অর্জন। স্থলসীমা চুক্তি, ছিটমহল, সমুদ্র চুক্তি দেশেবিদেশে প্রশংসিত হয়েছে। নিজস্ব অর্থায়নে 'পদ্মাসেতু' মাথা উচু করে বাঁচার নজির। সবচেয়ে বড় অর্জন, তলাবিহীন ঝুড়িটি আজ মধ্যম আয়ের বাংলাদেশ। অন্য যে কেউ হলে মাথা গরম করে ফেলতো এমনকি মায়ানমারের সঙ্গে যুদ্ধে জড়িয়ে যেতো কিন্তু দশ লাখ বাড়তি রোহিঙ্গার চাপ তিনি দক্ষতার সাথেই সামাল দিচ্ছেন। এ সমস্ত কারনে ইতিহাস শেখের বেটিকে অনন্য মর্যাদায় চিত্রণ করবে।

লেখকঃ উপ-সম্পাদক, বাংলাদেশ প্রেস।

পরবর্তী খবর পড়ুন : ‘প্রত্যেকের সামাজিক দায় থেকে কাজ করতে হবে’


আরও পড়ুন

হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের শারীরিক অবস্থার উন্নতি

হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের শারীরিক অবস্থার উন্নতি

জাতীয় পার্টির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান গোলাম মোহাম্মদ কাদের জানিয়েছেন, গত ২৪ ...

প্রধানমন্ত্রী যেকোনো মূল্যে রিফাতের খুনিদের গ্রেপ্তারের নির্দেশ দিয়েছেন

প্রধানমন্ত্রী যেকোনো মূল্যে রিফাতের খুনিদের গ্রেপ্তারের নির্দেশ দিয়েছেন

বরগুনায় স্ত্রীর সামনে প্রকাশ্যে কুপিয়ে রিফাত শরীফকে হত্যার ঘটনায় জড়িতদের ...

ঢাবির শহীদুল্লাহ হল এলাকা থেকে নবজাতকের মরদেহ উদ্ধার

ঢাবির শহীদুল্লাহ হল এলাকা থেকে নবজাতকের মরদেহ উদ্ধার

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) শহীদুল্লাহ হলের ভেতর থেকে এক নবজাতকের মরদেহ ...

জরুরি ভিত্তিতে হজযাত্রীদের তথ্য পাঠানোর নির্দেশ এজেন্সিদের

জরুরি ভিত্তিতে হজযাত্রীদের তথ্য পাঠানোর নির্দেশ এজেন্সিদের

হজযাত্রীদের তথ্য জরুরি ভিত্তিতে পাঠাতে ধর্ম মন্ত্রণালয় নির্দেশ দিয়েছে হজ ...

সীতাকুণ্ডে বন্দুকযুদ্ধে ধর্ষণ মামলার আসামি নিহত

সীতাকুণ্ডে বন্দুকযুদ্ধে ধর্ষণ মামলার আসামি নিহত

চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে র‌্যাবের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে মো. রানা (২০) নামের এক ...

নুসরাত হত্যা মামলার সাক্ষ্যগ্রহণ চলছে

নুসরাত হত্যা মামলার সাক্ষ্যগ্রহণ চলছে

ফেনীর সোনাগাজীতে মাদ্রাসাছাত্রী নুসরাত জাহান রাফিকে আগুনে পুড়িয়ে হত্যার ঘটনায় ...

এক বছরেই শীতাতপ নিয়ন্ত্রণযন্ত্র বিকল, বাংলাদেশ ভবনের নজরুল স্মরণ অনুষ্ঠান অন্যত্র

এক বছরেই শীতাতপ নিয়ন্ত্রণযন্ত্র বিকল, বাংলাদেশ ভবনের নজরুল স্মরণ অনুষ্ঠান অন্যত্র

এক বছরের মধ্যেই শান্তিনিকেতনের বাংলাদেশ ভবনের ১৯টা শীতাতপ নিয়ন্ত্রণযন্ত্র বিকল ...

ইরানে হামলা হলে পাশে থাকার ঘোষণা রাশিয়ার

ইরানে হামলা হলে পাশে থাকার ঘোষণা রাশিয়ার

যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে চলমান উত্তেজনায় শুরু থেকেই ইরানের পাশে রয়েছে বিশ্বের ...