সম্পাদকীয়

  • সোনার চামচ মুখে নিয়ে জম্মানো গনপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারী ছাত্রনেতা

    সোনার চামচ মুখে নিয়ে জম্মানো গনপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারী ছাত্রনেতা

  •  বঙ্গবন্ধুর উদ্দেশ্যমূলক সৃষ্ট বলয়ের বাহিরে নির্বাচিত "সাধারন সম্পাদক"-- অসহায় জনাব 'ওবায়দুল কাদের' এমপি

    বঙ্গবন্ধুর উদ্দেশ্যমূলক সৃষ্ট বলয়ের বাহিরে নির্বাচিত "সাধারন সম্পাদক"-- অসহায় জনাব 'ওবায়দুল কাদের' এমপি

  • যে প্রত্যাবর্তণে ঘুরে গিয়েছিল ইতিহাসের চাকা!

    যে প্রত্যাবর্তণে ঘুরে গিয়েছিল ইতিহাসের চাকা!

  • মা,তোর বদনখানি মলিন হলে,ও মা,আমি নয়ন জলে ভাসি

    মা,তোর বদনখানি মলিন হলে,ও মা,আমি নয়ন জলে ভাসি

  • তারেক জিয়ার ব্রিটিশ নাগরিকত্বের রহস্য কী?

    তারেক জিয়ার ব্রিটিশ নাগরিকত্বের রহস্য কী?

রাজনীতি'র কর্মীরা'ই দেশপ্রেমে' শ্রেষ্ঠত্বের দাবীদার

প্রকাশ: ১৪ ফেব্রুয়ারী ২০১৮

রুহুল আমিন মজুমদার,উপ-সম্পাদক, বাংলাদেশ প্রেস

সম্মানীত সকল নাগরিক দেশপ্রেমিক--তবে রাজনীতি'র কর্মীরা'ই দেশপ্রেমে' শ্রেষ্ঠত্বের দাবীদার।


রাজনীতি' নয়, আমি রাজনৈতিক নেতাকর্মীদের দেশ প্রেমের কথা বলছি। রাজনীতির বহুবীদ সংজ্ঞা আছে, থাকবে--আরো নতুন নতুন সংজ্ঞা আবিস্কার হতে পারে।-আমি সে ব্যাখ্যায় যাবনা। আমি রাজনীতির নেতাকর্মীদের দেশপ্রেমের উত্থান, রাজনীতির নেশা সৃষ্টির কারন এবং রাজনৈতিক নেতাকর্মীগনের উচ্চমাত্রার দেশপ্রেম বিদ্যমান থাকার হেতু সম্পর্কে সংক্ষেপে কিছু কথা বলতে চাই।


প্রথমত:' আমাদের জানতে হবে রাজনৈতিক নেতাকর্মী কারা? কেন তাঁদের মনে দেশের সর্বশ্রেনীর নাগরিকের চেয়ে সংগত কারনে অনেকগুন বেশী দেশপ্রেম অটুট থাকে। আমি কিন্তু বলছিনা দেশে বসবাসরত অপরাপর নাগরিক গনের দেশপ্রেমের অভাব আছে। অবশ্যই সকলেরই দেশপ্রেম আছে--সকলের স্ব--স্ব জ্ঞানের পরিধি অনুযায়ী দেশপ্রেমে তারতম্য রয়েছে। তবে অনস্বিকায্য ভাবে---সর্বসময়, সকল পরিস্থীতিতে রাজনৈতিক নেতাকর্মীদের সুপ্তমনে দেশপ্রেম সদা জাগ্রত থাকতে অনেকটা'ই বাধ্য হয়। দেশের সর্বশ্রেনীর নাগরিকদের মধ্যে একমাত্র রাজনৈতিক নেতাকর্মীরা সুসংগঠিত, দলবদ্ধ এবং সচেতনভাবে দেশপ্রেমের চর্চায় আমৃত্যু নিমগ্ন থাকেন। দেশ ও জনগনের যে কোন ক্রান্তিকালে বসবাসরত: অপরাপর নাগরিকদের সুপ্ত মনে দেশপ্রেম জাগ্রত করার মহান দায়িত্বটি পালন করেন একমাত্র রাজনৈতিক নেতাকর্মীগন। রাজনৈতিক নেতাকর্মীরা অন্যসকল শ্রেনী পেশার নাগরিকদের নির্দিষ্ট কর্ম পরিকল্পনায় সু-সংগঠিত করতে পারেন।তাঁরা বিচ্ছিন্ন সকল নাগরিক, শ্রেনী পেশার জনগোষ্টি এবং সামাজিক শক্তিকে নির্দিষ্ট বিন্দুতে সমবেত করেন।সমবেত জনগোষ্টিকে দুর্ভেদ্য শক্তিতে রুপান্তর ঘটিয়ে উদ্ভোত যে কোন পরিস্থীতি মোকাবেলা করেন। সুতারাং দেখা যায়--"উন্নয়ন, অগ্রগতি, সংগ্রাম সাধনায় সর্বতো ভাবে, সর্ব সময়ে, সর্বক্ষেত্রে আদর্শিক দলের রাজনৈতিক নেতাকর্মীদের ভুমিকা সর্বাজ্ঞে পরিলক্ষিত"।


যে কোন দেশে বসবাসরত: বৈধ নাগরিকদের মধ্যে, যে সমস্ত নাগরিকগন  দেশ ও জনগনের ভাগ্যন্নয়নের চিন্তা চেতনায় সমৃদ্ধ নির্দিষ্ট দলের দর্শন, আদর্শ, উদ্দেশ্য বাস্তবায়নের লক্ষে সর্বদা নিজেকে নিয়োজিত রাখেন--তাঁদেরকে আমরা উক্ত দলের নেতাকর্মী বলে থাকি। আদর্শিক দলের নেতাকর্মীদের দর্শন ভিত্তিক রাজনীতি'র শিক্ষা গ্রহনের পাঠশালা আছে কিন্তু সেই শিক্ষালয়ে পাঠের সমাপ্তি নেই। শুরু থেকে আমৃত্যু আপামর নাগরিকের ভাগ্য উন্নয়নে আদর্শিক দর্শন বাস্তবায়নে নিবেদিত থাকাই একজন সফল রাজনৈতিক কর্মীর পাঠের সমাপ্তি ঘটে।


রাজনৈতিক নেতাকর্মীদের বেতন, ভাতা, যাতায়ত, অবসর বা পেনশন নেই কিন্তু অমরত্ব আছে। ফুলের মালা যেমন অজস্র পক্ষান্তরে জুতার মালাও থাকে অপেক্ষায়। জেল, জুলুম, হুলিয়ার দু:খ্যানুভূতি যেমন আছে তেমনি আরাম, আয়েশ, সূখানূভুতিও অতুলনীয়। সম্মান, শ্রদ্ধা, ভালবাসা প্রচুর আছে কিন্তু অর্থ, বিত্ত, বৈভব নেই। সামনে যেমন আনুগত্যতার বহি:প্রকাশ লক্ষনীয় তেমনি বিদ্রোহের অবস্থান থাকে ঠিক তার পেছনে।


বিশ্বের সকল দেশে এই একটি মাত্র পেশা'ই বর্তমান--যেখানে ধর্ম, বর্ণ, গোত্র, ধনী, দরিদ্র, শিক্ষিত, অশিক্ষিত, লিঙ্গ ভেদে বৈধ সকল নাগরিকের, সব বয়সের, সকল সময়ে রাজনীতিতে অংশগ্রহন উম্মুক্ত থাকে। আবার এই একটিমাত্র পেশা'ই বিশ্বে বর্তমান, উম্মুক্ত থাকার পরও--সকলের প্রত্যক্ষ অংশগ্রহন ভাগ্যে জোটে না।


এই পেশাতে'ই পরিলক্ষিত হয়--জীবনের স্বর্ণালী সময় গুলী'কে রঙিন স্বপ্নে অকাতরে বিলিয়ে দিয়ে অবস্থার প্রেক্ষাপটে অথবা অন্য যেকোন কারনে রিক্ত, নি:স্ব, শুন্যবস্থায় কোনপ্রকার মঞ্জুরী, বরাদ্ধ, পেনশন ছাড়া পরিত্যাগ করতে বাধ্য হয়। অন্যদিকে বিদ্যমান অন্য যে কোন পেশার চাইতে--মান, মায্যদা, প্রভাব, প্রতিপত্তি যাই বলিনা কেন রাজনীতি'র নেতাকর্মীদের ভাগ্যে'ই শুধু লেখা থাকে।


আমরা জানি--অমরত্ব লাভ প্রত্যেক মানুষের সহজাত উদগ্র বাসনা। অমরত্ব লাভের অদম্য বাসনায় পৃথিবী'র বুকে মানুষ যাই কিছু সংঘটিত করে, তার মধ্যে শ্রেষ্ঠতম কর্মটি রাজনীতি। ব্যাক্তি উদ্যোগে অনেকে'ই হয়ত "বৃহৎ স্থাপনা বা রাস্তা ঘাট, স্কুল কলেজ, মাদ্রাসা মক্তব প্রতিষ্ঠিত করে যান।উক্ত সকল স্থাপনা শুধুমাত্র অঞ্চল ভিত্তিক শত শত বছর অমরত্ব দিতে পারে। অপর দিকে একজন সফল রাজনীতি'র কর্মী তাঁর কর্মগুনে বিশ্বব্যাপী স্মরণীয়, বরণীয় হতে পারেন, কেউ কেউ হয়ত বিশ্বভূমন্ডল ধ্বংসাবদি অমরত্ব পেতে পারেন। 


মানব জীবনের সর্ববীদ বিষয়াদী রাজনীতি'তে উচ্চ মাত্রায় বিদ্যমান থাকা সত্বেও নাগরিকদের বেশীর ভাগ প্রত্যক্ষ রাজনীতিতে জড়িত হতে চায় না, বা হয়না। কারন--রাজনীতি'র পথ পরিক্রমন অত্যান্ত জটিল ও কন্টাকাকীর্ণ। দুস্তর, বন্ধু'র, পিচ্ছিল, বিপদসংকুল পথ পরিভ্রমনের প্রয়োজন হতে পারে। রাজনীতি'র প্রতিটি বাঁকে ওৎ পেতে থাকে 'উত্থান অথবা পতন'। সর্ব সাকুল্যে বলতে পারি--"এতে নগদ কোন প্রকার প্রাপ্তির সম্ভাবনা নেই, তাই সর্বসাধারনের আকর্ষনও রাজনীতিতে নেই। নির্দ্ধিদ্বায় বলতে পারি--রাজনৈতিক কর্মী'র সফলতা তুলনীয় হতে পারে একমাত্র মহাসাগরের তলদেশ থেকে অক্সিজেন বিহীন ডুবুরী দলের মণিমুক্তা আহরণের সাথে। ব্যার্থতার তুলনা হতে পারে একমাত্র জীবিতবস্থায় কবরে প্রবেশ সমতুল্য।


রাজনৈতিক নেতাকর্মী সমাজের বিভিন্ন শ্রেনী-পেশা থেকে উঠে আসতে পারে। অনেকে ছাত্রবস্থায় ছাত্র রাজনীতি'র সাথে যুক্ত থেকে পরবর্তিতে পছন্দসই রাজনৈতিক দলের সদস্যপদ গ্রহন করে আনুষ্ঠানিক রাজনীতি'তে যুক্ত হন।  অনেকে আবার কল কারখানায় শ্রমিকদের দাবী দাওয়া আদায়ের আন্দোলনে সম্পৃত্তবস্থায় কোন না কোন রাজনৈতিক দলের সদস্যের খাতায় অন্তভুক্ত হন। তেমনি ভাবে বিভিন্ন শ্রেনী-পেশা ভিত্তিক সংগঠন অথবা সামাজিক সংগঠন সমূহ থেকে পূর্ণাঙ্গ রাজনৈতিক কর্মীতে পরিণত হতে পারেন। সমাজের যে কোন স্তর থেকে'ই তাঁর উত্থান ঘটুকনা কেন--ইহা একান্তই নিশ্চিত -"তাঁকে হাজার বার স্ব-শ্রেনী'র কায্যপরিধির অভ্যন্তরে কর্মগুনের পরিক্ষায় অবতির্ন হ'তে হয়েছে এবং সফল ভাবে সেই সমস্ত পরিক্ষায় উত্তিন্ন হতে হয়েছে"


এক্ষেত্রে, ছাত্ররাজনীতি'র কর্মী'র সফল উত্থানপর্ব তুলে ধরে বিষয়টিকে আপনাদের সহজবোধ্য করার চেষ্টা করছি। একজন ছাত্র--সে যে দলটি পছন্দ করে সেই দলের স্কুল বা কলেজ পয্যায় শুভানুধ্যায়ী হিসেবে প্রাথমিক সদস্যপদ গ্রহন করে থাকে। সদস্য পদ প্রাপ্তির পর দলের সম্পৃত্ততায় তাঁর রাজনৈতিক প্রজ্ঞা, সাধারন ছাত্র/ছাত্রীদের কাছে টানার সক্ষমতা, দলীয়  কর্মকান্ডে অংশ গ্রহনের নিয়মানূবর্তিতা, দলের প্রতি আনুগত্যতা, নেতার প্রতি শ্রদ্ধাবোধ, মেধাগুন ইত্যাদি দৃশ্যমান বা বিকাশীত হতে থাকে। বিকশীত গুনাগুনের উপর নির্ভর করে কোন এক সময় তাঁর সমকক্ষ শ্রেনীর নেতৃত্বের প্রতিযোগীতায়  অংশ গ্রহন করে। সমকক্ষ অন্য অনেকের সঙ্গে সততা, বিচক্ষনতা, পারঙ্গমতার ভোট যুদ্ধে জয়ী হওয়ার পর কেবমাত্র সর্বনিম্ন পয্যায়ের নেতৃত্বটি সে দখল করতে পারে।ধারাবাহিক তাঁর মৌলিক  শিক্ষা জীবনের সফল সমাপ্তি অবদি তাঁকে সর্বতোভাবে সমকক্ষ বন্ধু'দের সাথে জড়িত থেকে সর্বক্ষন, সর্বসময় ঐচ্ছিক রাজনৈতিক কর্মকান্ড পরিচালনা করার প্রয়োজন পড়েছে।


এই দীর্ঘ সময় দেশ ও জনগনের 'ভাল--মন্দ, উন্নয়ন--অধোগতি, প্রাপ্তি--অপ্রাপ্তি, সাদৃশ্য--বৈসাদৃশ্য ইত্যাদি বিষয়বলী অনুধাবন করেছেন। সামাজিক, অর্থনৈতিক, রাজনৈতিক বিষয়াবলী নিয়ে সর্বদা, সর্বক্ষন চিন্তা চেতনাকে শানিত করেছেন।সমকক্ষ ছাত্রদের সাথে তাঁদের সুখ দু:খ্যের সাথী হয়েছেন। সমমনা বন্ধু সাথীদের সাথে নিয়ে তাঁর বিশ্বাসের আদর্শ'কে সমুন্নত রাখতে প্রতিনিয়ত প্রতিযোগীতায় লিপ্ত হয়েছেন। বিরুদ্ধ আদর্শের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে  মিছিল, মিটিং, আন্দোলন, সংগ্রামে ব্রত থাকতে হয়েছে। 


প্রারম্ভিক পয্যায় থেকে শেষাবদি পয্যন্ত "প্রাপ্তি--অ-প্রাপ্তি, সাদৃশ্য-বৈসাদৃশ্য, ন্যায়-অন্যায়, সামাজিক  অবিচার, জুলুম, নিপীড়ন, নিয্যাতন, দাবী  আদায়ের আন্দোলন, সংগ্রামে সোচ্ছার থেকেছেন"। সর্বসময় দেশ, জনগনের চাহিদার সাথে নিজেকে সম্পৃত্ত করার অভ্যেস গড়ে তুলেছেন। সামগ্রিকভাবে আমৃত্যু  সময়কাল চর্চায় বহু অর্জনের গৌরব ঝুড়িতে জমা করেছেন কিন্তু  ভোগের দিক্ষা গ্রহনের সুযোগ কখনও হয়নি। সকল অর্জনই সংগঠিত সাংগঠনিক শক্তি এবং নেতৃত্বের বিচক্ষনতায় ঝুড়িতে জমা হয়েছে সত্য কিন্তু ভোগের অংশীদারিত্ব নিয়েছে যাদের তরে সংগ্রাম সাধনায় নিবেদিত রয়েছেন, ''তাঁরা সকলে'ই দল মত নির্বিশেষে সর্বসাধারন"। 


সত্যিকারের একজন রাজনৈতিক কর্মী তাঁর কর্মস্থলে নিজ কর্মের পাশাপাশি আপামর জনগনের সাথে সখ্যতা গড়ে তুলতে হয়েছে। জনগনের নিকট তাঁর সততা, অভিজ্ঞতা, বিচক্ষনতা, সেবার মানদন্ড বিচারে বার বার উত্তিন্ন হতে হয়েছে। আমার আমিত্ব ত্যাগ করে সার্বজনীনতা অর্জন করতে হয়েছে। দীর্ঘ কন্টাকাকীর্ণ পথ পাড়ি দিতে সর্বদাই আগলে রেখেছেন নেতাকর্মী, সর্বস্তরের জনগন। ততদিনে পরিবার পরিজন পেছনের সারিতে অবস্থান নিয়েছে। প্রতিনিয়ত, প্রতিক্ষনে সর্বস্ব ত্যাগ করে মানুষকে বেঁধেছেন অকৃত্তিম প্রেমের বন্ধনে। বিনিময়ে দেশ ও জনগনের অকৃত্তিম ভালবাসায় সিক্ত হয়েছেন। পথিমধ্যে নানাহ কারনে অনেকে ছিটকে পড়েছেন সর্বস্ব হারিয়ে অন্ধকার অতল গব্বরে।

          

সুতারাং দেখা যায় প্রারম্ভিক সময়কাল থেকে উত্থিত রাজনৈতিক নেতাকর্মীগন সর্বকাজে দেশ ও জনগনের কল্যানে নিবেদিত থাকার দীক্ষারত: ছিলেন। মৌলিক শিক্ষার পাশাপাশি মানব সেবার  শিক্ষায় সর্বাদাই নিয়োজিত থাকতে হয়েছে।  অন্তর আত্মার আত্মীয় করেছেন সাথের সাথী বন্ধুদের-হৃদয়ে গ্রথিত করেছেন মানবসেবা। সর্বতো, সর্বক্ষন, সর্বাবস্থায় চর্চারত: থাকতে হয়েছে দেশ ও বৃহত্তর জনগোষ্টির কল্যান কামনায়। ধ্যানে, জ্ঞানে সর্ববস্থায় সর্বচ্চো স্থানে--স্থান দিতে হয়েছে দেশ ও  আপামর জনগনকে। তাঁর আমৃত্যু সাধনা, ত্যাগের বিনিময়ে যতসব অর্জন সকল অর্জন মানবের কল্যানে নিবেদিত। "সাধারনকে তৃপ্ত করার আত্মতৃপ্তি'র মোহমন্ত্র ক্রমান্বয়' পরিণত করেছে তাঁকে একজন নেশাগ্রস্ত রাজনীতিবীদে। তখনই কেবলমাত্র প্রতিষ্ঠিত সেই রাজনীতি'র কর্মী পূর্ণাঙ্গ নেশাগ্রস্ত রাজনীতির নেতা ক্রমান্বয়ে হয়ে উঠেন আপমর জনগনের আপন জন তথা বিশ্ব বরেণ্য "জন নেতা"।


    




লেখকঃ উপ-সম্পাদক, বাংলাদেশ প্রেস।

আরও পড়ুন

 মসজিদের ইমামকে কুপিয়ে জখম

মসজিদের ইমামকে কুপিয়ে জখম

নড়াইলে এক মসজিদের ইমামকে কুপিয়ে জখম করেছে প্রতিপক্ষরা। প্রতিপক্ষের দা’য়ের ...

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে গাঁজার গাছ

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে গাঁজার গাছ

গাজার জন্য গোল্ডেন ভিলেজ হিসেবে খ্যাত কুষ্টিয়া। আর কুষ্টিয়ার ইসলামী ...

‘‘ভাগ হয়নি ক’ নজরুল’’ শীর্ষক  আন্তর্জাতিক সেমিনার

‘‘ভাগ হয়নি ক’ নজরুল’’ শীর্ষক আন্তর্জাতিক সেমিনার

বাংলা সাহিত্যের বিস্ময়কর প্রতিভা দ্র্রোহ-প্রেম ও সাম্যের কবি কাজী নজরুল ...

ছাতকে ভুয়া প্রকল্প দেখিয়ে বাধেরঁ টাকা লুটপাটের পায়তারা

ছাতকে ভুয়া প্রকল্প দেখিয়ে বাধেরঁ টাকা লুটপাটের পায়তারা

সুনামগেঞ্জর ছাতক উপেজলার কাছিভাঙা হাওর। যার অবস্থান দক্ষিন সুনামগঞ্জে। কিন্তু ...

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসর নিলেন ডি ভিলিয়ার্স

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসর নিলেন ডি ভিলিয়ার্স

দেশের হয়ে আর ক্রিকেট খেলতে দেখা যাবে না এবি ডি ...

ভোলার চরফ্যাশনে ধর্ষককে রক্ষায় চেয়ারম্যানের নাটক

ভোলার চরফ্যাশনে ধর্ষককে রক্ষায় চেয়ারম্যানের নাটক

আল-আমিন এম তাওহীদ ভোলা প্রতিনিধি ॥ ভোলার চরফ্যাশনের নীলকমল ইউনিয়নের ...

রোহিঙ্গাদের জন্য সর্বাত্মক সহযোগিতা করছে বাংলাদেশ

রোহিঙ্গাদের জন্য সর্বাত্মক সহযোগিতা করছে বাংলাদেশ

বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, মিয়ানমার থেকে বাস্তুচ্যুত হয়ে জীবন ...

এবার মাদকবিরোধী অভিযানে নিহত ৮

এবার মাদকবিরোধী অভিযানে নিহত ৮

এবার চলমান মাদকবিরোধী অভিযানে কথিত ‘বন্দুকযুদ্ধে’ কুষ্টিয়া, কুমিল্লা, ফেনী, ঠাকুরগাঁও, ...