সম্পাদকীয়

  • যা বুঝার বুঝে গেছে জনগন

    যা বুঝার বুঝে গেছে জনগন

  • সবাই মিলে বাঁচতে চাওয়া

    সবাই মিলে বাঁচতে চাওয়া

  • একদিন পৃথিবীর পথে ফলিয়াছি...

    একদিন পৃথিবীর পথে ফলিয়াছি...

  • "মানচিত্র যখন দাবার ঘর"!

    "মানচিত্র যখন দাবার ঘর"!

  • শেখ হাসিনার প্রাণান্ত চেষ্টা স্থিতিশীল দেশ

    শেখ হাসিনার প্রাণান্ত চেষ্টা স্থিতিশীল দেশ

১০ জানুয়ারি, অন্ধকার থেকে আলোর পথে যাত্রা

প্রকাশ: ১১ জানুয়ারী ২০১৮

আবদুল মালেক, উপ-সম্পাদক, বাংলাদেশ প্রেস


আবদুল মালেক।।

আজ ১০ জানুয়ারি। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস। পাকিস্তানের বন্দিদশা থেকে মুক্তি পেয়ে ১৯৭২ সালের এদিন দুপুর ১টা ৪১ মিনিটে জাতির অবিসংবাদিত নেতা শেখ মুজিবুর রহমান সদ্য স্বাধীন বাংলাদেশের মাটিতে প্রত্যাবর্তন করেন। তিনি পাকিস্তান থেকে লন্ডন যান এবং তার পর দিল্লি হয়ে ঢাকায় ফিরে আসেন। 


দিবসটি পালন উপলক্ষে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ ও দলের সহযোগী সংগঠনসহ বিভিন্ন দল ও সংগঠন ব্যাপক কর্মসূচি গ্রহণ করেছে।১৯৭১ সালের ২৬ মার্চের প্রথম প্রহরে পাকিস্তানি শাসকগোষ্ঠী বঙ্গবন্ধুকে গ্রেপ্তার করে পাকিস্তানে নিয়ে কারাগারে আটক করে রাখে।

শেখ মুজিবুর রহমান পাকিস্তান থেকে ছাড়া পান ১৯৭২ সালের ৮ জানুয়ারি। এদিন তাঁকে ও কামাল হোসেনকে বিমানে তুলে দেওয়া হয়। সকাল সাড়ে ৬টায় তাঁরা পৌঁছান লন্ডনের হিথ্রো বিমানবন্দরে। সকাল ১০টার পর থেকে তিনি ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী এডওয়ার্ড হিথ, তাজউদ্দীন আহমদ ও ভারতের তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধীসহ অনেকের সঙ্গে কথা বলেন। পরে ব্রিটেনের বিমানবাহিনীর একটি বিমানে তিনি পরের দিন ৯ জানুয়ারি দেশের পথে যাত্রা করেন।


১০ তারিখ সকালেই তিনি নামেন দিল্লিতে। শেখ মুজিবুর রহমান সেখানে ভারতের রাষ্ট্রপতি ভিভি গিরি, প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধী, সমগ্র মন্ত্রিসভা, নেতৃবৃন্দ, তিন বাহিনীর প্রধানগণ এবং অন্যান্য অতিথি ও সে দেশের জনগণের কাছ থেকে উষ্ণ সংবর্ধনা লাভ করেন।বঙ্গবন্ধু ভারতের নেতৃবৃন্দ এবং জনগণের কাছে তাঁদের অকৃপণ সাহায্যের জন্য আন্তরিক কৃতজ্ঞতা জানান।

শেখ মুজিবুর রহমান ঢাকা এসে পৌঁছেন ১০ জানুয়ারি। ১৬ ডিসেম্বর চূড়ান্ত বিজয়ের পর বাঙালি জাতি তাঁকে প্রাণঢালা সংবর্ধনা জানানোর জন্য অধীর আগ্রহে অপেক্ষায় ছিল। আনন্দে আত্মহারা লাখ লাখ মানুষ ঢাকা বিমানবন্দর থেকে রেসকোর্স ময়দান পর্যন্ত তাঁকে স্বতঃস্ফূর্ত সংবর্ধনা জানান। বিকেল ৫টায় রেসকোর্স ময়দানে প্রায় ১০ লাখ লোকের উপস্থিতিতে তিনি ভাষণ দেন। 


সশ্রদ্ধ চিত্তে তিনি সবার ত্যাগের কথা স্মরণ করেন, সবাইকে দেশ গড়ার কাজে উদ্বুদ্ধ করেন।

নয় মাসের যুদ্ধের একপর্যায়ে বাঙালির মুক্তিযুদ্ধ চূড়ান্ত রূপ নিতে শুরু করে। ধীরে ধীরে স্বাধীনতা অর্জনের পথে মুক্তিযোদ্ধা, জনতা ও মিত্রবাহিনীর যৌথ আক্রমণ তীব্র হয়। জয় তখন সময়ের ব্যাপার হয়ে দাঁড়ায় মাত্র। একই সঙ্গে বঙ্গবন্ধুর মুক্তির দাবিতে বিশ্বব্যাপী জনমত গড়ে তোলা হয় প্রবাসী সরকারের নেতৃত্বে। বিশ্ব নেতৃবৃন্দ বঙ্গবন্ধুর মুক্তির দাবিতে সোচ্চার হলে পাকিস্তানি বর্বর শাসকগোষ্ঠী বাধ্য হয় তাঁকে সসম্মানে মুক্তি দিতে।


১২ জানুয়ারি বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ গ্রহণ করেন। ২৩ সদস্যের আওয়ামী লীগের মন্ত্রিসভা রাষ্ট্র পরিচালনার দায়িত্বভার গ্রহণ করে। দিবসটি উপলক্ষে আওয়ামী লীগের কর্মসূচির রয়েছে। আজ সকাল ৭টায় শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন। এই উপলক্ষে দেওয়া এক বাণীতে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ দেশপ্রেম ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় ঐক্যবদ্ধ হয়ে দেশকে এগিয়ে নেওয়ার জন্য সবার প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন। রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ বলেন, “বঙ্গবন্ধু নিজেই এই স্বদেশ প্রত্যাবর্তনকে ‘অন্ধকার হতে আলোর পথে যাত্রা’ হিসেবে আখ্যায়িত করেন।”



আরও পড়ুন

'গুপ্তধন' সন্ধানে আজও অভিযান

'গুপ্তধন' সন্ধানে আজও অভিযান

রাজধানীর মিরপুর ১০ নম্বর সেকশনের সি ব্লকের ১৬ নম্বর সড়কের ...

যুক্তরাষ্ট্রে নৌকা উল্টে ১৭ জনের মৃত্যু

যুক্তরাষ্ট্রে নৌকা উল্টে ১৭ জনের মৃত্যু

যুক্তরাষ্ট্রে নৌকা উল্টে অন্তত ১৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। শুক্রবার স্থানীয় ...

হামলাকারী ছাত্রলীগের বিচার দাবিতে ঢাবিতে গণপদযাত্রা বিকালে

হামলাকারী ছাত্রলীগের বিচার দাবিতে ঢাবিতে গণপদযাত্রা বিকালে

কোটা সংস্কারের দাবিতে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের ওপর হামলাকারী ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের বিচারের ...

আজ ভারত সফরে যাচ্ছেন এরশাদ

আজ ভারত সফরে যাচ্ছেন এরশাদ

পাঁচ দিনের সফরে আজ ভারতের দিল্লি যাচ্ছেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান ...

সমুদ্রবন্দরকে ৩ নম্বর সতর্ক সংকেত

সমুদ্রবন্দরকে ৩ নম্বর সতর্ক সংকেত

চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, মংলা ও পায়রা সমুদ্র বন্দরসমূহকে সর্বশেষ ৩ নম্বর ...

খালেদার জামিনের মেয়াদ বৃদ্ধির শুনানি আজ

খালেদার জামিনের মেয়াদ বৃদ্ধির শুনানি আজ

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় পাঁচ বছরের দণ্ড দিয়ে ঘোষিত ...

রংপুরে বাসচাপায় প্রাণ হারালেন অটোরিকশার ৩ যাত্রী

রংপুরে বাসচাপায় প্রাণ হারালেন অটোরিকশার ৩ যাত্রী

রংপুর শহরের হাজীরহাট এলাকায় হানিফ পরিবহনের একটি বাসের চাপায় ইজিবাইকের ...

পাহাড়ে অস্ত্র তৈরির কারখানার সন্ধান, র‍্যাবের অভিযান চলছে

পাহাড়ে অস্ত্র তৈরির কারখানার সন্ধান, র‍্যাবের অভিযান চলছে

কক্সবাজারের মহেশখালীতে অবৈধ অস্ত্র তৈরির কারখানার সন্ধান পাওয়া গেছে বলে ...