চামড়ার বাজারে ব্যাপক ধস

প্রকাশ: ১৩ আগস্ট ২০১৯

নিজস্ব প্রতিনিধি ■ বাংলাদেশ প্রেস

সারাদেশে কোরবানির পশুর চামড়ার বাজারে ব্যাপক ধস নেমেছে। জয়পুরহাটের মৌসুমী চামড়া ব্যবসায়ীদের অভিযোগ, বাজারে চামড়া বিক্রি করতে হচ্ছে পানির দরে। এদিকে, ক্রেতা না থাকায় রাজশাহীতেও কোরবানির পশুর চামড়া বিক্রি করতে হচ্ছে নামমাত্র মূল্যে।

উত্তরাঞ্চলের চামড়ার বড় একটি অংশ কেনাবেচা হয় জয়পুরহাটে। পুঁজি সংকট, ট্যানারি মালিকদের কাছে বকেয়া পাওনাসহ নানা কারণে চামড়ার দাম পড়েছে বলে মনে করেন স্থানীয় চামড়া ব্যবসায়ীরা। আগে যেখানে প্রতিটি ছাগলের চামড়া বিক্রি হয়েছে ৪০০ থেকে ৫০০ টাকায়, এবার তার মূল্য মাত্র ৩০ থেকে ৪০ টাকা। 

অন্যদিকে, গরুর চামড়া বিক্রি হতো ৮০০ থেকে হাজার টাকার উপরে। সেখানে এ বছর মূল্য মাত্র ২০০ থেকে ৩০০ টাকা। চামড়ার বাজার ধসে লোকসানের শিকার জেলার মৌসুমি চামড়া ব্যবসায়ীরা। পুঁজি হারিয়ে অনেকেই পথে বসবেন বলেও আশঙ্কা তাদের। 

ট্যানারি মালিকদের কাছে জয়পুরহাটের চামড়া ব্যবসায়ীদের পাওনা প্রায় শতকোটি টাকা। তারা সিন্ডিকেট করে বকেয়া টাকা তো দিচ্ছেনই না, অন্যদিকে সরকারি নিয়ম-নীতির তোয়াক্কা না করে নিজেদের ইচ্ছেমত পানির দামে চামড়া বিক্রি করতে বাধ্য করছেন বলেও অভিযোগ ব্যবসায়ীদের। 

এদিকে, কোরবানির পশুর চামড়া কেনার ক্রেতা নেই রাজশাহীতেও। ক্রেতা না থাকায় নামমাত্রমূল্যে চামড়া বিক্রি করতে হয়েছে বিক্রেতাদের। চামড়া বিক্রেতারা জানান, গ্রাম থেকে বেশি দরে চামড়া কিনলেও বাজারে এনে প্রতিটিতে ৩০০ থেকে ৪০০ টাকা পর্যন্ত লোকসান গুনছেন তারা।