জাবি উপাচার্যও দায় এড়াতে পারেন না ,সরে যেতে হচ্ছে

প্রকাশ: ১৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯

নিজস্ব প্রতিনিধি ■ বাংলাদেশ প্রেস

কমিশন কেলেঙ্কারিতে জড়িয়ে পড়ায় ছাত্রলীগের সভাপতি এবং সাধারণ সম্পাদককে পদ ছাড়তে হয়েছে। এই একই অপরাধে এবার ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) উপাচার্য অধ্যাপক ফারজানা ইসলামের বিরুদ্ধে।

দায়িত্বশীল সূত্রগুলো বলছে যে, কমিশন কেলেঙ্কারির ঘটনায় জাবি উপাচার্যও দায় এড়াতে পারেন না। একজন শিক্ষকের কাছে ছাত্রনেতারা কীভাবে কমিশন দাবি করে এবং কীভাবে তাদের সঙ্গে শিক্ষকের বৈঠক হয়, এ নিয়ে সরকারি মহল ব্যবস্থা নেওয়ার সুপারিশ করেছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রগুলো জানাচ্ছে, জাবি উপাচার্য একাধিকবার ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দের সঙ্গে মিটিং করেছেন। এ বিষয়টি সরকারের নীতি নির্ধারকদের নজরে এসেছে। ছাত্রলীগের দুই নেতাকে অব্যাহতি দেওয়ার পর এখন জাবি উপাচার্যের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেওয়ার প্রক্রিয়া শুরু হচ্ছে। এই প্রক্রিয়ার অংশ হিসেবে তাকে উপাচার্যের পদ থেকে সরিয়ে দেওয়া হতে পারে বলে একাধিক সূত্র নিশ্চিত করেছে।

উল্লেখ্য সাম্প্রতিক নানা নেতিবাচক কর্মকাণ্ডের কারণে ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী ও সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানীকে গতকাল শনিবার বাদ দেওয়া হয়। তাঁদের পরিবর্তে গতকাল রাতেই জ্যেষ্ঠ সহসভাপতি আল নাহিয়ান খানকে ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ও প্রথম যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্যকে ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব দেওয়া হয়।

সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ ছাত্রলীগ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সভাপতি সনজিত চন্দ্র দাস ও সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসেন।