ভূমিদস্যু ও প্রতারক রমজান

প্রকাশ: ১২ জুলাই ২০১৯

মুহাম্মদ ফজলুল করীম

সামসুল হক খান স্কুল এন্ড কলেজ এর বাংলা শিক্ষক রমজান আলী  দীর্ঘদিন যাবৎ মানুষের জায়গা ভুয়া দলিলের মাধ্যমে দখল এবং আত্মসাৎ করে আসছে । যার ফলে জমির প্রকৃত মালিক  প্রতারণার শিকার হচ্ছে  এবং যারা তৈরিকৃত ফ্লাট রমজানের আলীর কাছ থেকে ক্রয় করছে তারা কোন না কোনভাবে একসময় প্রকৃত মালিক দ্বারা হয়রানির  শিকার হচ্ছে এবং আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে।


কিছুদিন আগের ঘটনা  এই প্রতারক রমজান আলী ১৯৬৪ সালের  ভুয়া দলিল  দ্বারা জায়গা অবৈধভাবে দখল করে। উক্ত দলিলের মালিক ১৯৬৩ সালে মারা যান। উক্ত মালিকের নামে  সি এস, এস এ, আর এস ও সিটি জরিপ থাকা সত্ত্বেও সে অবৈধভাবে  ভুয়া দলিল ব্যবহার করে সেই জমি আত্মসাৎ করে। প্রকৃত মালিক যখন জানতে পারে প্রতারক চক্রের মূল হোতা রমজান আলী তার জায়গা অবৈধভাবে দখল ও সেখানে ভবন নির্মাণ করেছে তখন সে কোর্টে একটি মামলা দায়ের করে।এভাবে নিরীহ মানুষের জমি ও অর্থ অনেক দিন ধরে আত্মসাৎ করে আসছে এই রমজান আলী।


সে টাকার বিনিময় রাজউকের পরিকল্পনা অনুমোদন নেয় সেই ভুয়া দলিল ব্যবহার করে।কিন্তু সে রাজুকের প্রণয়নকৃত পরিকল্পনা অনুযায়ী ভবন নির্মাণ না করে নিজের ইচ্ছামত ভবন নির্মাণ করে যা এলাকায় দিন দিন ঝুঁকিপূর্ণ ভবন হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হচ্ছে।


দুদক ও রাজউকের মহাপরিচালকের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি অবিলম্বে যেন এই বিষয়গুলো খতিয়ে দেখা হয় এবং এই প্রতারক চক্রের মূল হোতা রমজান আলী যেন আর কোন নিরীহ মানুষের ভূমি আত্মসাৎ করতে না পারে এবং ঝুঁকিপূর্ণ ভবন তৈরি করতে না পারে কায্যকর পদক্ষেপ গ্রহন করতে সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষন করছি।