পদ্মা সেতু নিয়ে ফেসবুকে গুজব ছড়ানোর অভিযোগে ৪ জন আটক

প্রকাশ: ১২ জুলাই ২০১৯     আপডেট: ১২ জুলাই ২০১৯

নিজস্ব প্রতিনিধি ■ বাংলাদেশ প্রেস

বাংলাদেশের সর্ববৃহৎ সেতু প্রকল্প, পদ্মা সেতু নির্মাণে মানুষের মাথা ও রক্ত লাগবে- সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে এমন গুজব ছড়ানোর অভিযোগে ৪ জনকে আটক করেছে র‌্যাব। তাদের বিরুদ্ধে ডিজিটাল সিকিউরিটি আইনে মামলা করা হয়েছে।

কর্মকর্তারা জানান, পদ্মা সেতু নির্মাণ নিয়ে ফেসবুকে গুজব ছড়ানোর দায়ে দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে বৃহস্পতিবার রাত পর্যন্ত ৩ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এরমধ্যে নড়াইল থেকে শহীদুল ইসলাম, চট্টগ্রাম থেকে আরমান হোসাইন, মৌলভীবাজার থেকে ফারুক নামে চারজনকে আট করা হয়। এ বিষয়ে র‌্যাবের লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইংয়ের সিনিয়র সহকারী পরিচালক এএসপি মিজানুর রহমান ভুঁইয়া সাংবাদিকদের এসব তথ্য জানান।

পদ্মাসেতুর জন্য মানুষের মাথা ও রক্ত লাগবে বলে ফেসবুকে গুজব ছড়ানোর অভিযোগে  আরমান (২০) নামে এক যুবককে আটক করেছে র‌্যাব। গতকাল (বৃহস্পতিবার) রাত দেড়টার দিকে চট্টগ্রামের আনোয়ারা উপজেলার তৈলারদ্বীপ গ্রাম থেকে তাকে আটক করা হয়।

আটক আরমানের পোল্ট্রি ফার্মের ব্যবসা আছে বলে জানিয়েছেন র‌্যাবের চট্টগ্রাম জোনের উপপরিচালক মেজর মেহেদী হাসান। তিনি জানান, গত এক সপ্তাহ ধরে ফেসবুকে ক্রমাগতভাবে আরমান গুজব ও আতঙ্ক ছড়িয়ে আসছিল। টেলিভিশনের স্ক্রলের মতো করে এইমাত্র পাওয়া লিখে সে গুজব ছড়াচ্ছিল। চার শিশু গায়েব, আতঙ্কে গ্রামছাড়া এলাকাবাসী, এই ধরনের নানা মিথ্যা তথ্য সে পরিবেশন করছিল।

একই গুজব ছড়ানোর অভিযোগে নড়াইলের লোহাগড়া উপজেলার মাকড়াইল গ্রাম থেকে শহিদুল ইসলাম সোহেল (২৫) নামে একজনকে আটক করেছে র‌্যাব-৬।

আজ (শুক্রবার) সকালে লোহাগড়া থানায় তার বিরুদ্ধে তথ্য প্রযুক্তি আইনে মামলা হয়েছে। বৃহস্পতিবার (১১ জুলাই) সন্ধ্যায় নিজ বাড়ি থেকে সোহেলকে গ্রেফতার করা হয়। সোহেল মাকড়াইল গ্রামের খসরুজ্জামানের ছেলে।

এক লক্ষ শিশুর মাথা কেটে তৈরি হচ্ছে পদ্মা সেতু, ফেসবুকে এমন গুজব ছড়ানোর অভিযোগে কুমিল্লার লাকসামে হায়াতুন্নবী নামে এক যুবককে আটক করেছে র‌্যাব। আজ (শুক্রবার) ভোরে লাকসাম উপজেলার আশাথী গ্রাম থেকে তাকে আটক করা হয়। সে ওই গ্রামের মো. আব্দুল খালেকের ছেলে।

সম্প্রতি পদ্মা সেতু নির্মাণে মানুষের মাথা লাগবে বলে বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে গুজব ছড়ানো হয়। এ ধরনের অপপ্রচারের প্রতিবাদ জানিয়েছে বাংলাদেশ সেতু কর্তৃপক্ষ। প্রতিবাদ লিপিতে এ ধরনের অপপ্রচারকে দণ্ডনীয় অপরাধ বলেও উল্লেখ করা হয়। এ ধরনের গুজবে বিভ্রান্ত না হওয়ার জন্য দেশবাসীকে অনুরোধ করা হয়েছে। গত মঙ্গলবার পদ্মা বহুমুখী সেতু প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক মো. শফিকুল ইসলাম স্বাক্ষরিত এক স্মারকে এই কথা বলা হয়।