প্রধান ৪ মহাসড়কের পাশে চালকদের জন্য বিশ্রামাগার হবে : ওবায়দুল কাদের

প্রকাশ: ১২ জুন ২০১৯

নিজস্ব প্রতিবেদক ■ বাংলাদেশ প্রেস

দেশের প্রধান চারটি মহাসড়কের পাশে গাড়িচালকদের জন্য বিশ্রামাগার ও পার্কিং স্টেশন স্থাপন করা হবে বলে জানিয়েছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।


আজ বুধবার জাতীয় সংসদে জাতীয় পার্টির সদস্য মো. মুজিবুল হকের তারকা চিহ্নিত এক প্রশ্নের জবাবে এ কথা বলেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী।


ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী মহাসড়কে চালকদের একটানা পাঁচ ঘণ্টার অতিরিক্ত সময়ে গাড়ি না চালাতে এবং তাদের জন্য মহাসড়কে বিশ্রামাগার স্থাপনের নির্দেশনা প্রদান করেছেন। এ লক্ষ্যে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের পাশে কুমিল্লার নিমসারে, ঢাকা-রংপুর মহাসড়কের পাশে দেশের প্রধান চারটি মহাসড়কে সিরাজগঞ্জের পাঁচিলায়, ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের পাশে হবিগঞ্জের জগদীশপুরে এবং ঢাকা-খুলনা মহাসড়কে মাগুরা জেলার লক্ষীকাণ্ড নামক স্থানে আধুনিক সুযোগ-সুবিধা সংবলিত বিশ্রামাগার ও পার্কিং স্টেশন স্থাপনের লক্ষ্যে ডিপিপি অনুমোদন প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।’


এছাড়া মো. হারুনুর রশীদের প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী জানান, আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন সরকারের বিগত দশ বছরে ২৫ হাজার ৫২৬ জন সড়ক দুর্ঘটনায় মারা গেছেন। এই সময়ে ১৯ হাজার ৭৬৩ জন আহত হয়েছেন।


তিনি বলেন, ২০০৯ সাল থেকে ২০১৯ সালের মে মাস পর্যন্ত সময়ে এই হতাহতের ঘটনা ঘটে।


আরেক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, 'সড়ক দুর্ঘটনার কারণ সম্পর্কে বিআরটিএ ও এক্সিডেন্ট রিসার্চ ইনস্টিটিউট (এআরআই) বুয়েট কতিপয় কারণ নির্ণয় করেছে। এরমধ্যে রয়েছে- পথচারীসহ সড়ক ব্যবহারকারীদের যথাযথ সচেতনতার অভাব, যানবাহনের চালকদের দক্ষতার অভাব। আইন অমান্য করারা প্রবণতা ও আইনের যথাযথ প্রয়োগের অভাব।


সড়ক দুর্ঘটনায় যে মানুষ মারা যাচ্ছে তার উল্লেখখযোগ্য কারণ হচ্ছে- ওভারলোডিং, ওভারটেকিং, যান্ত্রিক ত্রুটি, যাত্রীদের অসচেতনতা, চালকদের ট্রাফিক সাইন না মানা, এক নাগাড়ে পাঁচ ঘণ্টার বেশি গাড়ি চালানো।


পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী আরো বলেন, ‘স্কিল ফর এমপ্লয়মেন্ট ইনভেস্টমেন্ট (এসইআইপি) প্রকল্পের আওতায় পাঁচ বছরে মোট ১ লাখ দক্ষ গাড়িচালক সৃষ্টি করার কার্যক্রম চলমান রয়েছে।’