নোয়াখালীতে অতিরিক্ত ভাড়ার টাকা ফেরত পেলেন যাত্রীরা

প্রকাশ: ১০ জুন ২০১৯     আপডেট: ১০ জুন ২০১৯ |

মাহবুবুর রহমান বাবু ,নোয়াখালী ব্যুরো প্রধান ■ বাংলাদেশ প্রেস

নোয়াখালী থেকে ঢাকা ও চট্টগ্রামগামী বাসে কর্মস্থলে ফেরা যাত্রীরা অতিরিক্ত ভাড়ার টাকা তৎক্ষনিক ভাবে ফেরত পেলেন।এসময় অতিরিক্ত ভাড়া নেয়ায় ১১টি বাসকে ৩৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

সোমবার  দুপুর থেকে বিকেল পর্যন্ত ভ্রাম্যমান আদালত জেলার নোয়াখালী-ঢাকা ও নোয়াখালী-চট্রগ্রাম আঞ্চলিক মহাসড়কে বাস থামিয়ে জরিমানা ও তাৎক্ষণিকভাবে যাত্রীদের কাছ থেকে নেয়া অতিরিক্ত ভাড়ার টাকা ফেরত দেওয়া হয়।

এসময় অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের দায়ে ঢাকাগামী একুশে এক্সপ্রেসকে ৫হাজার টাকা, হিমাচল পরিবহনকে ৫হাজার টাকা, জননী পরিবহনকে ৫হাজার টাকা, মোহনা পরিবহনকে ৫হাজার টাকা ও চট্টগ্রামগামী জোনাকী পরিবহনের ২টি বাসকে ৫হাজার ৫শত টাকা, বাঁধন পরিবহনকে ২হাজার টাকা, শাহী পরিবহনকে ৪হাজার টাকা, নিলাচল পরিবহনের ২টি বাসকে ৩হাজার ৫শত টাকাসহ মোট ১১টি পরিবহনকে ৩৫হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন নোয়াখালী জেলা প্রশাসনের এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ রোকনুজ্জামান খান, সহযোগিতা করেন জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক দেবানন্দ সিনহা ,বিআরটিএ নোয়াখালী সার্কেলের সহকারী পরিচালক প্রকৌশলী আতিকুর রহমান ও র্র্যাব-১১  লক্ষীপুর কোম্পানী কমান্ডার পুলিশ সুপার নরেশ চাকমা।

বাসযাত্রী চট্রগ্রামের গার্মেন্টস কর্মী রহিমা খাতুন বলেন,আমরা সামান্য টাকা বেতন পাই। আপনজনদের সাথে বাড়ীতে ঈদ করতে আসলে অতিরিক্ত ভাড়ার টাকা দিতে অনেক কষ্ট হয়।ভ্রাম্যমান আদালত অতিরিক্ত টাকা ফেরত নিয়ে দেয়ায় আমি অনেক খুশী।

এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ রোকনুজ্জামান খান জানান, নোয়াখালী থেকে ঢাকা ও চট্রগ্রামগামী বাসগুলোতে দেখা যায় যাত্রীদের কাছ থেকে স্থানভেদে ১৫০ টাকা থেকে ৩০০ টাকা পর্যন্ত অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করা হচ্ছে।  এসময় গাড়ীর সুপারভাইজার ও ড্রাইভার অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের বিষয়টি স্বীকার করেন । ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইন ২০০৯ এর ৪০ধারায় অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের দায়ে বাসগুলোকে জরিমানা করা হয় ও যাত্রীদের ভাড়ার অতিরিক্ত  টাকা ফেরত দেওয়া হয়।

তিনি আরো জানান,জনস্বার্থে ভ্রাম্যমান আদালতের এই অভিযান অব্যাহত থাকবে।