• কালীগঞ্জে স্বামীর এলোপাতাড়ি মারে  স্ত্রী নিহত

    কালীগঞ্জে স্বামীর এলোপাতাড়ি মারে স্ত্রী নিহত

  • অনুষ্ঠান চলাকালেই ভেঙ্গে পড়লো স্মৃতিসৌধের ডিসপ্লে বোর্ড

    অনুষ্ঠান চলাকালেই ভেঙ্গে পড়লো স্মৃতিসৌধের ডিসপ্লে বোর্ড

  • উত্তরায় শিশু গৃহকর্মীর লাশ উদ্ধার, এলাকাবাসীর বিক্ষোভ

    উত্তরায় শিশু গৃহকর্মীর লাশ উদ্ধার, এলাকাবাসীর বিক্ষোভ

  • 'দেয়ালিকায় ভাসে স্বাধীনতার ছবি'

    'দেয়ালিকায় ভাসে স্বাধীনতার ছবি'

  • বঙ্গভবনে রাষ্ট্রীয় অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী

    বঙ্গভবনে রাষ্ট্রীয় অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী

নাগেশ্বরী ভূমি অফিস দূর্নীতির আখড়া জমির মালিক একজন নামজারি অন্য জনের

প্রকাশ: ১৪ জুন ২০১৮

অনিরুদ্ধ রেজা,কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি , বাংলাদেশ প্রেস

নাগেশ্বরী ভূমি অফিসে সীমাহীন দুর্নীতি ও ঘুষ বাণিজ্য ওপেন সিক্রেট। নামজারি, খাজনা খারিজের নামে অবাধে বেপরোয়া দুর্নীতি চলছে। এছাড়া একজনের নামের জমি জালিয়াতির মাধ্যমে আরেকজনের নামে নামজারি করার অভিযোগও পাওয়া গেছে। ভূমি অফিসের দুর্নীতিবাজ কর্মকর্তাদের উৎকাচের দাবি মেটাতে গিয়ে অনেকে বাড়ি গাছ ও গোয়ালের গরু বিক্রি করেও শেষ রক্ষা পাচ্ছেন না। এছাড়া নথিতে জমির তথ্য গোপন রাখা হচ্ছে। বাণিজ্যিক জমিকে কৃষি জমি হিসেবে দলিল সম্পাদক করা হচ্ছে। এতে বিপুল পরিমাণ রাজস্ব বঞ্চিত হচ্ছে সরকার।  

সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, সহকারী কমিশনার (ভূমি) অফিসে নামজারি, খাজনা আদায় ও মিস কেসের নামে চলছে জমজমাট অর্থ বাণিজ্য। আইন-কানুনের বালাই নেই, মোটা অংকের উৎকাচের বিনিময়ে জাল-জালিয়াতির আশ্রয় নিয়ে একজনের জমি আরেকজনের নামে নামজারি করা হয়েছে। নামজারির ক্ষেত্রে সর্বসাকুল্যে ১১৫০ টাকা সরকারি ফি নির্ধারিত থাকলেও সেখানে আদায় করা হচ্ছে ২০ হাজার টাকা। আর ‘ভেজালে’র ক্ষেত্রে আদায় করা হচ্ছে ৫০ থেকে ৭০ হাজার থেকে লাখ টাকা পর্যন্ত। 

নাগেশ্বরী উপজেলার সন্তোষপুর গাগলা ভূমি অফিসে দুর্নীতি সবচেয়ে বেশি হচ্ছে। মোটা অংকের উৎকোচ ছাড়া কোনো অর্পিত সম্পত্তি নামজারি করা হচ্ছে না। এমনই ঘটনা ঘটেছে নাগেশ্বরী উপজেলার আলপের তেপতি গ্রামের মফিজুল ইসলামের জমি নিয়ে লঙ্কাকান্ড। তিনি ১৭ বছর থেকে তার ক্রয়কৃত জমি ভোগদখল করে সরকারকে নিয়মিত খাজনা দিয়ে আসলেও তার অজান্তেই তাকে নোটিশ না করেই তার জমি জব্বার নামীয় গংদের নামে আলতাফ হোসেন খারিজ করেছে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি)। ভূক্তভোগী ওই ব্যক্তি তার জমির কাগজপত্র মডগেজ দিয়ে ব্যাংক থেকে ঋণ নিয়ে থাকলেও কিভাবে অন্যের নামে সেই জমি নাম খারিজ হয় এ নিয়ে উপজেলা জুড়ে চলছে সর্বত্রই আলোচনার ঝড়। একটি কুচক্রী মহলের অন্যতম ইন্ধনদাতা দুর্নীতির দায়ে বিভাগীয় মামলায় চাকরিচ্যুত জিনের বাদশা আলতাফ হোসেন মফিজুল ইসলামের খারিজকৃত ও ১৭/১৮ বছর থেকে দখলকৃত জায়গা অন্যের কাছে ভূয়াভাবে রেজিষ্ট্রি করতে গেলে নাগেশ্বরী সাব-রেজিষ্ট্রার কর্মকর্তা এতে অপারগতা প্রকাশ করেন। এতেই থেমে নেই এই ভূমি অফিসে ব্যাপক অনিয়ম, দুর্নীতি, হয়রানি ও ঘুষ বাণিজ্য। ভয়াবহ এসব চিত্র প্রতিনিয়ত ঘটছে বলে অভিযোগ স্থানীয়দের।  

নাম না বলার শর্তে ভুক্তভোগী আলপের তেপতি গ্রামের ব্যবসায়ী মফিজুল ইসলাম জানান, নামজারির শুরু থেকে তহশিল অফিস পর্যন্ত বিপুল পরিমাণ অর্থ খরচ হয়। দীর্ঘদিন থেকে এই অনিয়ম সম্পর্কে অনেক লেখালেখি সত্ত্বেও দায়িত্বশীল কর্তৃপক্ষ এই অনিয়ম ও দুর্নীতি খতিয়ে দেখেনি। ওই অফিসে বিভিন্ন নামজারি মামলা থেকে ঘুষ লেনদেন করা হচ্ছে। সাধারণ মামলাগুলো থেকে বিভিন্ন অজুহাত দেখিয়ে ইচ্ছাকৃতভাবে টাকা নিচ্ছে। কেউ কেউ টাকা দিতে অপারগতা প্রকাশ করলে তার মামলা খারিজ করার হুমকি দেয়ার অভিযোগ রয়েছে। অথচ এই ভূমি অফিসে সাইবোর্ডে ঘটা করে লেখা “খারিজ করতে কানো টাকা লাগে না”। কিন্তু টাকা ছাড়া কোনো ফাইলেই নড়ে না। 

ভূক্তভোগী মফিজুল ইসলাম জানান, সম্প্রতি ভূমি অফিসে প্রতি বছরের ন্যায় বাণিজ্যিক ৪০ টাকা হারে প্রতি শতাংশে খাজনা দিতে গিয়ে দেখি খাজনার ভলিয়মে আমার নামে ভলিয়মে লেখা থাকলেও একই জমির উপর জব্বার গংদের নামে মোটা অংকের উৎকোচ নিয়ে আমার জমি তাদের নামে খারিজ করে নিয়ে দিয়েছেন। এক্ষেত্রে ভূমি অফিস থেকে নামজারি কাটার পূর্বে একাধিক নোটিশ দেয়ার আইন থাকলেও তা মানা হয় নাই। নোটিশও গায়েব করা হয়েছে। 

এ ব্যাপারে সন্তোষপুর গাগলা ইউনিয়নের তহশিলদার আফজাল হোসেনের যোগাযোগ করা হলে তিনি তার বিরুদ্ধে এসব অভিযোগের বিষয়টি এড়িয়ে যান। তবে মফিজুল ইসলামের জমি সহকারী কমিশনার (ভূমি)’র বেআইনিভাবে আরেকজনের নামে নামজারির বিষয়টি স্বীকার করে বলেন, এটি এসিল্যান্ড  স্যার ভালো বলতে পাবেন। এই তহশিলদার প্রতিবদনে আইনশৃঙ্খলার অবনতি ঘটেনি মর্মে প্রতিবেদন দাখিল করলেও নাগেশ্বরী থানার ওসি জাকির হোসেন শৃঙ্খলা ভঙ্গ হয়েছে মর্মে কোর্টে লিখিত প্রতিবেদন দাখিল করেছেন। পাল্টাপাল্টি অসমাঞ্জস্যপূর্ণ প্রতিবেদনে বিভ্রান্ত হচ্ছে সাধারণ মানুষ। 

এ ব্যাপারে নাগেশ্বরী সাব-রেজিষ্ট্রার মোঃ জহিরুল ইসলাম জানান-মফিজুল ইসলাম ভোলার বিবাদীগণ দুর্নীতির দায়ে বিভাগীয় মামলায় চাকরিচ্যুত জিনের বাদশা আলতাফ হোসেন সহ জমিটি রেজিষ্ট্রি করার জন্য এসেছিল। কিন্তু উক্ত জমির কাগজপত্র ব্যাংকে মডগেজ থাকায় এতে আমি অস্বীকৃতি জানাই। 

নাগেশ্বরী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শংকর কুমার বিশ্বাস বলেন-ভূমি আইন অনুযায়ী প্রতিটি কাজ সম্পাদন প্রত্যেকের দায়িত্ব। ভূয়া নামজারির ব্যাপারটি খতিয়ে দেখা হবে। আইনের উর্দ্ধে কেউ নন। 

এ ব্যাপারে সহকারী কমিশনার (ভূমি) মোঃ আল ইমরানের সঙ্গে যোগাযোগ হলে তিনি জানান, এখন ব্যস্ত আছি পরে কথা হবে।  


পরবর্তী খবর পড়ুন : নগর জুড়েই মরণ ফাঁদ : বাকলিয়ায় খোলা ড্রেনে পড়ে ভাঙ্গলো পাঁজরের হাড়


অনুষ্ঠান চলাকালেই ভেঙ্গে পড়লো স্মৃতিসৌধের ডিসপ্লে বোর্ড

অনুষ্ঠান চলাকালেই ভেঙ্গে পড়লো স্মৃতিসৌধের ডিসপ্লে বোর্ড

সাভারের জাতীয় স্মৃতিসৌধের চত্বরে স্বাধীনতা দিবসের অনুষ্ঠান চলাকালে মঞ্চের পাশের ...

উত্তরায় শিশু গৃহকর্মীর লাশ উদ্ধার, এলাকাবাসীর বিক্ষোভ

উত্তরায় শিশু গৃহকর্মীর লাশ উদ্ধার, এলাকাবাসীর বিক্ষোভ

রাজধানীর উত্তরায় এক শিশু গৃহকর্মীর লাশ উদ্ধার হয়েছে। শিশুটিকে হত্যার ...

বুধবার গাজীপুরে শুরু হচ্ছে দ্বিতীয় চারুকলা উৎসব

বুধবার গাজীপুরে শুরু হচ্ছে দ্বিতীয় চারুকলা উৎসব

সৃষ্টিশীল শিল্পকলা চর্চার মাধ্যমে রুচিশীল সংস্কৃতিমনস্ক মানবিক প্রজন্ম গড়ে তোলা ...

বিক্রমপুরের নূরুলকে নিয়ে অনলাইন দুনিয়ায় আলোচনার ঝড়

বিক্রমপুরের নূরুলকে নিয়ে অনলাইন দুনিয়ায় আলোচনার ঝড়

বিশ্বজুড়ে অনলাইনে ঝড় তুলেছে বাংলাদেশি এক প্রবাসী নির্মাণ শ্রমিক। সোশ্যাল ...

গোদাগাড়ীতে পদ্মা নদীতে নৌকা ডুবিতে একজন নিখোঁজ

গোদাগাড়ীতে পদ্মা নদীতে নৌকা ডুবিতে একজন নিখোঁজ

রাজশাহীর গোদাগাড়ী পদ্মা নদীতে ইঞ্জিন চালিত নৌকা ডুবিতে একজন নিখোঁজ ...

'দেয়ালিকায় ভাসে স্বাধীনতার ছবি'

'দেয়ালিকায় ভাসে স্বাধীনতার ছবি'

স্বাধীনতা! শুধু একটি শব্দ বা কতগুলো অক্ষরের সমষ্টি নয়। এ ...

সকল তথ্য রাখা যাবে ডিএনএর মধ্যে

সকল তথ্য রাখা যাবে ডিএনএর মধ্যে

ডিএনএর মধ্যে তথ্য সংরক্ষণ করে পরে তা পুনরুদ্ধার করা যাবে। ...

বিআরটিসি দিয়ে সড়কের দখল নিন, নৈরাজ্য ধ্বংস করুন

বিআরটিসি দিয়ে সড়কের দখল নিন, নৈরাজ্য ধ্বংস করুন

সড়কের বাস্তবিক নৈরাজ্য সীমানা অতিক্রম করেছে। নৈরাজ্য বলতে এমন কোন ...