• প্রধানমন্ত্রীর ফ্লাইটে কেবিন ক্রু বহিষ্কার

    প্রধানমন্ত্রীর ফ্লাইটে কেবিন ক্রু বহিষ্কার

  • আবুল খায়ের গ্রুপের চেয়েরম্যান এর বিরুদ্ধে গ্রেফতারী পরোয়ানা

    আবুল খায়ের গ্রুপের চেয়েরম্যান এর বিরুদ্ধে গ্রেফতারী পরোয়ানা

  • নোবিপ্রবিতে দেশরত্ন শেখ হাসিনার ৭১তম  জন্মবার্ষিকীর সপ্তাহব্যাপী আয়োজন

    নোবিপ্রবিতে দেশরত্ন শেখ হাসিনার ৭১তম জন্মবার্ষিকীর সপ্তাহব্যাপী আয়োজন

  • ‘স্বচ্ছ ঢাকা’ গিনেজ বুকে

    ‘স্বচ্ছ ঢাকা’ গিনেজ বুকে

  • সীমান্তে নাটকীয় ভাবে ২০টন  কয়লা ও মাদকদ্রব্য পাঁচার:আটক ২টন

    সীমান্তে নাটকীয় ভাবে ২০টন কয়লা ও মাদকদ্রব্য পাঁচার:আটক ২টন

ইতিহাস কখনও মুছে ফেলা যায় না

প্রকাশ: ০৮ মার্চ ২০১৮     আপডেট: ০৮ মার্চ ২০১৮

বাংলাদেশ প্রেস ডেস্ক

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, স্বাধীনতার পর বিভিন্ন সময় ৭ মার্চের ভাষণ বাজাতে গিয়ে অনেকে গ্রেপ্তার নির্যাতনের শিকার হয়েছেন। কিন্তু আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা সব বাধা পেরিয়ে ৭ মার্চ, ২৬ মার্চ বা ১৫ আগস্টের মতো দিনে এই ভাষণ বাজিয়েছেন। বিকৃতির মাধ্যমে বার বার বঙ্গবন্ধুকে ইতিহাস থেকে মুছে ফেলার চেষ্টা করা হয়েছে। কিন্তু, ইতিহাস কখনও মুছে ফেলা যায় না। শত চেষ্টার পরেও তারা এই ভাষণ মুছে ফেলতে পারেনি।


বুধবার রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে ঐতিহাসিক ৭ মার্চ উপলক্ষে আয়োজিত জনসভায় প্রধান অতিথির ভাষণে এসব কথা বলেন তিনি।


প্রধানমন্ত্রী বলেন, আজ যেখানে শিশুপার্ক ঠিক সেখানে সেদিনের মঞ্চ ছিল। আমার সৌভাগ্য হয়েছিল সেখানে উপস্থিত থাকার। জাতির পিতা সেখানে দাঁড়িয়েই ‘এবারের সংগ্রাম আমাদের মুক্তির সংগ্রাম, এবারের সংগ্রাম স্বাধীনতার সংগ্রাম’ সেই ঐতিহাসিক ঘোষণা দিয়েছিলেন। 


শেখ হাসিনা হলেন, তার সেই ঘোষণা সমগ্র বাংলাদেশে ছড়িয়ে যায়। সত্যই প্রতিটি ঘরে দুর্গ গড়ে উঠে। পাকিস্তানিরা যখন গণহত্যা শুরু করলো তখন বঙ্গবন্ধু ইপিআরের ওয়ারলেস ব্যবহার করে স্বাধীনতা না পাওয়া পর্যন্ত যুদ্ধ চালিয়ে যেতে বলছিলেন। বাংলার মানুষ সেই নির্দেশ অক্ষরে অক্ষরে পালন করেছে।


তিনি আরও বলেন, বাংলাদেশের মানুষের অর্থনৈতিক, সামাজিক, রাজনৈতিক মুক্তির জন্য বঙ্গবন্ধু আজীবন আন্দোলন করেছেন। যেখানেই বঙ্গবন্ধু অন্যায় দেখেছেন সেখানেই তিনি প্রতিরোধ গড়ে তুলেছিলেন। স্বাধীনতার পর মাত্র সাড়ে ৩ বছর সময় পেয়েছিলেন বঙ্গবন্ধু। এই সামান্য সময়েই তিনি সারাবিশ্বে বাংলাদেশের স্বীকৃতি আদায়, মানুষের অভাব দূর, রাস্তাঘাট সংস্কার, এককোটি শরনার্থীর পুনর্বাসনসহ অনেক উন্নয়ন করেছেন। কিন্তু যখনই দেশ ভালোভাবে চলতে শুরু করে, তখনই বঙ্ঘবন্ধুকে হত্যা করা হয়। তিনি দেশ স্বাদীন করেছিলেন এটাই কি তার অপরাধ ছিল?

আরও পড়ুন

প্রধানমন্ত্রীর ফ্লাইটে কেবিন ক্রু বহিষ্কার

প্রধানমন্ত্রীর ফ্লাইটে কেবিন ক্রু বহিষ্কার

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে বহন করা বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের এক কেবিন ...

ঘুরে দাঁড়ালো টিম বাংলাদেশ

ঘুরে দাঁড়ালো টিম বাংলাদেশ

আবুধাবিতে এশিয়া কাপের সুপার ফোরের ম্যাচে  আফগানিস্তানকে ৩ রানে হারালো ...

‘স্বচ্ছ ঢাকা’ গিনেজ বুকে

‘স্বচ্ছ ঢাকা’ গিনেজ বুকে

ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি) আয়োজিত ‘স্বচ্ছ ঢাকা পরিচ্ছন্নতা অভিযান’ ...

মোংলা বন্দরে আগত বিদেশী জাহাজে কাস্টমসের হয়রানীর অভিযোগ

মোংলা বন্দরে আগত বিদেশী জাহাজে কাস্টমসের হয়রানীর অভিযোগ

মোংলা বন্দরে আগত বিদেশী জাহাজে তল্লাশীর নামে নানাভাবে হয়রানীর অভিযোগ ...

সীমান্তে নাটকীয় ভাবে ২০টন  কয়লা ও মাদকদ্রব্য পাঁচার:আটক ২টন

সীমান্তে নাটকীয় ভাবে ২০টন কয়লা ও মাদকদ্রব্য পাঁচার:আটক ২টন

সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলার চোরাচালানের স্বর্গরাজ্য হিসেবে পরিচিত বালিয়াঘাট সীমান্ত দিয়ে ...

চাকুরী খুঁজতে গিয়ে চুরির অপবাদ : সালিসের নামে ডেকে দুই তরুনীকে ধর্ষন, আটক ৬

চাকুরী খুঁজতে গিয়ে চুরির অপবাদ : সালিসের নামে ডেকে দুই তরুনীকে ধর্ষন, আটক ৬

চট্টগ্রামে সালিসের নামে ডেকে নিয়ে দুই তরুণীকে গন ধর্ষণের অভিযোগ ...

কাল ঢাবি’র খ ইউনিটের ফল প্রকাশ

কাল ঢাবি’র খ ইউনিটের ফল প্রকাশ

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে (ঢাবি) ২০১৮-২০১৯ শিক্ষবর্ষের খ ইউনিট ১ম বর্ষ সম্মান ...

কানাডায় সিনহার মেয়ে আশা সিনহার একাউন্ট জব্দ

কানাডায় সিনহার মেয়ে আশা সিনহার একাউন্ট জব্দ

নিজের আত্মজীবনী এবং বাংলাদেশের বিচারব্যবস্থা নিয়ে বই লিখে নতুন করে ...