• আজ শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস

    আজ শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস

  • মোবাইল গ্রাহকদের অধিকার রক্ষায় হাইকোর্টে রিট

    মোবাইল গ্রাহকদের অধিকার রক্ষায় হাইকোর্টে রিট

  • খালেদার প্রার্থিতা নিয়ে দুপুরে একক বেঞ্চে শুনানি

    খালেদার প্রার্থিতা নিয়ে দুপুরে একক বেঞ্চে শুনানি

  • মোশাররফ-আইএসআই কর্মকর্তার ফোনালাপ ফাঁস: রাষ্ট্রদোহিতার অভিযোগ

    মোশাররফ-আইএসআই কর্মকর্তার ফোনালাপ ফাঁস: রাষ্ট্রদোহিতার অভিযোগ

  • ‘কোল্ড আর্মস’ নিয়ে কক্সবাজারে হামলার জঙ্গী পরিকল্পনা ভণ্ডুল

    ‘কোল্ড আর্মস’ নিয়ে কক্সবাজারে হামলার জঙ্গী পরিকল্পনা ভণ্ডুল

‘জাফর ইকবালের প্রতি ফয়জুরের আক্রোশ কেন ? ’

প্রকাশ: ০৫ মার্চ ২০১৮     আপডেট: ০৬ মার্চ ২০১৮

বাংলাদেশ প্রেস ডেস্ক

ড. জাফর ইকবালের পেছনে র প্রতি ফয়জুরের দীর্ঘদিনের আক্রোশ ছিল। তিনি নাকি ইসলামের শত্রু। সেই আক্রোশের জের ধরেই তার ওপর হামলা চালায় ফয়জুর।


রোববার (৪ মার্চ) দুপুর ৩টায় র‌্যাব-৯ এর সদর দফতরে প্রেসব্রিফিংয়ে সিলেট র‌্যাবের অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল আলী হায়দার আজাদ এ কথা জানিয়েছেন।


তিনি জানান, বরেণ্য লেখক ও শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শাবিপ্রবি) শিক্ষক অধ্যাপক ড. মুহম্মদ জাফর ইকবালের ওপর হামলাকারী ফয়জুর হাসান ওরফে ফয়জুল জঙ্গি মতবাদে বিশ্বাস করতেন। তবে এখন পর্যন্ত কোনো জঙ্গিগোষ্ঠীতে তার যুক্ত থাকার প্রমাণ পাওয়া যায়নি। কুমারগাঁওয়ের শেখপাড়ার বাড়ি থেকে র‌্যাব বিভিন্ন ধরনের ইসলামি বই ও বেশ কিছু আলামত সংগ্রহ করেছে। সেগুলো র‌্যাবের অপর একটি দল খতিয়ে দেখছে।


কর্নেল আলী হায়দার আজাদ বলেন, ‘ফয়জুরের কাছ থেকে র‌্যাব বিভিন্ন ধরনের তথ্য পেয়েছে। সেই তথ্যের ভিত্তিতে র‌্যাবের একটি দল কাজ করে যাচ্ছে। ইতোমধ্যে র‌্যাব তিন জনকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে। এ ধরনের হামলা কেউ একা করতে পারে না। তার সঙ্গে আরও কেউ ছিল বলে আমরা ধারণা করছি। তবে জিজ্ঞাসাবাদে ফয়জুর র‌্যাবকে জানায়— সে একাই এ হামলা চালিয়েছে।’


তিনি আরও বলেন, ‘ফয়জুর এক সময়ে মাদ্রাসায় দাখিল পর্যন্ত পড়াশোনা করেছে। এরপর সে আর পড়েনি। বিভিন্ন সময়ে সে বিভিন্ন স্থানে কাজ করেছে। তার সঙ্গে আর কারা জড়িত— সেগুলো তদন্ত করে দেখছে র‌্যাব। তাকে সিলেট মহানগর পুলিশের জালালাবাদ থানায় হস্তান্তর করা হবে। হামলার ঘটনার মূল বিষয়টি দেখবে পুলিশ। আর পুলিশের পাশাপাশি আলোচিত এ ঘটনার ছায়া তদন্ত করবে র‌্যাব।’


র‌্যাব-৯ এর অধিনায়ক জানান , ফয়জুর সুনামগঞ্জ জেলার দিরাই থানার কালিয়াকাপন গ্রামের বাসিন্দা সদর উপজেলার টুকেরবাজেরর মাদরাসা শিক্ষক হাফিজ আতিকুর রহমানের ছেলে। ফয়জুরের পরিবারের কাউকে এখনও খুঁজে পাওয়া যায়নি। তাদের সন্ধানের জন্য কাজ চলছে।


রোববার রাত ১১টার দিকে সিলেট নগরীর মদিনা মার্কেট এলাকা থেকে ফয়জুরের বাবা আতিকুর রহমান ও মা মিনারা বেগমকে আটক করা হয়। সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার মুহম্মদ আবদুল ওয়াহাব মানবকণ্ঠকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

স্কুল জীবনে ফয়জুলঃ ফয়জুল হাসান জন্ম ১৯৯৯ সালের ৫জুলাই। শৈশবেই ছিল মেধাবী। শুরুতেই কাওমী মাদ্রাসায় ভর্তি হয়ে শুরু করে তার শিক্ষা জবিন। সে দিরাই উপজেলায় তারা পাশা মাদ্রসায় সপ্তম শ্রেনী পর্যন্ত লেখাপড়া করেছে। পরে ভর্তি হয় ধল দাখিল মাদ্রাসায়। এরপর ২০১১সালে অষ্টম শ্রেনীতে ভর্তি হয় জেডিনি পরীক্ষায় জিপিএ ৩.৭৮ পেয়ে উত্তির্ন হয়। এরপর ২০১৪সালে দাখিল পরীক্ষায় ৪.৫৬পেয়ে উত্তীর্ন হয়। দাখিল পাশ করার পর কেউ তার শিক্ষা জীবন নিয়ে জানতে পারে নি।


একাধিক সূত্রে জানাযায়,সুনামগঞ্জের দিরাই উপজেলায় কালিয়ার কাপন গ্রামের একবারে দক্ষিন দিকে লম্বা দুটি দালান বিশিষ্ট বসতঘরের আলাদা বাদিতে পরিবারের লোকজন নেই সবকটি ঘর তালাবদ্ধ। পাশের বাড়িতে রয়েছে ফয়জুরের ফুফু রেহানা বেগম। তিনি কান্নাকাটি করছেন। ফয়জুলের  ফয়জুল হাসান ফয়জুলের পিতা হাফিজ মাওলানা আতিকুর রহমান পরিবার নিয়ে সিলেট থাকেন। এলাকায় পরিচিতি রয়েছে তার কুরেশ আলী নামে। ৩ছেলে ও  মেয়ে রয়েছে। ফয়জুল হাসান তাদের মধ্যে ৩য়। ফয়জুলের বড় ভাই এনামুল হাসান ঢাকায় একটি প্রতিষ্টানে চাকরী করে। মেঝ ভাই আবুল হাসান কুয়েত প্রবাসী। কিছু দিন পুর্বে ফয়জুল হাসানের বাবা সিলেট শহরের কুমারগাও এলাকায় শেখ পাড়ায় পরিবারের সবাইকে নিয়ে নিজস্ব বাসা তৈরী করে বসবাস করছে। এখানে ফয়জুলও বসবাস করছিল। সিলেটে বসবাস করায় গ্রামের বাড়ি কালিয়াকপনে একবারেই কম যোগাযোগ ছিল। ফয়জুল মাঝে মাঝে শহরের ফেরী করে কাপড় বিক্রি করত। ফয়জুলের দাদা একজন খুবেই ভাল মানুষ হলেও তার সন্তান (ফয়জুলের চাচা) জাহার মিয়া ধর্মী বিভিন্ন বিষয়ে এলাকায় মতবিরোধ দেখা দেওয়ায় এলাকা থেকে বের করে দেওয়া হয়। এর পর আর গ্রামে আসে নি। তিনি বর্তমানে কুয়েত প্রবাসী। ফয়জুলের চাচা জাহার মিয়া ও আব্দুল কাহার আহলে হাদিস ধারার অনুসারী। তারা দীর্ঘ দিন ধরেই কুয়েতে থাকে।


ফয়জুল হাসান কালিয়ার কাপন গ্রামে স্থানীয় এলাকাবাসী জানান,গত কয়েক বছর ধরেই ফয়জুল মাঝে মাঝে এলাকায় এসে ফেরী করে কাপড় বিক্রি করত। এছাড়াও আনুমানিক ৫বছর পূর্বে মাজহাব বিরোধী মতাদর্শ নিয়ে কথাবার্তা বলতে গিয়ে স্থানীয় মুসল্লিদের বাধায় মসজিদ থেকে বের হয়ে আসে। এরপর আর ফয়জুল আর গ্রামে যায় নি। 


গ্রামের বাসীন্দা যুবলীগ নেতা লুৎফুর রহমান চৌধুরী জানান,ফয়জুল তার চাচা জাহারের পথ ধরেই তার মর্তাদশ গ্রামের লোকজনের মাঝে মসজিদের প্রচারনা চালায়। গ্রামের কিছু কিছু মানুষ লক্ষ্য করেন তারা (চাচা জাহার ও ভাতিজা ফয়জুল) সাভাবিক ভাবে সবাই নামাজ পড়লেও তারা সে নিয়মে নামাজ পড়ে নি। এনিয়ে গ্রামের মুসল্লিদের মাঝে কতাকাটার কাটি হয়। এক প্রর্যায়ে তাদের সমজিদে নামাজ আদায় করতে বাধা দেওয়া হয়। এক সময় তাদের মসজিদে আসতে নিষেধ করাও হয়। এক সময় তারা এলাকা ছেড়ে চলে যায়। এরপর মাঝে মাঝে ফয়জুল হাসান লুঙ্গি,গামছা বিক্রি করার জন্য এলাকায় আসত। 


কালিয়াকাপন গ্রামের জামে মসজিদের ইমাম হাফেজ হাবিবুর রহমান জানান,আমি ৩-৪বছর ধরে এই এলাকার মসজিদে ইমামতি করছি। লোক মুখে শুনেছি ফয়জুল ও তার দু চাচা মাজহাববিরোধী প্রচারনা চালালে সুন্নি মতাবালম্বী মুসল্লিরা তাদেরকে মসজিদে আসতে নিষেধ করেন। এরপর তারা আর মসজিদে নামাজ পড়তে আসত না। 

এর আগে বিকেলে অধ্যাপক মুহম্মদ জাফর ইকবালের ওপর হামলাকারী ফয়জুর রহমানকে পুলিশ হেফাজতে দেয়া হয়েছে। এরপরই পুলিশ ফয়জুর রহমানকে হাসপাতালে ভর্তি করে। আহত অবস্থায় ফয়জুরকে গ্রহণ করে চিকিৎসকদের তত্ত্বাবধানে রাখা হয়েছে।


বরেণ্য লেখক ও শিক্ষাবিদ জাফর ইকবালকে দীর্ঘদিন ধরেই মৌলবাদীরা নানারকম হুমকি দিয়ে আসছিলেন। শনিবার বিকেলে সিলেট শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের মুক্তমঞ্চে ইলেকট্রিকাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিক্স ইঞ্জিনিয়ারিং (ইইই) ফেস্টিভ্যালের সমাপনী অনুষ্ঠান চলাকালে তার ওপর হামলা চালানো হয়। পেছন থেকে তার মাথায় ছুরিকাঘাত করা হয়। এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত একজনকে আটক করে গণপিটুনি দিয়ে র‌্যাবের হাতে তুলে দেয় বিশ্ববিদ্যালয়ের সাধারণ শিক্ষার্থীরা । শনিবার রাতেই ফয়জুল ও অজ্ঞাতপরিচয় আরও কয়েকজনকে আসামি করে জালালাবাদ থানায় মামলা দায়ের করেছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।


এদিকে অধ্যাপক জাফর ইকবালের ওপর হামলাকারী ফয়জুর রহমানের বাসায় তল্লাশি চালিয়েছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। বাসাটি বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসের পার্শ্ববর্তী কুমারগাঁওয়ের শেখপাড়ার। সেখান থেকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ফয়জুলের চাচা আব্দুল কাহের এবং মামা সুনামগঞ্জ জেলা কৃষকলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক ফজলুর রহমানকে পুলিশ ও র‌্যাব আটক করে।

টেলিভিশন পর্দায় দেখতে পাবেন ‘হাসিনা: অ্যা ডটারটস টেল’

টেলিভিশন পর্দায় দেখতে পাবেন ‘হাসিনা: অ্যা ডটারটস টেল’

পিতা নেই, কিন্তু পাহাড় সমান পিতার স্বপ্ন আগলে রেখেছেন পরম ...

নির্বাচনী দায়িত্বে থাকবেন ১২৯২ ম্যাজিস্ট্রেট

নির্বাচনী দায়িত্বে থাকবেন ১২৯২ ম্যাজিস্ট্রেট

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন সুষ্ঠু ও অবাধ-নিরপেক্ষ করতে নির্বাচন সংশ্লিষ্ট ...

আধুনিক বাংলাদেশের ‘জনক’ শেখ হাসিনা

আধুনিক বাংলাদেশের ‘জনক’ শেখ হাসিনা

গর্বের সাথে এমন একটি লাইন আমাকে লিখতেই হলো। আমি জানি ...

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ জিতবে ১১ কারণে

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ জিতবে ১১ কারণে

বাংলাদেশের একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন আগামী ৩০ ডিসেম্বর ২০১৮ তারিখে। ...

নৌকার গণজোয়ার আছড়ে পড়ছে : কাদের

নৌকার গণজোয়ার আছড়ে পড়ছে : কাদের

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সড়ক পরিবহন সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের ...

বিএনপির আড়াই লাখ নেতাকর্মী গ্রেফতারের শঙ্কা রিজভীর

বিএনপির আড়াই লাখ নেতাকর্মী গ্রেফতারের শঙ্কা রিজভীর

বিএনপির আড়াই লাখ নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করা হতে পারে বলে শঙ্কা ...

অবৈধ স্বর্ণ বৈধ করার সুযোগ

অবৈধ স্বর্ণ বৈধ করার সুযোগ

ট্যাক্স দিয়ে তারা অবৈধ স্বর্ণ বৈধ করতে পারবেন  দেশের স্বর্ণ ব্যবসায়ীরা। একাদশ ...

নির্বাচনী প্রচারণায় অসুস্থ ডা. জাফরুল্লাহ

নির্বাচনী প্রচারণায় অসুস্থ ডা. জাফরুল্লাহ

সিলেটে নির্বাচনী প্রচারণায় গিয়ে হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়েছেন গণস্বাস্থ্যের প্রতিষ্ঠাতা ...